মঙ্গলবার 21 মে 2019 - ৭, জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬

 নিজের ঘর বাঁচলেই তবে পর

০৬ এপ্রিল, ২০১৯ ১৩:৪৩:০৫

আসিফ সোহান : কিছুদিন আগে রোহিঙ্গা কর্তৃক বিদেশী সাংবাদিকের ও এনজিও কর্মীদের গাড়ি ভাংচুর ও হামলা মারধর ঘটনা ঘটে। আজ  রোহিঙ্গাদের সাথে টেকনাফে পুলিশের বন্দুক যুদ্ধে ৪ জন নিহত হবার ঘটনা ভুল হয়ে গেছে এই অসভ্য রোহিঙ্গা গুলোকে বাংলাদেশে আশ্রয় দিয়ে। 

আমিও তাদের একজন যারা মিয়েনমারে সেনাবাহিনী কর্তৃক রোহিঙ্গা নির্যাতনের চিত্র দেখে আওয়াজ তুলেছিলাম। লিখালিখি করেছিলাম সেই অন্যায় অবিচার নির্বিচারে হত্যা আর অত্যাচারের বিরুদ্ধে।
কলাম লিখেছিলাম বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের প্রথম দিকে প্রবেশাধিকার না দেওয়াতে। 
কিন্তু রহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশের ঢল আর তাদের ডরভয় হীন উশৃঙ্খল গেরিলা জীবন ব্যাবস্থা দেখে অনেক আগেই উপলব্ধি বদলে গেছে। 

কখনো কখনো মানবিক অনুভূতি আর মাতৃভূমি দুটোর যে কোন একটিকে বেছে নেবার নহোবত এলে, মাতৃভুমিই অগ্রাধিকারে আসে। মিয়েনমার সেনাবাহিনীর ক্ষেত্রে হয়তো বা করপোরেট বানিজ্য  ভূরাজনীতির পাশাপাশি সেটিও আরেকটি এলিমেন্ট হিসেবে কাজ করেছে। 
টেকনাফে বসবাসরত আমাদের বাংলাদেশী ভাই-বোনরা ও স্থানীয় প্রশাষন হাড়ে হাড়ে টের পেতে শুরু করেছে কী মস্ত বড়ো ভুল আমরা করে ফেলেছি ইমোশনকে প্রাধান্য দিতে যেয়ে। 
এমনটা চলতে থাকলে হয়তোবা মিয়ানমারের মত বাংলাদেশেও একটা প্রেক্ষাপট তৈরী হতে বাধ্য, সবার কাছেই নিজ পরিবার স্ত্রী সন্তান বাবা - মা ভাই বোন নিজের জীবনের চাইতেও প্রিয়।
তাদের জীবন যাত্রা যখন হুমকির মুখে পড়বে এসকল
 রোহিঙ্গাদের কারনে ঠিক তখনই দানা বাধবে আরেকটি রক্তক্ষয়ী অধ্যায়ের সূচনা।
যেটি ঘটেছিল মিয়ানমারের ক্ষেত্রে। নারকীয় ঐ হত্যাযজ্ঞে সেনাবাহিনীর সাথে সামিল হয়েছিল মিয়ানমারের সিভিলিয়ানরাও। 
মিয়ানমারের যে রকম রহিঙ্গাদের সমর্থনে তথাকথিত  দাবি আদায়ে নামে সৃ‌ষ্টি হয়েছিল ARF এর মত সন্ত্রাসী সংগঠন। বাংলাদেশেও যে তেমনটা ঘটবে সেটির কী কোন গ্যারান্টি আছে?
কাজেই বাংলাদেশের সামনে এই রোহিঙ্গা সম্প্রদায় মস্তবড়ো এক মাথা ব্যাথায় কারন হয়ে দেখা দিতে পারে।
সুতরাং তীক্ষ্ন দৃষ্টি দেবার সময় এসেছে যেসকল বিষয়ে- 

১। মাদকের বিস্তারে রোহিঙ্গা সংশ্লিষ্টতা পেলে শাস্তি মৃত্যুদন্ড। (দেরি না করে ফায়ারিং স্কোয়াডে গুলি করে মেরে ৫ মিনিটের মধ্যে লাশ গায়েব করে ফেলতে হবে যেন কেউ জানতে না পারে। নতুবা এই আমরা সাংবাদিকরাই আবার সরকারের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘ্যানাপ্যাচাল শুরু করে দেব।এটা করলে রোহিঙ্গারা একটা ম্যাসেজ পাবে যে এখানেও মিয়ানমারের মত ঘটনা ঘটতে পারে।)

২। স্থানীয়দের ভূমি জমি দখল সহ কোন অপকর্ম করে ধরা পরলে। সোজা দেশ থেকে ঐ রোহিঙ্গার  পরিবার সকল সদস্যকে দেশ থেকে বের করে দিতে হবে। জিরো টলারেন্স নীতিতে। এটি না হলে স্থানীয় জনগনের মাঝে পারিবারিক  ইনসিকিউরিটির কারনে আইন নিজ হাতে তুলে নেওয়ার মত ঘটতে শুরু করবে। পরিনাম সবার জানা।

৩। কোন বিদ্রোহী সংগঠন গড়ে উঠছে কিনা সেদিকে সব সময় লক্ষ্য রাখা। 

৪। মাইনোরিটিরা সাইকোলজিক্যালী বংশ বৃদ্ধির দিকে ঝুঁকে থাকে। সংখ্যায় বেশি হলে শক্তিতে বেশি হবে, এমন ধারনার কারনে এক পরিবারের ১২ /১৪ টি বাচ্চা থাকে। বাংলাদেশে ১২ লাখ রহিঙ্গাদের প্রতিদিন গড়ে তিন হাজার বাচ্চা হচ্ছে।  এরকম চলতে থাকলে পরিনাম ভয়াবহ। কাজের রোহিঙ্গাদেরকে সরবরাহ করা খাবার ও পানিয়ের সাথে গর্ভরোধক ঔষদ মিশিয়ে দিতে হবে যাতে করে পুরুষ ও মহিলাদের ফার্টিলিটি ওষুধ সেবনের সময়ে বন্ধ থাকে। কারন এরা এখনও এতটাই বর্বর রয়ে গেছে যে কন্ডম বা ঔষদ দিতে আসা বিদেশী এনজিও কর্মীদের ধরে পিটিয়ে দিয়েছে এ গুলোকে পাপ মনে করে। এজন্য না জানিয়ে খাইয়ে দিতে হবে। সেটা করতে না পারলে উখিয়া, টেকনাফকে ওরা একদিন স্বাধীন করার চেষ্টায় যুদ্ধ শুরু করে দেবে।

সবশেষে বাংলাদেশের সকল মানুষের মাথায় এটা ঢুকিয়ে নিতে হবে যে রোহিঙ্গারা এদেশের নাগরিক না তাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তাদের ফেরত পাঠাতে হবে। সরকারেরই এই বিষয়ে কঠোর হতে হবে। 
নিজের ঘর বাঁচলেই তবে পর। 
এই বিষয়টিতে এখন আর বাহবা বা নোবেল কোনটাই পাওয়ার সুযোগ শেষ।   লেখক- সাংবাদিক



এ সম্পর্কিত খবর

লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি ধান কেনার সুপারিশ সংসদীয় কমিটির

লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি ধান কেনার সুপারিশ সংসদীয় কমিটির

এওয়ান নিউজ: নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে খাদ্য মন্ত্রণালয়কে বেশি ধান কেনার ব্যবস্থা করতে বলেছে সংসদীয় স্থায়ী

ধানের দাম নিয়ে বিভিন্ন মহলের সঙ্গে আলাপ আলোচনা হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী  

ধানের দাম নিয়ে বিভিন্ন মহলের সঙ্গে আলাপ আলোচনা হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী  

এওয়ান নিউজ:  সরকার কৃষকের পাশেই আছেে উল্লেখ করে কৃষিমন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, ধানের

টিকিট ছাড়া গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে না: সাঈদ খোকন

টিকিট ছাড়া গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে না: সাঈদ খোকন

এওয়ান নিউজ: রাজধানীতে টিকিট ছাড়া গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে না বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি


এবার ঈদে নীলফামারীতে ভিজিএফ চাল পাবেন ৪ লাখের অধিক মানুষ 

এবার ঈদে নীলফামারীতে ভিজিএফ চাল পাবেন ৪ লাখের অধিক মানুষ 

নীলফামারী প্রতিনিধি: পবিত্র ঈদ উল ফিতরে নীলফামারীর ৪ লাখ ৪ হাজার ৩১৫ জন অতিদরিদ্র মানুষ

নীলফামারীর ইট ভাটা গিলে খাচ্ছে আবাদী জমি: রাস্তাঘাটের বেহালদশা

নীলফামারীর ইট ভাটা গিলে খাচ্ছে আবাদী জমি: রাস্তাঘাটের বেহালদশা

নীলফামারী প্রতিনিধি: বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন ইটভাটা মালিকরা।কোন কিছুতেই থামানো যাচ্ছেনা তাদের দৌঁড়াত্ম। মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে

নিহত ৩০ হাজার চা শ্রমিকদের স্মরণে সিলেট ভ্যালী কার্যকরী পরিষদের শোক সভা 

নিহত ৩০ হাজার চা শ্রমিকদের স্মরণে সিলেট ভ্যালী কার্যকরী পরিষদের শোক সভা 

১৯২১ সালের ২০শে মে মুল্লুকে চল আন্দোলনে ব্রিটিশ গোর্খা বাহিনীর গুলিতে নিহত ৩০ হাজার চা


অসাধু ব্যবসায়ীরা বিষাক্ত কেমিক্যাল মিশিয়ে কৃত্রিম উপায়ে কলা পাকাচ্ছে

অসাধু ব্যবসায়ীরা বিষাক্ত কেমিক্যাল মিশিয়ে কৃত্রিম উপায়ে কলা পাকাচ্ছে

টি আই সানি গাজীপুরঃ কলা অনেকেরই প্রিয় ফল। পুষ্টিগুণেও অনন্য এই ফল। তবে ভোক্তার হাতে

সাধারন মানুষের খাদ্যের যোগান দিতে জমি থেকে ফসল কেটে আনছে কৃষক

সাধারন মানুষের খাদ্যের যোগান দিতে জমি থেকে ফসল কেটে আনছে কৃষক

সারওয়ার আলম মুকুল, কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি ঃ হরেক রকম পিঠা পায়েস রান্না হবে ঘরে, পাকা

চুনারুঘাটে ৭ দাবিতে চা শ্রমিকদের কর্মবিরতি

চুনারুঘাটে ৭ দাবিতে চা শ্রমিকদের কর্মবিরতি

মঈনুল হাসান রতন হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ ৪০০ টাকা মজুরী নির্ধারণ এবং ভূমি অধিকারসহ ৭ দফা দাবি



আরো সংবাদ

আমরা কোথায় আছি

আমরা কোথায় আছি

২০ মে, ২০১৯ ১২:৫১



পাকিস্তানি ভূত

পাকিস্তানি ভূত

০১ মে, ২০১৯ ১২:২১


প্রিয় নুসরাত

প্রিয় নুসরাত

২৭ এপ্রিল, ২০১৯ ১১:৫০

ব্যর্থ বিএনপির মিডিয়া উইং

ব্যর্থ বিএনপির মিডিয়া উইং

২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:১১

“সবই আছে, নেই শুধু নুসরাত”

“সবই আছে, নেই শুধু নুসরাত”

২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ১৪:২৩

আর কতো লাশ চায় রাজউক

আর কতো লাশ চায় রাজউক

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:৪৭

এ সংক্রামক ব্যাধিকে রুখতেই হবে

এ সংক্রামক ব্যাধিকে রুখতেই হবে

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১২:২০


বিএনপির অদৃশ্য আন্দোলন!

বিএনপির অদৃশ্য আন্দোলন!

০৯ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:২৬


ব্রেকিং নিউজ