ডাকাতি নয়, নাসিক নির্বাচনে ভোট চুরি হয়েছে: গয়েশ্বর চন্দ্র রায়

নিজস্ব প্রতিবেদক: সদ্য সমাপ্ত নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে ভোট চুরি হয়েছে বলে অভিযোগ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, এবার ভোট ডাকাতি হয়নি। দিনের আলোতে যা ঘটেছে তা সুন্দর ছিল, কিন্তু রাতের ঘটনা অজ্ঞাত। ভোট চুরি হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন ও নির্বাচনকালীন সরকার: প্রেক্ষিত গ্রহণযোগ্য নির্বাচন’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। ভয়েস অব ডেমোক্রেসি (ফেলো) নামক একটি সংগঠন আলোচনা সভাটির আয়োজন করে।

তিনি বলেন, বিএনপির কাউন্সিল প্রার্থীরা নাসিকে বেশি জয় লাভ করেছে। মানুষ কাউন্সিলরদের মার্কা লাউ কুমড়ায় ভোট দিল আর ধানের শীষে ভোট দিল না এটা কি বিশ্বাসযোগ্য?

গয়েশ্বর বলেন, নির্বাচন কমিশনকে এত স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে তারা যা ইচ্ছা তাই করছে। হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যাওয়া আর ট্রাকের নিচে মাথা রাখা একই কথা। আত্মহত্যা মহাপাপ। এই পাপ কি করা যায়?

ক্ষোভ প্রকাশ করে বিএনপির এই নীতি নির্ধারক বলেন, নাসিকে ইলেকশন ফেয়ার বাট রেজাল্ট আনফেয়ার। ব্যবধানটা বিশ্বাসযোগ্য নয়। অথচ নাররায়ণগঞ্জের ৫টি আসনই বরাবর বিএনপি পেয়ে আসছে। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে সব আসনে বিএনপি পাস করে।

তিনি বলেন, ফলাফল ঘোষণার আগে ৭ কেন্দ্রের ভোট অসমর্থিত সূত্রের বরাত দিয়ে গণমাধ্যম প্রকাশ করলো। অসমর্থিত সূত্র কারা? সোর্স আর সরকারের তথ্য এক হয়ে গেল?

সরকার নাসিক নির্বাচনে দৃশ্যমান কোনো ‘দুর্ঘটনা’ করেনি উল্লেখ করে তিনি বলেন, এবার তারা দিনে ডাকাতি করেনি। কিন্তু চুরি করেছে। চোরের অধীনে নির্বাচন করা আরো কঠিন। ।

গয়েশ্বর আরো বলেন, বিএনপি মরে যায়নি, পচেও যায়নি। ১৭ দিন নাসিকে গিয়েছিলাম, যেখানেই গিয়েছি দেখেছি বিএনপি আর বিএনপি।

আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা অ্যাড. জিল্লুর রহমান রিন্টুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন- বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মাদ রহমত উল্লাহ, বীর উত্তম শহীদ জিয়া শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY