ভারত-পাকিস্তানের যুদ্ধ থামিয়ে দিতে পারে এক চা-ওয়ালা! (ভিডিও)

একটি ছবিই পাল্টে দিলো চা-ওয়ালার জীবন!

অনলাইন ডেস্ক: চাওয়ালা থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। এবার চা বিক্রেতা থেকে রাতারাতি মডেল হয়ে গেলেন পাকিস্তানের এক যুবক।

পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদের আরশাদ খান নামক এক চা-ওয়ালাকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠেছে। শুধু পাকিস্তানেই নয়,ভারতে সহ সারা বিশ্বে এখন সে আলোচিত একজন ব্যক্তি।

কারণ একটাই – আরশাদ খান নামে ইসলামাবাদের রাস্তার পাশের এই চায়ের দোকানের মালিক খুবই সুদর্শন। নীল রঙা চোখের এই যুবক চা বানাতে বানাতে ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে রয়েছে, এই রকম একটি ছবি কোনো একজন ক্রেতা সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করার পর সেটি ভাইরাল হয়ে যায়। টুইটারে তার এই ছবি শেয়ার করছে এবং মন্তব্য করছে মূলত ভারত এবং পাকিস্তানের হাজার হাজার মেয়ে।

অনেক নারী এমন মন্তব্যও করছেন, এই চা-ওয়ালা তার চায়ের চেয়েও হট অর্থাৎ গরম। আবার অনেকে লিখেছেন, আরশাদই পারেন ভারত-পাকিস্তানের উত্তেজনা কমাতে।

এক পাকিস্তানী যুবক তার টুইটার পাতায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং আরশাদ খানের ছবি পাশাপাশি রেখে পোষ্ট করেছেন। প্রধানমন্ত্রী মোদীর ছবির ওপরে লিখেছেন- ভারতের চাই-ওয়ালা, এবং আরশাদের ছবির ওপরে লিখেছেন- পাকিস্তানের চাই-ওয়ালা। তার পোষ্টের শিরোনাম ছিল- ‘সার্জিকাল স্ট্রাইক ফ্রম পাকিস্তান’।

দক্ষিণ এশিয়ার বাইরে থেকেও টুইটারে অনেকে মন্তব্য করছেন। মাইকেল কুগলম্যান নামে একজন লিখেছেন, ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনা প্রশমিত হয়েছে, ইসলামাবাদের একজন চা-বিক্রেতা এখন সবচেয়ে হট-টপিক। পাকিস্তানের একাধিক টিভি চ্যানেল এই চা বিক্রেতাকে খুঁজে বের করে তার সাক্ষাৎকার প্রচার করছে।

আরশাদ খান

আরশাদ জানিয়েছেন, তিনি সিনেমায় অভিনয় করতে চান। আরশাদের ছবিটি তুলেছেন ফটোগ্রাফার জাওয়েরিয়া আলী। তিনি একটি টিভি চ্যানেলকে জানিয়েছেন, ছবিটি যে এতটা সাড়া ফেলবে তিনি কল্পনাও করেননি।

এদিকে বিভিন্ন ওয়েবসাইটের খবরে জানা গেছে, ইসলামাবাদভিত্তিক একটি অনলাইন শপিং স্টোরের সঙ্গে মডেলিংয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন আরশাদ খান। অনলাইন প্রতিষ্ঠানটি তাদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে আরশাদের স্যুট পরা কয়েকটি ছবিও পোস্ট করেছে।

একটি ছবিই পাল্টে দিলো চা-ওয়ালাকে!

এর আগে সম্প্রতি ইন্টারনেটে ট্রেন্ডে পরিণত হন আরশাদ খান। মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে ছবিটি প্রকাশের পর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তা ভাইরাল হয়ে যায়। ব্যক্তিগত মন্তব্যে অনেকেই তার সৌন্দর্যের প্রশংসা করেছেন। কেউ কেউ তাকে পাকিস্তানি এবং বলিউড তারকাদের সঙ্গে তুলনা করেছেন।

তবে যেভাবে রাতদিন মানুষজন ভিড় করে তার সাথে সেলফি তুলতে চাইছে, তাতে তার চায়ের দোকান বন্ধ হওয়ার জোগাড় হয়েছে। বিবিসি।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY