মুমিনুলের ঝলমলে ইনিংসে বাংলাদেশের ১৫৪

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: বৃষ্টি বারবার হামলে পড়েছে। খেলা বন্ধ থেকেছে। ওয়েলিংটনের সবুজ উইকেটে এই অবস্থায় প্রথম দিনেই ব্যাট করা কঠিন কাজ। কিন্তু সেই কঠিন পরীক্ষার প্রথম দিন শেষে বাংলাদেশের মুখে হাসি আছে। বৃহস্পতিবার মাত্র ৪০.২ ওভার খেলা হয়েছে। সেখানে আছে তামিম ইকবালের ৫৬ রানের আলো ঝলমলে ইনিংস। প্রিয় প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মুমিনুল হক ৬৪ রানে অপরাজিত। সাকিব আল হাসান অপরাজিত ৫ রানে। আলোর স্বল্পতায় দিনের খেলা শেষ হওয়ার সময় বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৫৪। বেসিন রিজার্ভের গ্রিন-টপে এ তো টাইগারদেরই দিন!

বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা এমন উইকেটে খেলতে একদম অভ্যস্ত না। তাই স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড টস জিতলেই প্রমাদ গুনতে হয়েছিল! তামিম একদিক দিয়ে হামলা চালালেন শুরুতে। কিন্তু দলের ১৬ রানেই পড়ল প্রথম উইকেট। ইমরুল কায়েস ১ রান করেই বিদায় নিলেন টিম সাউদিকে উইকেট দিয়ে। কিন্তু তামিমের ব্যাটে ঝড়। মুমিনুল যোগ দিয়েছেন ততক্ষণে।

বৃষ্টির কারণে আগেভাগে লাঞ্চ হয়। কিন্তু তামিম মেরে চলেন। ওয়ানডে স্টাইলের খেলা। কিউই বোলাররা খুব সুইং করালেন বা সিমের মুভমেন্ট থাকল খুব, তা নয়। উল্টো তারাই চাপে। তামিমের কারণেই ১৯ বলের মধ্যে ৭ বাউন্ডারির শিকার হয়েছিলেন ট্রেন্ট বোল্ট। পেসার শোধ তুলেছেন উইকেটটা তুলে নিয়ে। ৬০ রানের সময় তামিমের বিদায়। ৫০ বলে ১১ চারে ৫৬ রান তামিমের আগ্রাসণের দারুণ প্রমাণ।

তামিম ও মুমিনুলের জুটিটা ৪৪ রানের। এখন একটু জেনে নিন প্রথম দিন শেষে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মুমিনুলের ব্যাটিং গড়। ২২০ মাত্র! খুব অবাক হওয়ার কিছু নেই। এর আগে খেলা চার ইনিংসে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মুমিনুলের স্কোর যথাক্রমে ১৮১, অপরাজিত ২২, ৪৭ ও অপরাজিত ১২৬। তবে আগের দুই টেস্ট ছিল বাংলাদেশে। কিউইদের মাটিতেও মুমিনুল সেই সাফল্যের ধারাটা টেনে নিলেন।

মুমিনুলের সলিড ডিফেন্স। তবে এটা যে শট খেলারও উইকেট! সেখানেও কোনো সমস্যা নেই লিটল জিনিয়াসের। ১১০ বল খেলেছেন। তাতে ১০টি চারের মার। সাথে বাংলাদেশের ইনিংসের এখন পর্যন্ত একমাত্র ছক্কা। মাহমুদউল্লাহর (২৬) সাথে তৃতীয় উইকেটে ৮৫ রানের জুটি মুমিনুলের। বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসের প্রাথমিক ভিতটা তাতেই গড়া।

বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড টেস্ট ম্যাচে বৃষ্টির হানা

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY