গরীব হকারদের পুলিশ তাড়ায়, বড়লোক হকাররা পুলিশকে তাড়ায়: মেয়র আনিসুল হক

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা সিটি করপোরেশনের জায়গা দখলমুক্ত করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক বলেছেন, ‘গরীব হকারদের পুলিশ তাড়ায় আর বড়লোক হকাররা পুলিশকে তাড়ায়’।

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) বার্ষিক সাধারণ সভা-২০১৬ উদ্বোধনকালে মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) দুপুরে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মেয়র আনিসুল হক বলেন, বিভিন্ন রকম দখলদারের সঙ্গে কাজ করতে হয় আমাকে। একটা হলো গরীব দখলদার।যারা হকার, রাস্তা দখল করে আছেন। তাদেরকে পুলিশ খুব পিটাতে পারে। আরেকটি হলো বড়লোক দখলদার, গত তিন মাস ধরে দেখছি তাদের। ঢাকা শহরের গুলশান এলাকায় এখন কাজ করছি। গুলশান-১ ও গুলশান-২-এর মধ্যে ১৭টি স্ট্যাবলিশমেন্ট পেয়েছি, যারা কোনো না কোনোভাবে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের জায়গা দখল করে আছে। এই গরীব হকারদের পুলিশ তাড়াতে পারে। কিন্তু এই বড়লোক হকাররা পুলিশকে তাড়ায়।এ হলো তাদের শক্তি। দখলদাররা মাল্টিন্যাশনাল হোটেল তৈরি করেছেন, মাল্টিন্যাশনাল বিজনেস হাউজ তৈরি করেছেন সিটি করপোরেশনের জায়গাতে।

তবে আমি স্পষ্টভাবে বলছি, তাদের কাছ থেকে প্রত্যেক ইঞ্চি জায়গা আমরা নিয়ে নেব।দুইজনের সঙ্গে চ্যালেঞ্জ করেছিলাম, রাত ৩টার দিকে তাদের দখলকৃত জায়গায় বুলডোজার চালিয়ে দিয়েছি। আপনারা দেখবেন ইনশাআল্লাহ, ১২-১৪ ফুটের ফুটপাত তৈরি হচ্ছে। এমনভাবে ফুটপাত তৈরি করছি যাতে একজন অন্ধ লোক রাস্তা দিয়ে একা চলে যেতে পারেন। তেজগাঁওয়ের মধ্য দিয়ে যাবেন, দেখবেন সমস্ত বড়লোক, বিরাট বিরাট ফ্যাক্টরি করেছেন, সিকউরিটির জায়গা বানিয়েছেন, কোনো না কোনোভাবে তারা সিটি করপোরেশনের জায়গা কিছুটা হলেও দখল করে আছেন। হয় গ্যারেজ বানিয়ে গাড়ি রাখছেন, বাগান বানাচ্ছেন-কিছু না কিছু করছেন। প্রত্যেককে বলেছি, দয়া করে জায়গা ছেড়ে দেন। সিটি করপোরেশনের জায়গা আপনারা দখলে রাখতে পারবেন না। কেউ কেউ এখনো চ্যালেঞ্জ করছেন, চিন্তা করবেন না, মিডিয়া নিয়ে যাব।

মেয়র আরও বলেন, বনানীর কোনায় ৫২ বছর মোনায়েম খান সাহেবের জমি দখল করে রাখা হয়েছিল। কেউ তা উদ্ধারে যাননি। আমরা জোরজবরদস্তি করে দখল করেছি। দখল করার পর দেখলাম হাইকোর্ট ওই জায়গার ভেতরে আমাদের আরো ১৪ ফুট জায়গা দিয়ে দিয়েছেন। তেজগাঁও হোক আর যেখানে হোক আমরা যেভাবে নেমেছি আর মিডিয়া আমাদের যেভাবে সাপোর্ট দিচ্ছে আমরা সমস্ত জায়গা দখলমুক্ত করে ফেলতে পারব।

‘ঢাকা শহরকে যানজট মুক্ত করা এবং এই শহরটাকে শৃঙ্খলায় আনা খুবই মুশকিল’ একথা জানিয়ে আনিসুল হক বলেন, মিরপুর এলাকায় ২২-২৩ টি খাল আছে। একটি খালেরও প্রপার অবস্থা এখন নেই। সর্বোচ্চ লম্বা খালটির দৈর্ঘ্য ১ মাইল, তাও পানি নেই। বাড়ি ঘর, মাঠ ও বাজার বানিয়েছে খালের উপরে। তো কী করে ঢাকা শহরের জলজট মুক্ত করবেন? যে শহরে শহরে ৩ লাখ গাড়ি থাকার কথা, সেখানে গাড়ি আছে ১১ লাখ। কী করে মেয়র বা সরকারি লোকজন ঢাকা শহরের যানজট মুক্ত করবেন?

৭১৮ বর্গকিলোমিটারের সিঙ্গাপুর শহরে জনসংখ্যা ৫৫ লাখ, ৯১৮ বর্গ কিলোমিটারের সিউলে ১১ মিলিয়ন লোক, ২ হাজার ৫১১ বর্গকিলোমিটারের মস্কো শহর, যেখানে প্রতি বর্গকিলোমিটারে ১২ হাজারে মতো লোকের বসবাস। আর আমাদের উত্তর সিটি ৮৩ বর্গকিলোমিটারের করপোরেশনের জনসংখ্যা কত?

ডিআরইউ সদস্যদের উদ্দেশে মেয়র বলেন, আপনারা যারা সাংবাদিকতায় নতুন, আপনারা আমাদের সম্পদ। কারণ এই দেশে সাংবাদিকতা একটি পার্লামেন্টের শক্তি। যখন কোনো শক্ত বিরোধী পক্ষ না থাকে, তখন কাগজ (গণমাধ্যম) শক্তি হয়ে দাঁড়ায়। এবং এই কাগজের শক্তিই জনসমর্থনের শক্তি। সেই জায়গাটিতে নতুন সাংবাদিক যারা আছেন, তারা তৈরি হচ্ছেন। হ্যাঁ-এই সমাজকে (সাংবাদিক) সবসময় সঠিক ফ্যাসিলিটি দিতে পারি না, আমরা যারা মিডিয়ার মালিক আছি। তবে সময় আসছে, আস্তে আস্তে আপনাদের দাবি প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে। সংবাদমাধ্যম অনেক শক্তিশালী হচ্ছে।

ডিআরইউ সভাপতি জামাল উদ্দীনের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদের সঞ্চালনায় এসময় কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY