মঙ্গলবার 21 মে 2019 - ৭, জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬

নোয়াখালীতে রোহিঙ্গা : ভ্রাম্যমান সংসার ও শঙ্কা

০৬ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:০৪:৩৬

আনোয়ার বারী পিন্টু : ‘ওই দ্বীপটি অনুন্নত উপকূলীয় বন্যাপ্রবণ দ্বীপ। ভাসানচরে পাঠানো হলে তাদের চলাফেরার স্বাধীনতা, জীবিকা, খাবার এবং শিক্ষার সুযোগ সবকিছু থেকেই তারা বঞ্চিত হবে। তা হবে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের বাধ্য-বাধকতা লক্সঘন’। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল, রয়টার্সের সরেজমিন প্রতিবেদন ও যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ) এর অভিন্ন ও সুস্পষ্ট মত এটি। 
‘সন্ত্রাসের শিকড় রোহিঙ্গা ক্যাম্প’ (কক্সবাজার) এখন নোয়াখালী জেলায় স্থানান্তর করা হলে এখানে সামাজিক এবং আইন-শৃঙ্খখলা পরিস্থিতির ব্যাপক অবনতি ঘটবে। অস্ত্র ও চোরা কারবারীর রাজত্ব কায়েম হবে। চরাঞ্চলে বিগত বছর গুলোতে বন ও জলদস্যুদের উৎপাতে স্থানীয় অধিবাসিরা এমনিতেই অতিষ্ট ছিল। সর্বদলীয়ভাবে দস্যুদের দমন করার পর চরাঞ্চলের পরিস্থিতি এখন কিছুটা স্নিগ্ধ হয়েছে। এর মধ্যে রোহিঙ্গাদের বসতি এখানে পুনরায় দাঙ্গা হাঙ্গামা সৃষ্টি হবে। নদীকেন্দ্রীক জলদস্যুতা  ইয়াবা ও অস্ত্রের নিরাপদ রুটে পরিণত হবে। এর সাথে যোগ হবে তাদের ভিক্ষাবৃত্তি, আদিম প্রবৃত্তি, মানবপাচার, ধর্ষন, হত্যা সবমিলিয়ে নোয়াখালীকে অনিরাপদ করে তুলবে, হুমকিতে পড়বে সার্বভৌমত্ব।  
রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্প নোয়াখালীতে হলে উপকূলীয় চরাঞ্চলে লক্ষধিক ভূমিহীন পরিবার ব্যপক ক্ষতির মুখোমুখি হবে। এখনো জেলার লক্ষধিক মানুষ নদীভাঙনের কবলে পড়ে খোলা আকাশের নিচে কিংবা বেড়িবাঁধের পাশে বসবাস করছে। তাদের পুনর্বাসন না করে রোহিঙ্গাদের স্থানান্তর নিষ্ঠুরতা ছাড়া কিছুই নয়। এছাড়া সূবর্ণচরে সরকারের অর্থনৈতিক অঞ্চল করার যে পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসন করলে তা ভেস্তে যাওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। একই সাথে উপকূলীয় চরাঞ্চলে নিধন হবে বন, হারাবে সম্পত্তি, ধংস হবে মৎস্য সম্পদ, হারিয়ে যাবে শষ্য ভান্ডারের নামটিও। বাধাগ্রস্থ হবে অর্থনৈতিক এরিয়া নির্মাণেন সকল প্রচেষ্টা। 
রোহিঙ্গা জীবনাচার অনুসন্ধানে দেখা যায়, সবাই নিম্নমানের জীবন চর্চা করে। তাদের অনেকেরই পেশা ভবঘুরে জীবিকা। অন্যরা কেউ রিক্সা চালায়, কেউ গাছের গুঁড়ি টানে, কেউ মাছ ধরে, কেউ জুতা সেলাইয়ের কাজ করে। এদের বিরুদ্ধে ধর্ষনের অভিযোগও বিস্তর। এদের ভিক্ষাবৃত্তিতে কক্সবাজার বর্তমানে হাপাঁচ্ছে। রোহিঙ্গারা জীবন চালাতে ক্যাম্পগুলোর আশপাশে সড়কের দু’পাশ ধরে জটলা বেঁধে ভিক্ষার আশায় বসে থাকছে। বিদেশী পর্যটক, মসজিদ, ছোট বড় শপিং মল সবখানেই এরা ভিক্ষার ঝুলি নিয়ে ঘুরছে। 
আরো বিষন্ন হওয়ার খবর হলো, ‘কক্সবাজারে রোহিঙ্গা নারীরা অবৈধ যৌন ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। অনেকে অভাবের তাড়নায় এ পেশাকে স্থায়ী হিসেবে বেছে নিয়েছে’। নতুন কোন স্থানে এদের পুনর্বাসন হলে নতুন করে সেই স্থানটিও আবার আক্রান্ত হবে। ফলে রোহিঙ্গাদের আদিমপ্রবৃত্তিতে কুপোকাত হবে নোয়াখালীর সভ্যতা, আগামী প্রজন্ম। ধ্বংশ হবে সামাজিক কাঠামো। জেলার সর্বত্র বহুগামিতার কবলে পড়বে। 
‘সবার উপরে মানুষ, কিংবা মানুষ মানুষের জন্য’ আমরাও তাই বিশ্বাস করি। মানুষকে ভালোবাসাই মানেই স্রষ্টাকে ভালোবাসা। তাদের প্রতি আমাদের গভীর মমত্ব আছে, অমূল্য এই রোহিঙ্গা প্রাণগুলো বাঁচানোই ভাসানচরে রোহিঙ্গা বসতির বিরোধীতার আরো একটি কারন। আমি পূর্বেই বলেছি, বিশ্বখ্যাত গণমাধ্যম রয়টার্সসহ বিভিন্ন সংস্থা রোহিঙ্গা পুর্নবাসন বন্ধের আহবান জানিয়ে তীব্র সমালোচনা ও বিরোধিতা করেছে। 
যারাই ভাসানচরে ঘুরে এসেছেন, তারাই জানিয়েছেন ভয়ের কথা। যখন নদী শান্ত থাকে, তখন জলদস্যুরা জেলেদের অপহরণের খোঁজে এখানে হানা দেয়। আদায় করে মুক্তিপণ। এই দ্বীপকে ঘিরে গড়ে উঠেছে অপরাধীদের স্বর্গরাজ্য।। তাছাড়া দ্বীপটি ভরা জোয়ারের সময় পানিতে তলিয়ে যায়। তখন দ্বীপটির সাথে যোগাযোগ সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন থাকে। জায়গাটি ঘূর্ণিঝড় ও বন্যাপ্রবণ। নিচু হওয়ায় চরটি বর্ষা মৌসুমে জোয়ারে প্লাবিত হয়। যাতায়াত ব্যবস্থাও নাজুক। জনশূন্য এলাকাটি কর্দমাক্ত ও গহীন বন। 
এতো সংকট, এতো সংশয়ের পরও সরকার সিদ্ধান্তে অটল, গোঁ ধরে বসে আছে অপরাধ কবলিত রোহিঙ্গাদের নোয়াখালীতে পুনর্বাসনের পক্ষে। বিশেষ করে আমরা যারা নোয়াখালীর বাসিন্ধা, বাস করি পরিবার নিয়ে। এক টুকরো স্বপ্ন দেখি নিজের প্রজন্ম নিয়ে। রাষ্ট্রের এই পক্ষ অবলম্বন আমাদের শংকিত করছে। এছাড়া রোহিঙ্গা প্রাণ রক্ষতেও তাদের এখানে ভ্রাম্যমান সংসার গড়া বন্ধের উদাত্ত আহবান জানাই। লেখক- সাংবাদিক।                       

ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                              



এ সম্পর্কিত খবর

লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি ধান কেনার সুপারিশ সংসদীয় কমিটির

লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি ধান কেনার সুপারিশ সংসদীয় কমিটির

এওয়ান নিউজ: নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে খাদ্য মন্ত্রণালয়কে বেশি ধান কেনার ব্যবস্থা করতে বলেছে সংসদীয় স্থায়ী

ধানের দাম নিয়ে বিভিন্ন মহলের সঙ্গে আলাপ আলোচনা হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী  

ধানের দাম নিয়ে বিভিন্ন মহলের সঙ্গে আলাপ আলোচনা হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী  

এওয়ান নিউজ:  সরকার কৃষকের পাশেই আছেে উল্লেখ করে কৃষিমন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, ধানের

টিকিট ছাড়া গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে না: সাঈদ খোকন

টিকিট ছাড়া গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে না: সাঈদ খোকন

এওয়ান নিউজ: রাজধানীতে টিকিট ছাড়া গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে না বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি


এবার ঈদে নীলফামারীতে ভিজিএফ চাল পাবেন ৪ লাখের অধিক মানুষ 

এবার ঈদে নীলফামারীতে ভিজিএফ চাল পাবেন ৪ লাখের অধিক মানুষ 

নীলফামারী প্রতিনিধি: পবিত্র ঈদ উল ফিতরে নীলফামারীর ৪ লাখ ৪ হাজার ৩১৫ জন অতিদরিদ্র মানুষ

নীলফামারীর ইট ভাটা গিলে খাচ্ছে আবাদী জমি: রাস্তাঘাটের বেহালদশা

নীলফামারীর ইট ভাটা গিলে খাচ্ছে আবাদী জমি: রাস্তাঘাটের বেহালদশা

নীলফামারী প্রতিনিধি: বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন ইটভাটা মালিকরা।কোন কিছুতেই থামানো যাচ্ছেনা তাদের দৌঁড়াত্ম। মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে

নিহত ৩০ হাজার চা শ্রমিকদের স্মরণে সিলেট ভ্যালী কার্যকরী পরিষদের শোক সভা 

নিহত ৩০ হাজার চা শ্রমিকদের স্মরণে সিলেট ভ্যালী কার্যকরী পরিষদের শোক সভা 

১৯২১ সালের ২০শে মে মুল্লুকে চল আন্দোলনে ব্রিটিশ গোর্খা বাহিনীর গুলিতে নিহত ৩০ হাজার চা


অসাধু ব্যবসায়ীরা বিষাক্ত কেমিক্যাল মিশিয়ে কৃত্রিম উপায়ে কলা পাকাচ্ছে

অসাধু ব্যবসায়ীরা বিষাক্ত কেমিক্যাল মিশিয়ে কৃত্রিম উপায়ে কলা পাকাচ্ছে

টি আই সানি গাজীপুরঃ কলা অনেকেরই প্রিয় ফল। পুষ্টিগুণেও অনন্য এই ফল। তবে ভোক্তার হাতে

শ্রীপুরের নতুন ইউএনও শেখ শামসুল আরেফীন  

শ্রীপুরের নতুন ইউএনও শেখ শামসুল আরেফীন  

টি.আই সানি গাজীপুরঃ গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার নতুন নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) পদে শেখ শামসুল আরেফীনকে পদায়ন

কলাপাড়ায় ইয়াবাসহ এক যুবক আটক 

কলাপাড়ায় ইয়াবাসহ এক যুবক আটক 

রাসেল কবির মুরাদ , কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি  ঃ  কলাপাড়ায় ৬২ পিচ ইয়াবাসহ সুমন প্যাদা (২৭) নামের এক



আরো সংবাদ

আমরা কোথায় আছি

আমরা কোথায় আছি

২০ মে, ২০১৯ ১২:৫১



পাকিস্তানি ভূত

পাকিস্তানি ভূত

০১ মে, ২০১৯ ১২:২১


প্রিয় নুসরাত

প্রিয় নুসরাত

২৭ এপ্রিল, ২০১৯ ১১:৫০

ব্যর্থ বিএনপির মিডিয়া উইং

ব্যর্থ বিএনপির মিডিয়া উইং

২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:১১

“সবই আছে, নেই শুধু নুসরাত”

“সবই আছে, নেই শুধু নুসরাত”

২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ১৪:২৩

আর কতো লাশ চায় রাজউক

আর কতো লাশ চায় রাজউক

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:৪৭

এ সংক্রামক ব্যাধিকে রুখতেই হবে

এ সংক্রামক ব্যাধিকে রুখতেই হবে

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১২:২০


বিএনপির অদৃশ্য আন্দোলন!

বিএনপির অদৃশ্য আন্দোলন!

০৯ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:২৬


ব্রেকিং নিউজ