শুক্রবার 14 ডিসেম্বর 2018 - ৩০, অগ্রাহায়ণ, ১৪২৫

একজন অরিত্রি এবং আমরা

০৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৯:৪৮:৩০

কাজী রাহনুমা নূর : আমাদের দেশে কোন পেশার মানুষ গুলো খুব মিষ্টি ভাষী ? যে মানুষটা ঘরে ভেজা বেড়াল হয়ে থাকে সেও অফিসে চেয়ারের গরমে রুদ্র রুপ ধারণ করেন।

আমার সেকেন্ড প্রেগন্যান্সির সময় দেশে বেড়াতে গিয়েছিলাম। এক মহিলা ডাক্তারের কাছে গেছি। আমার মামা একজন সিনিয়র ডাক্তার তাই আমাকে কোন কিউতে থাকতে হল না। 
রুমে ঢুকলাম। মহিলা ডাক্তার তখন পর্দা দিয়ে ঘেরা জায়গাটায় এক গর্ভবতী মহিলা কে দেখছেন। কিন্তু তাঁর ঝাঁঝাল কন্ঠ ভেসে আসছে এপারে।
ডাক্তার - বাচ্চা কবে থেকে নড়ে না?
রোগীর স্বামী- সকাল থেইকে
ডাক্তার - তো এতক্ষণে আনছ কেন?
রোগীর স্বামী - আপা আসছি অনেক ক্ষণ হইছে বাইরে বইয়া ছিলাম।
ডাক্তার- কই বাচ্চার তো হার্টবিট নাই। মনে হয় মরে গেছে।
মহিলা- কেঁদে দিলেন। স্বামী আকুল হয়ে বলল ডাক্তার সাব আমার আগের বাচ্চাটাও মরি গেল
ডাক্তার - মরবে না? আমি বলছিলাম সিজার করতে তোমরা কাবিল হয়ে জোর করি নর্মাল ডেলিভারি করতে গেছ। 
এখন শোন বাচ্চা এখন নড়ছে মনে হইল। ওরে কাল সকালেই আমার ক্লিনিকে নিয়ে আসবা। সিজার হবে। আমি আসা পর্জন্ত অপেক্ষা করবা।
পোশাকে আশাকে দরিদ্র মানুষ দুজন রুম থেকে বের হয়ে গেল।

আর আমি চেয়ারে বসে জ্বলছিলাম,এ কি ধরনের ডাক্তার? ডাক্তারের কন্ঠ কেন জল্লাদের মতন হবে। একজন গর্ভবতী মহিলার এ সময়টা কেমন যায় সে মহিলা হিসেবে ও তো বোঝা উচিত। ডাক্তার ভদ্রমহিলা আমার সামনে যখন বসলেন তখন উনার কন্ঠ নরম। তার মানে তাঁর কন্ঠস্বরে কোন সমস্যা নাই, চাইলেই তিনি নরম কন্ঠে কথা বলতে পারেন। আমার সবকিছু শুনে উনি বললেন আপনি এত কিছু কি করে জানেন। বললাম লন্ডনের ডাক্তার আমাকে আমার সমস্যা গুলো বুঝিয়ে বলেছে। উনি মুখ কাল করে বললেন ওরা আবার বেশি বেশি করে। রোগীর সব জানতে হয় না।

ভিকারুন নুন নিসা স্কুলের শিক্ষক রা কেমন আমার জানা নেই কিন্তু আমাদের দেশে সব পেশার মানুষরাই কাজে ঢোকার সময় রুপকথার রাক্ষসের একটা মুখোশ পড়ে নেন। (তবে আল্লার কাছে শুকরিয়া সব মানুষ এক রকম নন। এদের মধ্যে লুকিয়ে থাকে কিছু সত্যিকারের ভালো মানুষ, শিক্ষক, ডাক্তার, কেরানী যাদের কারণে আমরা আশাহত হয়েও সামনে টিম টিমে আলো দেখতে পাই)

বাচ্চা মেয়ে অরিত্রির সামনে তার বাবা মা লাঞ্চিত হয়েছে বলে অরিত্রি আত্মহত্যা করেছে। তাই কি?

অরিত্রির মা বাবা যখন অরিত্রি কে নিয়ে ঘরে ফিরছিল তখন কি কিছুই ঘটেনি?

আপনার কি মনে হয় তার বাবা মা ঘরে ফিরে অরিত্রি কে বুকে টেনে বলেছে ' মা যা হয়ে গেছে হয়েছে। আর কখন এমন করো না। তুমি চাইলে তোমাকে আমি অন্য স্কুলে ভর্তি করে দিব। দেশে কি শুধু একটা স্কুল। চল আজকে আমরা সবাই মিলে বাইরে খেয়ে আসি।"

এমন কিছু কি বলেছেন তার বাবা মা? যদি এভাবে মেয়েটাকে বোঝাতেন আমি নিশ্চিত গলায় ফাঁস লাগানোর আগে অরিত্রির হাত কাঁপত। সে ভাবত যাক আমার বাবা মা তো আমার পাশে আছেন। আমি ভালো রেজাল্ট করে বাবা মাকে একদিন সুখী করব।

আমরা বাবা মা রাও এক একটা পোস্ট দখল করে আছি। যেখানে আমরাই বস। বাচ্চাগুলো হল আমাদের অধীনে থাকা পুতুল। ওরা কবে কি করবে সব আমাদের নিয়ন্ত্রণে। পান থেকে চুন খসলেই ঠাস, তুই বংশের কলংক, কেন তোর মতন বাচ্চা পেটে ধরেছিলাম, মরে যাস না কেন? এ টাইপ ডায়লগ। আমরা পদে পদে আমাদের বাচ্চাদের ইমোশনালি এবিউজ করি, ইমোশনালি ব্ল্যাক মেইল করি-' ও তুমি এটা করবা না বা খাবা না, তারমানে তুমি আম্মুকে ভালোবাসো না।'

সোনা বাচ্চা গুলো, যাদের অভিভাবক, রক্ষা কবচ আর শান্তির আশ্রয় হবার কথা নিজের বাসা আর তাদের বাবা- মা, সে বাচ্চারা কিশোর কিশোরী হয়ে উঠতেই বাবা মা কে তাদের প্রতিপক্ষ ভেবে নেয়। বাচ্চারা ভাবে

"বাবা- মা হলেন তারা যারা সন্তানের দূর্বলতা বা ভালোবাসা কে ব্যবহার করে তার ভালো রেজাল্ট আর অর্জন গুলো দিয়ে সমাজে বাহবা কুড়ান "। 
অসম্ভব কড়া শাসনে বড় হওয়া বাচ্চারা তাই ভাবে।

ওরা কখন ভাবতে যায় না, মা বাবা আমার ভালোর জন্য সব করছে, কারণ তাদের আমরাই, আমাদের কথা আর আচরণ দিয়ে উল্টোটা ভাবতে বাধ্য করি ।
বাচ্চারা একটা সময়ে ভাবে-' আমার বাবা মা যদি আমায় ভালোই বাসত তবে তো আমার মতামতের মূল্য দিত। কথায় কথায় এর ওর উদাহরণ দিয়ে আমায় খাটো করত না। '
দশ মাস পেটে ধরে নানান কষ্ট সয়ে সন্তান কে জন্ম দিই, খেয়ে না খেয়ে, নিজের সব সুখ তুচ্ছ করে আস্তে আস্তে বড় করি কিন্তু নিজের অজান্তেই ওদের দাবার গুটি বানিয়ে নানান সামাজিক প্রতিজোগীতায় জয়ী হবার জন্য ওদের পেছনে উঠে পড়ে লাগি। আমরা কজন আমাদের বাচ্চাদের কথা শুনি? তাকে বোঝার চেষ্টা করি?

অরিত্রির মৃত্যু থেকে শেখার আছে অনেক কিছু। একজন শিক্ষক যখন শিক্ষার্থীদের বাবা মায়ের সাথে খারাপ আচরণ করেন তখন সে শিক্ষক তার শিক্ষার্থী দের কি আচরণ শিক্ষা দিচ্ছেন? একজন বাবা মা যখন অপমানিত হন তার সন্তানের কারণে, সে সন্তান ও ভেতরে ভেতরে জ্বলতে থাকে তার দহন আমরা কজন দেখি। কজন সে ঘাতে আদরের মলম লাগাই? জাতিগত ভাবে আমরা কঠোর প্রকৃতির।লেখাপড়া শিখে ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার হবার চেয়েও আমাদের মন টাকে একজন সত্যিকারের মানুষ করে তোলা অনেক বেশি প্রয়োজন।
 



এ সম্পর্কিত খবর

হবিগঞ্জের বানিয়াচং দু’পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত

হবিগঞ্জের বানিয়াচং দু’পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত

মঈনুল হাসান রতন হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলায় বিল দখল নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে মতিউর রহমান

ছাতক-দোয়ারার বিজয় দিয়ে দেশে ধানের শীষের বিজয় সূচীত হবে-মিজান চৌধুরী

ছাতক-দোয়ারার বিজয় দিয়ে দেশে ধানের শীষের বিজয় সূচীত হবে-মিজান চৌধুরী

ছাতক প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জ-৫ আসনে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী মিজানুর রহমান চৌধুরী ছাতকের সিংচাপইড় ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায়

সুনামগঞ্জ-৫ আসনে চলছে জমজমাট প্রচার প্রচারণা : মাঠে লড়াই হবে নৌকা-ধানের শীষের

সুনামগঞ্জ-৫ আসনে চলছে জমজমাট প্রচার প্রচারণা : মাঠে লড়াই হবে নৌকা-ধানের শীষের

হেলাল আহমদ, ছাতকঃ ছাতক-দোয়ারা বাজার উপজেলা নিয়ে গঠিত সুনামগঞ্জ-৫ সংসদীয় আসনে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ


নির্বাচনে তিন স্তরের নিরাপত্তা, ২৪ ডিসেম্বর সেনা মোতায়েন

নির্বাচনে তিন স্তরের নিরাপত্তা, ২৪ ডিসেম্বর সেনা মোতায়েন

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিতে

বড়দিনের এপেটাইজার ‘সান্তা ডেভিল এগ’

বড়দিনের এপেটাইজার ‘সান্তা ডেভিল এগ’

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: বড়দিনে অতিথি এলে একটু ভিন্ন কিছু খাওয়াতে না পারলে যেন গৃহিণীর কিছুতেই

প্রমাণ হয়েছে অবৈধ জনপ্রতিনিধি দিয়ে উন্নয়ন সম্ভব নয়: মিজানুর রহমান 

প্রমাণ হয়েছে অবৈধ জনপ্রতিনিধি দিয়ে উন্নয়ন সম্ভব নয়: মিজানুর রহমান 

ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি: বিএনপি ও ২০ দলীয় জোট এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক-দোয়ারাবাজার) আসনের সংসদ


এন টি ভি কিউ এফ সিষ্টেমের উপর ইমপ্লোয়ার্স কনফারেন্স অনুষ্ঠিত

এন টি ভি কিউ এফ সিষ্টেমের উপর ইমপ্লোয়ার্স কনফারেন্স অনুষ্ঠিত

রাশেদ রোকনঃ ন্যাশনাল টেকনিক্যাল এন্ড ভোকেশনাল কোয়ালিফিকেশন ফ্রেমওয়ার্ক ( এন টি ভি কিউ এফ )

৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন জাতির অস্তিত্বের প্রশ্ন: শেখ হাসিনা

৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন জাতির অস্তিত্বের প্রশ্ন: শেখ হাসিনা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনকে জাতির অস্তিত্বের প্রশ্ন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘৩০

নিরাপদ ও শান্তির বাংলাদেশ গড়তে আবারও নৌকায় ভোট দিন: এনামুল হক শামীম

নিরাপদ ও শান্তির বাংলাদেশ গড়তে আবারও নৌকায় ভোট দিন: এনামুল হক শামীম

শরীয়তপুর প্রতিনিধি: শরীয়তপুর-২ (নড়িয়া-সখিপুর) আসনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থীও আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম



আরো সংবাদ

হত্যাকারী কে? স্কুল না আমাদের শখ

হত্যাকারী কে? স্কুল না আমাদের শখ

০৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১০:৩৫

গোরাবা ফান্ড কেটে পঙ্খীরাজে উড়া

গোরাবা ফান্ড কেটে পঙ্খীরাজে উড়া

০৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৯:০৪


আম্মার চোখে আমরা আগন্তকের মত

আম্মার চোখে আমরা আগন্তকের মত

২৪ নভেম্বর, ২০১৮ ১৩:১১

আম্মার চোখে আমরা আগন্তকের মত

আম্মার চোখে আমরা আগন্তকের মত

২৪ নভেম্বর, ২০১৮ ১৩:১১

তারা কি সাক্ষীগোপাল হয়েই থাকবে?

তারা কি সাক্ষীগোপাল হয়েই থাকবে?

২৪ নভেম্বর, ২০১৮ ১২:৫০

এরশাদের জায়গায় বি চৌধুরী

এরশাদের জায়গায় বি চৌধুরী

২২ নভেম্বর, ২০১৮ ১২:৩৫

প্রিয় ঢাকা নগরীর কিছু খণ্ডচিত্র

প্রিয় ঢাকা নগরীর কিছু খণ্ডচিত্র

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ১৪:৪০

‘আমি কোন কূল হতে কোন কূলে যাব…’

‘আমি কোন কূল হতে কোন কূলে যাব…’

১৭ নভেম্বর, ২০১৮ ১৪:৫৫



নিউ ইয়র্কে নির্বাচন

নিউ ইয়র্কে নির্বাচন

১০ নভেম্বর, ২০১৮ ১৩:০৪


ব্রেকিং নিউজ