এবার ক্ষমা চাইলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া

অনলাইন ডেস্ক: বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ‘কোয়ান্টিকো’ টিভি সিরিজ, ‘বেওয়াচ’ সিনেমাসহ নানা কারণেই আলোচনায় রয়েছেন। তাকে নিয়ে আলোচনা, সমালোচনা হচ্ছে সমানতালে।

বেশ কিছুদিন আগে ‘কোয়ান্টিকো’ টিভি সিরিজের দ্বিতীয় মৌসুমে প্রচারিত অন্তরঙ্গ দৃশ্যের একটি ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ায় সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। এছাড়া একটি ট্রাভেল ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদে পোজ দিয়ে সমালোচনার জন্ম দিয়েছেন এই অভিনেত্রী। আর সে জন্য ক্ষমা চাইলেন তিনি।

টাইম ম্যাগাজিনের জরিপে বিশ্বের ১০০ প্রভাবশালী ব্যক্তির তালিকায় রয়েছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। এছাড়া ইউনিসেফের অ্যাম্বাসেডরও তিনি। প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জানিয়েছেন, ম্যাগাজিনে মূলত বৈষম্যর বিষয়টি বোঝানো হয়েছে এবং সেটি বুঝতে সবার ভুল হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘তারা বিশেষভাবে আমার জন্য টি-শার্টটি বানিয়েছে এবং তা আমাকে পরতে অনুরোধ করেছে। তারা আমাকে বলেছে, এর মাধ্যমে মানুষের জেনোভোবিয়ার (বিদেশ ভীতি) বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে যা বর্তমানে খুবই বড় একটি ইস্যু। এটাই ছিল তাদের মূল উদ্দেশ্য। আমি মনে করি, এজন্যই এটা করেছি। এটি যদি কারো অনুভূতিতে আঘাত করে থাকে তাহলে আমি সত্যিই খুবই দুঃখিত। ম্যাগাজিনটি প্রকৃতপক্ষে ভালো কিছুই করতে চেয়েছিল।’

ম্যাগাজিনের ছবিতে দেখা যায়, ভেজা চুলে রেলিংয়ে হেলান দিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন প্রিয়াঙ্কা। তার পরনে সাদা রঙের একটি টি-শার্ট। টি-শার্টের সামনের অংশে লেখা- রিফিউজি, ইমিগ্রেন্ট, আউটসাইডার ও ট্রাভেলার। এই চারটি শব্দের মধ্যে প্রথম তিনটি শব্দ লাল রঙ দিয়ে কেটে দেয়া। শুধু ট্রাভেলার শব্দটি ঠিক রয়েছে।

রিফিউজি শব্দটি কেটে দেয়ার কারণেই মূলত সমালোচনার জন্ম হয়েছে। কারণ গোটা বিশ্ব যখন শরণার্থীদের নিয়ে চিন্তিত, তখন প্রিয়াঙ্কা কেন তাদের পাশে নেই! ধারণা করা হচ্ছে- শরণার্থীদের পছন্দ নয় প্রিয়াঙ্কার। আর তাই এ নিয়ে নানাজন নানারকম মন্তব্যের তীর ছুড়ছেন প্রিয়াঙ্কা ও ওই ম্যাগাজিনটির দিকে। অনেকে ক্ষোভে ফেটেও পড়েন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY