সোমবার 20 মে 2019 - ৬, জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬

জিবন থেকে নেয়া

"খাঁটি হুজুর ও ভেজাল হুজুর"

১০ মার্চ, ২০১৯ ১২:২৩:৩৬

আমার মেয়েকে আরবী শিক্ষা দেয়ার জন্য একজন হুজুর ঠিক করেছিলাম।হুজুর ধর্মীয় বিভিন্ন আচার অনুষ্ঠানে পরিচালনা করতেন। উনি থাকেন জামাইকা হিল সাইড।বিভিন্ন বাসায় গিয়ে বাচ্চাদেরকে আরবী শিক্ষা দেন এই হুজুর।আমার ছেলে বাংলাদেশে ক্লাস ফোর পর্যন্ত পড়াশুনা করার পর আমার সাথে আমেরিকা চলে এসেছে।বাংলাদেশে একজন বয়স্ক হুজুরের কাছে ছেলে আরবী শিক্ষা গ্রহণ করেছে।বাংলাদেশেই সে পবিত্র কোরআন শরীফ খতম দিয়েছিল।একই হুজুর আমার অন্য ভাইবোনদের ছেলেমেয়েদেরও আরবী পড়িয়েছেন, বলা বাহুল্য এখনো পড়িয়ে যাচ্ছেন।আমেরিকা আসার পর আমার ছেলেকে দেখতাম প্রায়ই হুজুরকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করতে।দেশে আত্মীয়দের কাছে ফোন করলে খবর পেতাম, হুজুরও আমার ছেলের খোঁজ খবর জিজ্ঞাসা করেছেন।আসলে আমিও হুজুরকে পিতৃভক্তি করতাম।বিকেলে যখন বাসায় ছেলেকে পড়াতে আসতেন, চা নাশতা দিতাম।অসম্ভব বিনয়ী হুজুর লাজুকভাবে চা নাশতা খেতেন।আমেরিকায় আসার পর আমার ছেলে হুজুরের সাথে একদিন গল্প জুড়ে দিল।সে কেমন স্কুলে পড়ছে, কেমন রেজাল্ট করছে, ইত্যাদি।হুজুর তাকে পরামর্শ দিলেন, যে অবস্থাতেই হোক আরবী যেন প্রাকটিস করে। নাহলে ভুলে যাবে।আরবী পড়তে না জানা সেটা এক কথা।কিন্তু পড়তে শিখে ভুলে যাওয়াটা মারাত্মক গুনাহ।

একদিন আমার ছেলে হুজুরকে খুব অনুরোধ করল, সে হুজুরের জন্য একটা গিফট পাঠাতে চায়।কিন্তু কি গিফট করবে, সেটা যেন হুজুর বলে দেন।কিন্তু লাজুক হুজুর মোটেও কিছু বলছিলেন না।তিনি কেবল বলে যাচ্ছিলেন, "পিয়াল তুমি অনেক বড় হও।মানুষের মত মানুষ হও। আমি তোমার জন্য দোয়া করি........।" কিন্তু উনার ছাত্র নাছোড়বান্দা।আমাকে মধ্যস্ততা করতে হল।বললাম, "হুজুর, আপনি একটা কিছু বলেন।নাহলে আপনার ছাত্র শান্ত হবেনা। হুজুর লাজুক কণ্ঠে নোকিয়া সেটের কথা বললেন।তখন নোকিয়ার বাজার সেরা। নোকিয়া ছাড়া তিনি অন্য কোন সেটে অভ্যস্ত নন।উনার জন্য একটা নোকিয়া সেট পাঠিয়ে দেয়া হল।আমার মনে প্রশান্তি এলো শিক্ষকের প্রতি ছাত্রের পরম ভক্তি দেখে।

 

ফিরে আসি মার্কিন মুল্লুকের হুজুর প্রসঙ্গে।এখানের প্রায় সব বাড়িঘরের কিচেন ডাইনিং একসাথে।সপ্তাহে একদিন একদিন হুজুর পড়াতে আসতেন।আমার মেয়ের সাথে আমার ভাইয়ের ছেলে আরবী পড়ত।প্রথম দিনের সাক্ষাতে লোকটাকে আমার কাছে খুব ফাজিল টাইপের মনে হল।আমি নিরব পর্যবেক্ষকের ভূমিকা নিলাম।প্রথম দিন লোকটাকে ফাজিল মনে হওয়ার উপর ভিত্তি করে কোন নতিজায় যাওয়া বুদ্ধির কথা নয়।আমার মনে হওয়ার মধ্যেও ভুল থাকতে পারে।তাই আমার ভেতরের উৎসুক মূর্তিটাকে "চুপ চুপ একদম চুপ"--করে থামিয়ে দিলাম।পরের সপ্তাহে রবিবারে হুজুর যথারীতি এলেন।আমি মাছ তরি তরকারি কাটাবাছা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়লাম।লক্ষ্য করলাম হুজুর আমার ভাইয়ের ছেলেকে ধমকিয়ে ধমকিয়ে পড়াচ্ছেন।বাচ্চাটা হরফের উচ্চারণে ভুল করেছে, ওমনি হুজুর ওকে মুখ জিহবা ঠোঁট দাঁতের সাহায্য নিয়ে অপ্রয়োজনে শাসন দেখাতে লাগলেন।আমি খুবই বিরক্তির এক্সপ্রেশন দিলাম।বললাম, আপনি ওকে (আমার ভাতিজা) আননেসেসারি ধমকাচ্ছেন কিসের জন্য? এভাবে পড়ান আপনি??আপনার কাছে তো বাচ্চা পড়ানো যাবেনা।" আমার তীর্যক কথায় হুজুর চুপসে গেলেন।এরইমধ্যে তিনি মোবাইলে ফেসবুক ব্যবহার অব্যাহত রেখেছেন।বাসায় ঢুকেই উনার মোবাইলে আমার বাসার ওয়াইফাই কানেক্ট করিয়ে নিলেন। আপত্তি করিনি, কারণ যোগাযোগের প্রয়োজন সবার আছে। উনি ব্যবহার করলে আমার ওয়াইফাই কমে যাবেনা।রান্নাঘরের কাজকর্ম করছিলাম, আর তীক্ষ্ণভাবে লক্ষ্য করছিলাম হুজুরের মোবাইলের স্ক্রিনে পর্ণ স্টার সানি লিয়নের ছবি আর ছবি।হুজুর সানি লিয়নের পেজ ভিজিট করছেন মনের আনন্দে।এই ঘটনার পর হুজুরকে বাসার ওয়াইফাই থেকে ডিসকানেক্ট করে দিলাম।পরের বার তিনি নিজের মোবাইল ডাটা ব্যবহারে বাধ্য হলেন। তৃতীয় দিন মেজাজ আর বাগে রাখা গেলনা।তিনি মোবাইলে পরপর দুই নারীর সাথে কথা বললেন।প্রথমে যার ফোন এলো বাক্যালাপে বোঝা গেল স্ত্রীর সাথে কথা বলছেন--- হেলো হেলো, কি ব্যাপার এত ফোন করতাছো ক্যান?দরকার হলে আমি ফোন দিমু নে। তুমি বাসার ফোন ধরলা ক্যান?ওইটা ইমার্জেন্সির জন্য বাসায় রাখছি।তোমার খেলা করার জন্য বাসায় ফোন রাখি নাই।আইজকা ঘরে কাম কাইজ নাই? তিনদিনের জন্য আটার রুটি বানায়া ফালাও।আসার সময় বাথরুমে প্রচুর দুর্গন্ধ দেইখা আসছি।রাইতে তোমার ছোটপোলা মনে হয় কার্পেটে মুতছে। কিলিন (ক্লিন) কইরা ফালাও।মুতের গন্ধ আমার সইয্য হয়না।স্ত্রীকে অবিরাম ধমকের মাধ্যমে কথাগুলো বলছিলেন হুজুর।

দশমিনিট পর মোবাইলে একটি রিং আসার সাথে সাথে হুজুরের পরিস্থিতি বদলে গেল ---- হেলো হইলদা পরী আমি জানতাম এক্ষনি তোমার ফোন আসব।কি করো?বাংলাদ্যাশের মানুষ ঘুমাইছে??তারা তো ঘুমায়না। রাইত জাইগা ইন্টারনেটে চুরি ডাকাতি করতাছে।আমি এখন স্টুডেন্টের বাসায় পড়াইতে আসছি।পড়াইয়া এখান থেইকা বাইর হইয়া ভিডিও কল দিবো।সুন্দর কইরা সাজুগুজু করবা।আগে যেই একাউন্ট নাম্বার পাঠাইছিলা সেটা কারেক্ট ছিল না। ভোটার আইডি কার্ডের নাম ও নাম্বার জলদি পাঠায়া দাও। বিকালে টাকা পাঠায়া দিবো।তুমি সকাল দশটার সময় স্পট ক্যাশ তুলতে পারবা।ডেইলি মারাত্মক পোজের ছবি তুইলা আমারে পাঠাতে হবে, রাজী??এইতো গুড গার্ল..... আমার হিরোইন.....!" আমি ডিটারমিন্ড হলাম, এই অসভ্য লোক আরবী শিক্ষা দেয়ার যোগ্যতা রাখেনা।



এ সম্পর্কিত খবর

খালেদা জিয়াকে আজীবন জেলে রাখার প্রতিজ্ঞা বাস্তবায়ন করছেন প্রধানমন্ত্রী: রিজভী

খালেদা জিয়াকে আজীবন জেলে রাখার প্রতিজ্ঞা বাস্তবায়ন করছেন প্রধানমন্ত্রী: রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয়

বিএনপি এখন ধার করা নেতৃত্ব দিয়ে চলছে: হাছান মাহমুদ

বিএনপি এখন ধার করা নেতৃত্ব দিয়ে চলছে: হাছান মাহমুদ

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিএনপি এখন ধার করা নেতৃত্ব দিয়ে চলছে বলে মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান

মির্জা ফখরুল সংসদে থাকলে বিরোধী দলের অবস্থা আরও শক্তিশালী হতো: কাদের

মির্জা ফখরুল সংসদে থাকলে বিরোধী দলের অবস্থা আরও শক্তিশালী হতো: কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জাতীয় সংসদে থাকলে বিরোধী দলের অবস্থা আরও


বানিয়াচংয়ে কৃষকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে জেলা প্রশাসকের ধান ক্রয়

বানিয়াচংয়ে কৃষকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে জেলা প্রশাসকের ধান ক্রয়

মঈনুল হাসান রতন হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ  বানিয়াচংয়ে প্রকৃত কৃষকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের কাছ থেকে ধান

হালুয়াঘাটে নিষিদ্ধ পলিথিনের সয়লাব

হালুয়াঘাটে নিষিদ্ধ পলিথিনের সয়লাব

সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী, হালুয়াঘাট প্রতিনিধি ঃ ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে নিষিদ্ধ পলিথিনের সয়লাব। ব্যবহারও অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে।

আমরা কোথায় আছি

আমরা কোথায় আছি

আমরা এমন একটি সময়ে এমন একটি সমাজে আছি, যেখানে এখন নিরাপদে বসবাস দুঃসাধ্য হয়ে উঠেছে।


হ্যাপী বিতর্কের পর যেভাবে বদলেছে রুবেলের ক্যারিয়ার

হ্যাপী বিতর্কের পর যেভাবে বদলেছে রুবেলের ক্যারিয়ার

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: ২০১৫ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের নায়ক ছিলেন রুবেল হোসেন।তাঁর ৫৩ রানে ৪ উইকেট বোলিং

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট: কতটা সুবিধা পাবে চ্যানেলগুলো?

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট: কতটা সুবিধা পাবে চ্যানেলগুলো?

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশের একমাত্র স্যাটেলাইট 'বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১' এর ব্যান্ডউইথ বিনামূল্যে ব্যবহার করার বিষয়ে স্যাটেলাইটের

সহকর্মীদের পুরস্কার বা বখশিশ প্রতিষ্ঠানের জন্য কতটা সুফল আনে?

সহকর্মীদের পুরস্কার বা বখশিশ প্রতিষ্ঠানের জন্য কতটা সুফল আনে?

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: "অফিসে কেউ যদি সত্যিই ভাল কিছু করে থাকে তাহলে আমরা তাকে সাধারণত



আরো সংবাদ

আমরা কোথায় আছি

আমরা কোথায় আছি

২০ মে, ২০১৯ ১২:৫১



পাকিস্তানি ভূত

পাকিস্তানি ভূত

০১ মে, ২০১৯ ১২:২১


প্রিয় নুসরাত

প্রিয় নুসরাত

২৭ এপ্রিল, ২০১৯ ১১:৫০

ব্যর্থ বিএনপির মিডিয়া উইং

ব্যর্থ বিএনপির মিডিয়া উইং

২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:১১

“সবই আছে, নেই শুধু নুসরাত”

“সবই আছে, নেই শুধু নুসরাত”

২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ১৪:২৩

আর কতো লাশ চায় রাজউক

আর কতো লাশ চায় রাজউক

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:৪৭

এ সংক্রামক ব্যাধিকে রুখতেই হবে

এ সংক্রামক ব্যাধিকে রুখতেই হবে

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১২:২০


বিএনপির অদৃশ্য আন্দোলন!

বিএনপির অদৃশ্য আন্দোলন!

০৯ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:২৬


ব্রেকিং নিউজ






আমরা কোথায় আছি

আমরা কোথায় আছি

২০ মে, ২০১৯ ১২:৫১