রেকর্ড গড়ে নেপালকে হারাল টাইগ্রেসরা

ক্রীড়া ডেস্ক: প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে ডুবিয়েছিল বিবর্ণ ব্যাটিং প্রদর্শনী। পরের ম্যাচে থাইল্যান্ডের বিপক্ষেও সেটি ভয়ের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। তবে বোলারদের দাপটে সে যাত্রায় রক্ষা হওয়ার পর তৃতীয় ম্যাচে খোলস থেকে বেরিয়ে এসেছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। মঙ্গলবার নেপালের মেয়েদের বিপক্ষে নিজেদের ইতিহাসের সর্বোচ্চ সংগ্রহ ১৩৩ রান তুলেছে তারা। পরে চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহের পাশাপাশি আরেকটি বোলিং নৈপুণ্যের প্রদর্শনী দেখিয়ে ৯২ রানের বড় জয় তুলে নিয়েছে রুমানা আহমেদের দল। যেটি রানের দিক থেকে নিজেদের সর্বোচ্চ ব্যবধানের জয়ের ইতিহাসও।

থাইল্যান্ডে চলমান এশিয়া কাপ টি-টুয়েন্টিতে মঙ্গলবার শুরুতে ব্যাট করে নির্ধারিত ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৩৩ রান করে বাংলাদেশ নারী দল। সানজিদা ইসলাম ৩৫, নিগার সুলতানার ৩৯ রানে এই সংগ্রহ দাঁড় করায় লাল-সবুজের মেয়েরা। জবাবে ১৭.৩ ওভারে মাত্র ৪১ রানেই গুটিয়ে যায় নেপাল নারী দল। ফাহিমা খাতুন মাত্র ৮ রানে ৪ উইকেট নিয়ে দলকে বড় জয় এনে দিয়েছেন।

টি-টুয়েন্টির আন্তর্জাতিক ম্যাচে বাংলাদেশের মেয়েদের এর আগের সর্বোচ্চ সংগ্রহটি ছিল ৬ উইকেটে ১১৭! গত মার্চে ব্যাঙ্গালুরুতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এই সংগ্রহ গড়েছিল লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। নেপালের বিপক্ষে নিজেদের সেই ইতিহাসই ছাড়িয়ে গেলেন সানজিদা-রুমানারা।

সঙ্গে এদিনের জয়ের ব্যবধানটিও নিজেদের ইতিহাসের সেরা। এর আগে রানের ব্যবধানে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ জয়টি ছিল ১৭ রানের! সিলেটে আয়ারল্যান্ড নারী দলের বিপক্ষে জয়টি পেয়েছিল তারা। ২০১৪ সালের এপ্রিলে মেয়েদের আইসিসি টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের প্লে-অফের ম্যাচে শুরুতে ব্যাট করে ৭ উইকেটে ১০৬ রান তোলার পর আইরিশদের ৮৯ রানে গুটিয়ে দিয়েছিলেন বাংলাদেশের মেয়েরা।

ব্যাংককে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ফিফটি পেরোনো উদ্বোধনী জুটি পায় বাংলাদেশ। সানজিদা ও নিগার এসময় ৭১ রান যোগ করেন ১১.৩ ওভারে। ৫ চারে ৪০ বলে ৩৫ রানে সানজিদার বিদায়ে ভাঙ্গে এই জুটি। এরপর ৪ রানে ফিরে যান আয়েশা রহমান। দ্রুত তাকে অনুসরণ করেন নিগার। সাজঘরে ফেরার আগে ১ চারে ৪১ বলে ৩৯ রান করেছেন এই উদ্বোধনী।

মাঝে শায়লা শারমিন ২ চারে ১৭ বলে ১৯ রানে ফিরলে শেষ দিকে দ্রুত কিছু রান তোলেন রুমানা ও ফাহিমা খাতুন। রুমানার ৯ বলে ১৭ ও ফাহিমা ৬ বলে ৮ রানে অপরাজিত থেকে নিজেদের ইতিহাস গড়া সংগ্রহ এনে দেন।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে এরপর বাংলাদেশের বোলিং তোপে ২১ রানেই ৫ ব্যাটসওম্যানকে হারিয়ে বসে নেপাল। জয়তি পাণ্ডে (১), রানা মাগার (১৫), নারাই থাপা (০), নিরা রাজোপাধ্যায় (২) ও বোহরা রোশানি (০) রানে ফিরে গেলে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি নেপালিজরা।

ফাহিমার রুদ্রমূর্তির সঙ্গে বাংলাদেশের বাকি বোলাররা যোগ দিলে শেষ পর্যন্ত ৪১ রানে থেমে যায় নেপালের ইনিংস। রুবিনা ছেত্রি (৭), ইন্দু বার্মার ৯ রানে শেষদিকে কিছুটা ব্যবধান কমিয়েছে নেপালের মেয়েরা।

বাংলাদেশের হয়ে ফাহিমা খাতুন দিনের সেরা বোলার। ৪ ওভারে এক মেডেনসহ মাত্র ৮ রান খরচায় ৪ উইকেট তুলে নিয়েছেন এই লেগস্পিনার। নাহিদা আক্তার নিয়েছেন ২ রানে ২ উইকেট। এছাড়া সুরাইয়া, রুমানা, ঝর্ণা ও পান্না একটি করে উইকেট তুলে নিয়ে দলের বড় জয়ে অবদান রেখেছেন।

মঙ্গলবারের জয়ে ৩ ম্যাচে ২ সাফল্যে ভর করে ৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুইয়ে উঠে এসেছে বাংলাদেশ নারী দল। সমান ম্যাচে ৩ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে ভারতের মেয়েরা শীর্ষে। আর বাংলাদেশের সমান ৪ পয়েন্ট নিয়ে রানরেটে পিছিয়ে থেকে পাকিস্তানের মেয়েরা থাকছে টেবিলের তিনে। এবারের নারী এশিয়া কাপে অংশ নিচ্ছে মোট ছয়টি দল।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY