ব্যবসায়ীদের বাধায় পিছু হটল ডিএসসিসি


এওয়ান নিউজ: পুরান ঢাকার বকশীবাজারে অনুমোদনহীন রাসায়নিক গুদাম উচ্ছেদ অভিযানে গিয়ে ব্যবসায়ীদের বাধার মুখে পড়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন একটি টিম।

পূর্বঘোষিত সময় অনুযায়ী শনিবার (২ মার্চ) ঢাকা সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে একটি দল বকশীবাজারে অভিযানে যায়। অভিযান পরিচালনাকারী টিম এ সময় বেশকয়েকটি রাসায়নিকের গুদাম চিহ্নিত করে ভবনগুলোয় গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার উদ্যোগ নেয়। কিন্তু এতে বাধা দেয় স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। শেষমেষ ব্যবসায়ীদের বাধার মুখে অভিযান স্থগিত রাখা হয়।

এর কিছুক্ষণ পর অভিযানের বিষয়ে নগরভবনে সংবাদ সম্মেলন করেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন।ব্যবসায়ীদের বাধা দেওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের একটি টিম আজ সকালে বকশীবাজারে গিয়েছিল। কিন্তু এক শ্রেণির ব্যবসায়ী অভিযানে বাধা দিয়েছে। রাসায়নিকের মজুদ আছে বা অবৈধ গুদাম আছে এরকম ভবন-স্থাপনা চিহ্নিত করে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে শুরু করি। ঝুঁকি এড়াতে ভবনগুলোর গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার উদ্যোগ নিই। কিন্তু ব্যবসায়ীরা আমাদের সহযোগিতা করেনি।’

‘আমরা গুদাম সরানোর জন্য সময় দিয়েছি। তাদের সঙ্গে কথাবার্তাও বলেছি। কিন্তু ব্যবসায়ীরা কথা শোনেননি। তাই আমাদের টিম ফিরে এসেছে’ বলেন মেয়র। মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, ‘দাপ্তরিক কাজ শেষে আমি দুপুর ২টার পর ওই এলাকায় যাব। আবারও অভিযান চালানো হবে। যতই বাধা আসুক না কেন, কোনো বাধা মানা হবে না। অভিযান চলবে।’

‘ব্যবসায়ীদের অভিযোগ সময় না দিয়েই, তাদের সঙ্গে কোনো আলাপ-আলোচনা না করেই অভিযান চালানো হচ্ছে’ সাংবাদিকরা জানতে চাইলে মেয়র বলেন, ‘ব্যবসায়ীদের অনেক সময় দেওয়া হয়েছে। বারবার তাগাদা দেওয়া হয়েছে। চকবাজারে আগুন লাগার ঘটনার পরও তাদের সতর্ক করা হয়েছে। এখন ব্যবসায়ীরা যদি অভিযোগ তোলে তাহলে সেটি মিথ্যা।’

উল্লেখ্য, ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে রাজধানীর চকবাজারের চূড়িহাট্টায় আগুন লাগে। আগুনে এ পর্যন্ত ৭১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আগুনে দগ্ধ ও আহত বেশ কয়েকজন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি রয়েছেন।

চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডের পর পুরান ঢাকায় রাসায়নিক গুদাম অপসারণের জন্য অভিযানে নামে বিশেষ টাস্কফোর্স। সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে টাস্কফোর্সের এই অভিযান চালানো হচ্ছে।


footer logo

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের  কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।