বাগেরহাটে কিশোরীকে স্টীমারে তুলে ধর্ষন

বাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ১৩ বছরের এক কিশোরীকে স্টীমারে তুলে দফায় দফায় ধর্ষনের ঘটনায় ৩দিন পরে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। ধর্ষিতার বড়ভাই বাদি হয়ে সোমবার রাত ১০টায় বারইখালী গ্রামের গনি মোল্লার ছেলে বাবু মোল্লা(২২) কে আসামি করে মামলাটি করেছেন। পুলিশ রাতেই কিশোরীর চিকিৎসার জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছে। শুক্রবার মোরেলগঞ্জ থেকে ঢাকাগামী স্টীমার বাঙ্গালীর একটি কেবিনে এ ধর্ষনের ঘটনা ঘটে।

মেয়েটির স্বীকারোক্তি ও মামলার বরাত দিয়ে থানার ওসি মো. রাশেদুল আলম জানান, মোরেলগঞ্জ পৌরসভা সদরের বারইখালী গ্রামের আব্দুল গনি মোল্লার ছেলে বাবু মোল্লা(২২) তার প্রতিবেশী কিশোরীকে ঢাকায় বোনের বাসায় ঝি এর কাজ দেওয়ার কথা বলে স্টীমারে করে রওয়ানা হয়। শুক্রবার স্টীমারে ওঠার কিছুক্ষন পরেই কেবিনে মেয়েটিকে ঝালমুড়ি ও জুসের সাথে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ধর্ষন করে। এতে মেয়েটি রক্তাক্ত আহত হয়। এর দু’দিন পরে ধর্ষক বাবু মোল্লা মেয়েটিকে মোরেলগঞ্জে তার পিতার বাসার সামনে রেখে পালিয়ে যায়।

মেয়েটির স্বজনেরা জানান, অজ্ঞান করে কয়েকদফা ধর্ষন করা হয়েছে। সে কারনে মেয়েটি গুরুতর অসুস্থ এবং স্বাভাবিকভাবে হাটাচলা করতে পারছেনা।

হতদরিদ্র পরিবারের ওই মেয়ের পিতা সত্তার হাওলাদার এই বিষয়ে থানায় অভিযোগ করতে চাইলেও প্রভাবশালী ধর্ষক ও তার স্বজনদের চাপে ব্যর্থ হন। মেয়েটির অসুস্থতার কারনে সোমবার প্রথমে তাকে মোরেলগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়া হলে হলে তারা বাগেরহাট সদর হাসপাতালে রেফার্ড করে। বাগেরহাটে গেলে ধর্ষনের ঘটনায় মামলা না হওয়ায় সেখান থেকে ফেরত দেওয়া হয়। এরপরে সোমবার রাত ১০টার দিকে মেয়েটিকে নিয়ে তার ভাই থানায় গিয়ে মামলা দায়ের করেন। থানা পুলিশ রাত ১২টার দিকে মেয়েটিকে বাগরেহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করায়। ধর্ষক বাবু মোল্লা পলাতক রয়েছে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY