পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মিটার রিডার ও ম্যাসেঞ্জারদের চাকরীচ্যুতির প্রতিবাদে ধর্মঘট পালিত

সেলিম হায়দার,তালা: পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মিটার রিডার ও ম্যাসেঞ্জারদের অবৈধভাবে ছাটাইকরনের বিরুদ্ধে,নতুন নিয়োগ স্থগিতকরণ,নবায়ন চালুকরণ ও চাকুরী নিয়মিত করার দাবীতে বুধবার তালা উপজেলার পাটকেলঘাটার সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সামনে সকাল ১০টা হতে বেলা ১টা পর্যন্ত মিটার রিডার ও ম্যাসেঞ্জার ঐক্য পরিষদ লীগ অবস্থান ধর্মঘট পালন করে। ধর্মঘট শেষে সংশিষ্ট অফিসে স্মারকলিপি দিতে গেলে কর্তপক্ষ সেটা গ্রহন করেননি।

স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, মিটার রিডারদের ২হাজার মিটারের রিডিং গ্রহন ও ম্যাসেঞ্জারদের ২ হাজার বিল বিতরনের কথা থাকলেও অতিরিক্ত কাজ হিসেবে নিয়মিত বকেয়া আদায়, সাবস্টেশন ডিউটি,ডে-নাইট অপারেশন,তথ্য সংগ্রহ,বিলিং শাখায় ফাইলের কাজসহ বিভিন্ন বিভাগে দাপ্তরিক কাজ করতে হয়। ২০১২ সালের ২০ ডিসেম্বর ১২৫৯২ নং সিদ্ধান্ত মোতাবেক উক্ত দুপদে একই অফিসে পর্যায়ক্রমে ৯বছর এবং পরবর্তীতে নিয়োগ পরীক্ষা ছাড়াই ৫৫ বছর পর্যন্ত চাকুরী করার সুযোগ ছিল। শুধু কর্মমূল্যায়ন সন্তোষজনক না হলে চাকুরীচ্যুত করার বিধান ছিল। কিন্তু শর্ত ছাড়াই চুক্তিভিত্তিক নবায়ন না করে চাকুরীচ্যুত করছেন। ইতিমধ্যে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ৪০জনসহ সারাদেশে প্রায় ৩হাজার মিটার রিডার ও ম্যাসেঞ্জারকে চাকরীচ্যুত করা হয়েছে এবং ১২ হাজার লোককে চাকরীচ্যুত করার প্রক্রিয়া চলছে। এটা অমানবিক উল্লেখ করে তারা আরো বলেন-পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে চাকরী করাকালীন সরকারী বা অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে চাকরীর বয়সসীমা শেষ হয়ে গেছে। তাই অন্য কোথাও চাকরীর সুযোগ নেই। অনেকে চাকরী হারিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন এবং অনেকে চাকরী হারানোর আশংকায় দিনাতিপাত করছেন। জীবনের মাঝপথে এসে এহেন জীবনে এসে ছেলেমেয়ের লেখাপড়া এবং জীবনযাপন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। অনতিবিলম্বে মিটার রিডার ও ম্যাসেঞ্জারদের চাকরী বহালের দাবীতে ৩ঘন্টা অবস্থান ধর্মঘট পালন শেষে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অফিসে স্মারকলিপি দিতে গেলে দায়িত্বরত কর্মকর্তা ডিজিএম (টেকনিক্যাল) গোবিন্দ আগরওয়াল জেনারেল ম্যানেজারের দোহাই দিয়ে গ্রহন করেননি।

তবে অবস্থান ধর্মঘট চলাকালে তালা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম ধর্মঘটস্থলে এসে দাবীর প্রতি সহমর্মিতা জানিয়ে বলেন- বর্তমান সরকার জনবান্ধব সরকার। জনগনের সুখে-দুঃখে সরকার সবসময় পাশে আছে এবং অদুর ভবিষ্যতেও থাকবে। আপনাদের যে চাওয়া পাওয়া সেটা বাস্তবায়ন করার জন্য সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ আছেন। তারাই বিষয়টি দেখছেন।

এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার রবীন্দ্রনাথ দাস অফিসে উপস্থিত না থাকার কারনে মোবাইলে তার সাথে কথা বলার চেষ্টা করেও তিনি মোবাইল রিসিভ করেননি।

এদিকে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির প্রায় ১৭০জন মিটার রিডার ও ম্যাসেঞ্জার অবস্থান ধর্মঘটে অংশগ্রহন করেন। এসময় বক্তব্য রাখেন- মিটার রিডার ও ম্যাসেঞ্জার কর্মচারী লীগের বিভাগীয় সহ সভাপতি আতিয়ার রহমান,মিটার রিডার আবুল বাসেত, আব্দুর রাজ্জাক,গৌরপদ সাহা,ভবানন্দ দাস,পলাশ বিশ্বাস, রবিউল ইসলাম ও ম্যাসেঞ্জা অসিতবরণ বিশ্বাস প্রমুখ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY