পর্তুগালের নিযুক্ত বাংলাদেশের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতকে বৃহত্তর নোয়াখালীবাসীর সংবর্ধনা

রনি মোহাম্মদ, পর্তুগাল: লিসবনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সফল রাষ্ট্রদূত ইমতিয়াজ অাহমেদের সাথে বিদায়ী সাক্ষাৎ ও সংবর্ধনা জানিয়েছেন বৃহত্তর নোয়াখালী অ্যাসোসিয়েশন ইন পর্তুগালের নেতৃবৃন্দ।

গতকাল বেলা ১২.৩০ মিনিটে সংগঠনের সভাপতি সভাপতি হুমায়ুন কবির জাহাঙ্গীর, সিনিয়র সহ-সভাপতি অাবুল কালাম অাজাদ, সাধারন সম্পাদক মহিন উদ্দিনের নেতৃত্বে রাষ্ট্রদূতের সাথে বিদায়ী সাক্ষাত করতে অাসেন বৃহত্তর নোয়াখালী অ্যাসোসিয়েশন ইন পর্তুগালের নেতৃবৃন্দ। এই এ সময় বিদায়ী রাষ্ট্রদূত ইমতিয়াজ আহমদকে সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুল ও ক্রেস্ট দিয়ে বিদায়ী সম্মাননা জানানো হয়।

উল্লেখ্য ২০১৩ সালের ১ লা ফেব্রুয়ারি পর্তুগালে প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ দূতাবাস। দূতাবাস প্রতিষ্ঠার তিন মাস পরই মে মাসে দূতাবাসের প্রথম রাষ্ট্রদূত হিসেবে যোগ দেন জনাব ইমতিয়াজ আহমেদ।

বিগত প্রায় চার বছরে পর্তুগাল-বাংলাদেশের পারস্পরিক সম্পর্ককে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। পর্তুগাল প্রবাসী বাংলাদেশীদের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সেবা প্রদান ছাড়াও রাষ্ট্রদূতের অক্লান্ত পরিশ্রমে পর্তুগালের লিসবন ও পর্তো তে দুটি স্থায়ী শহীদ মিনার স্থাপন করতে সমর্থ হন।

বিদায়ী সংবর্ধনায় অংশ নিয়ে রাষ্ট্রদূতের সম্মানে কথা বলতে গিয়ে সকলেই রাষ্ট্রদূত মহাদয়ের ভূয়সী প্রসংসা করেন এবং তার সময়ে দূতাবসের বিভিন্ন দিকের উন্নয়ন তুলে ধরেন। বিদায়ী অাবেগঅাপ্লুত রাষ্ট্রদূত বলেন অামার সীমাবদ্ধতা ও বাধ্যবাধকতার মধ্যে থেকে সর্বদা চেষ্টা করেছি, জানিনা কতটুকু পেরেছি তবে শতভাগ চেষ্টা করেছি। আমার দেখা এই কমিউনিটি পৃথীবির অন্য কমিউনিটি গুলো থেকে অালাদা ছিলো বলে মনে করেন তিনি। কমিউনিটির মধ্যে ঐক্যমত ঠিক রাখতে সকলের প্রতি অাহবান জানান।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি শরীফুল ইসলাম, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম সুমন, সহ সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান ভূইয়াঁ, রনি মোহাম্মদ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান হোসেন ভূইয়াঁ, আইন সম্পাদক এ্যাডঃ মোঃ সামসুদ্দিন হায়দর, সহ প্রচার সম্পাদক ওমর ফারুক লিটন, আপ্যায়ন সম্পাদক আয়ুব আলী খান, নাইম হাসান পাবেল ইফতেকার রিংকু, শেখ ফরিদ, মোঃ ইউসুপ প্রমুখ।

রাষ্ট্রদূত ইমতিয়াজ অাহমেদ পর্তুগাল চলতি মাসেই জার্মানির বাংলাদেশ দূতাবাসে যোগদান করবেন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY