পল্টন থানার মামলায়ও ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত দুই নেতার রিমান্ড নাকচ

নিজস্ব প্রতিবেদক: গুলিস্তানে ফুটপাত থেকে হকার উচ্ছেদে অস্ত্র উঁচিয়ে গুলির ঘটনায় শাহাবাগ থানার পর পল্টন থানার মামলায়ও দুই ছাত্রলীগ নেতার রিমান্ড আবেদন নাকচ করেছেন আদালত। বুধবার সকালে ঢাকার মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদার এ আদেশ দেন।

বিষয়টি জানিয়েছেন ঢাকার অপরাধ, তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) আনিসুর রহমান। তিনি জানান, ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের (সিএমএম) আদালতে ছাত্রলীগের সাবেক দুই নেতাকে পল্টন থানার পুলিশ নতুন একটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে পাঁচদিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন।

আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন মঞ্জুর করে রিমান্ড নাকচ করে দেন। আনিসুর রহমান আরো জানান, আজ আবার নতুন মামলায় তাঁদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে তাঁরা গত সোমবার শাহবাগ থানার আরেকটি মামলায় জামিন পান। কিন্তু নতুন মামলায় গ্রেপ্তার থাকায় মুক্তি পাচ্ছেন না তাঁরা।

গ্রেপ্তার এই দুই বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা হলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সাব্বির হোসেন ও ওয়ারী থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আশিকুর রহমান। এর আগে গত বছরের ১৭ নভেম্বর শাহবাগ থানার আরেকটি মামলায় ছাত্রলীগের এ দুই নেতা আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন নেন।

এরপর ৪ ডিসেম্বর তাঁদের সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা। নেতারা রিমান্ড শুনানির সময় আদালতে হাজির না হওয়ায় জামিন বাতিল করে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির নির্দেশ দেন আদালত।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০১৬ সালের ২৭ অক্টোবর গুলিস্তান পাতাল মার্কেট এলাকার ফুটপাত থেকে অবৈধ দোকান উচ্ছেদের সময় হকারদের সঙ্গে সিটি করপোরেশনের কর্মচারীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়। এ সময় ছাত্রলীগের তৎকালীন দুই নেতা অস্ত্র উঁচিয়ে ফাঁকা গুলি ছুড়ে আতঙ্ক সৃষ্টির চেষ্টা করেন।

এ ঘটনায় শাহবাগ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল মান্নান বাদী হয়ে একটি হত্যাচেষ্টা মামলা করেন। মামলায় ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সাব্বির হোসেন ও ওয়ারী থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আশিকুর রহমানসহ অজ্ঞাতপরিচয় ৫০-৬০ জনকে আসামি করা হয়। গুলি ছোড়ার ঘটনা প্রকাশের পর সংগঠন থেকে এঁদের বহিষ্কার করা হয়।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY