রবিবার 21 অক্টোবর 2018 - ৫, কার্তিক, ১৪২৫

নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনই একমাত্র দাবি সুজনের

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৬:৩৮:৫৫

এওয়ান নিউজ: দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য জাতীয় সংসদ নির্বাচন করা সম্ভব নয় বলে অভিমত দিয়েছেন সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা।  তাই সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য একমাত্রা দাবি হওয়া উচিত নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন। তারা বলেছেন, সংসদ বহাল রেখে নিরপেক্ষ নির্বাচন করা সম্ভব নয়। এ ছাড়া সুষ্ঠু নির্বাচন করতে হলে সঠিক ভোটার তালিকা প্রণয়ন, সীমানা পুনর্নির্ধারণ ও নির্বাচনী ব্যয় কমানো, আমলাতন্ত্রের রাজনৈতিক প্রভাব দূর করার বিষয়েও মত দেন তারা। আগামী নির্বাচন গ্রহণযোগ্য করতে হলে সরকারের সদিচ্ছার পাশাপাশি নির্বাচন কমিশনের শক্তিশালী নিরপেক্ষ ভূমিকার প্রয়োজনীয়তাও তুলে ধরেন তারা। 

সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) আয়োজিত এক গোলটেবিল আলোচনায় শনিবার বক্তারা এসব কথা বলেন।  সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এম হাফিজউদ্দিন খানের সভাপতিত্বে ও সুজন সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদারের সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন আওয়ামী লীগ সরকারের সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী, সাবেক নির্বাচন কমিশনার এম সাখাওয়াত হোসেন, কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ, সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার প্রমুখ।

এম হাফিজউদ্দিন খান বলেন, পার্লামেন্ট বজায় রেখে নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়। ওই সময় সংসদ ভেঙে দিতে হবে। আর নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব হলো গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের আয়োজন করা। এর জন্য যা কিছু দরকার, নির্বাচন কমিশনকেই করতে হবে। 

আবুল হাসান চৌধুরী বলেন, শক্তিশালী গণতন্ত্র না থাকায় আজ মিয়ানমারে অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। বিপরীতে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত থাকায় ভারত প্রথমে মিয়ানমারের প্রতি সমর্থন দিলেও রোহিঙ্গা ইস্যুতে পরে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়িয়েছে। এই শক্তিশালী গণতন্ত্রের অন্যতম শর্ত, সব স্টেকহোল্ডারের সমান ও নিরপেক্ষ অংশগ্রহণ।

এম সাখাওয়াত হোসেন বলেন, নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য অবশ্যই সরকারের সদিচ্ছার প্রয়োজন। রাজনৈতিক সংস্কৃতির পরিবর্তন না হলে নির্বাচন কমিশনে যতই যোগ্য লোক বসানো হোক, নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে না। আমলাতন্ত্রের রাজনৈতিক প্রভাব দূর করতে হবে। 

সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, নির্বাচন কমিশনের কাজে অস্পষ্টতা দেখা যাচ্ছে। তাদের সামনে কী চ্যালেঞ্জ রয়েছে, তারা তা নির্ধারণ করতে পারেনি। 

তিনি বলেন, সবার অংশগ্রহণে সংসদ নির্বাচন আয়োজনে কী কী চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হবে, কমিশনকে তা অনুধাবন করতে হবে। 

আলী ইমাম মজুমদার বলেন, এ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনের মধ্যে ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০১ এবং ২০০৮-এর নির্বাচন মোটামুটি গ্রহণযোগ্য হিসেবে বিবেচিত হয়। এগুলো সব হয়েছে নির্দলীয় সরকারের অধীনে। তাই বর্তমান সাংবিধানিক কাঠামোতে বিতর্কমুক্ত নির্বাচন করতে হলে সরকারের ইতিবাচক মনোভাব থাকতে হবে। 

বদিউল আলম মজুমদার বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু না হলে দেশ ভয়াবহ বিপর্যয়ের সম্মুখীন হবে। নির্বাচন কমিশনকে সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন নিশ্চিত করতে হবে। 

মূল প্রবন্ধে দিলীপ কুমার সরকার বলেন, নির্বাচনী ব্যয়ের বৈধ সীমা ক্রমাগত বাড়ছে। বিগত কমিশন এ ব্যয়সীমা ১৫ লাখ থেকে ২৫ লাখ টাকা করেছে। এর ফলে সাধারণ নাগরিকদের ভোটাধিকার থাকলেও তারা প্রতিনিধি হওয়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। 

ভোটার তালিকা হালনাগাদে নারী-পুরুষ ব্যবধান বাড়ছে: ভোটার তালিকা হাল নাগাদে নারী-পুরুষ ব্যবধান বাড়ছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে পুরুষ ভোটারের তুলনায় নতুন নারী ভোটারের সংখ্যা কম। 

সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজনের তথ্যমতে, ২০০৭-০৮ সালে ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় পুরুষের তুলনায় ৩ দশমিক ৬১ শতাংশ বেশি নারী ভোটার নিবন্ধিত হয়েছিল। এর পরের বছরগুলোতে এই হার কমতে থাকে।  সর্বশেষ ২০১৫-১৬ সালে পুরুষের চেয়ে ২৬ শতাংশ কম নারী ভোটার তালিকায় নিবন্ধিত হয়েছেন। 

গোলটেবিল আলোচনায় মূল প্রবন্ধে বলা হয়, ২০০৮ সালে সেনাবাহিনীর সহায়তায় ছবিযুক্ত ভোটার তালিকা তৈরি করা হয়। সেই তালিকায় পুরুষের তুলনায় ১৪ লাখ বেশি নতুন নারী ভোটার নিবন্ধিত হয়েছিল। কিন্তু এর পর থেকে ভোটার তালিকা হাল নাগাদে নতুন নারী ভোটার নিবন্ধন কমতে থাকে। ফলে নারী-পুরুষ ব্যবধান বেড়েছে। ২০০৭-০৮-এ নতুন ভোটারদের মধ্যে নারী ভোটারের অন্তর্ভুক্তির হার ছিল +৩.৬১ শতাংশ, ২০০৯-১০-এ এই হার কমে দাঁড়ায় -২৩ শতাংশে। ২০১২-১৩ সালে ৩৩ শতাংশ, ২০১৩-১৪ সালে ১১ শতাংশ, ২০১৪ সালে ১৭ শতাংশ এবং ২০১৫-১৬ সালে ২৬ শতাংশ কম নারী ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন। 


বার পঠিত

এ সম্পর্কিত খবর

আ’লীগ সরকারের সময় দেশে শিক্ষার মান উন্নয়ন হয়: শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী  

আ’লীগ সরকারের সময় দেশে শিক্ষার মান উন্নয়ন হয়: শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী  

ভোলা প্রতিনিধি: শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী এমপি বলেছেন, আ’লীগ সরকার শিক্ষার মান বাড়িয়েছে। এ

কপিলমুনি হাসপাতালের শয্যা বৃদ্ধি এখন সময়ের দাবি

কপিলমুনি হাসপাতালের শয্যা বৃদ্ধি এখন সময়ের দাবি

আমিনুল ইসলাম বজলু,পাইকগাছা (খুলনা): খুলনা জেলার পাইকগাছা উপজেলার ঐতিহাসিকতা ও বর্ধিষ্ণু জনপদের শত বছরের পুরনো

ঐক্যফ্রন্টের নেতারা রাজনৈতিকভাবে চরিত্রহীন: হাছান মাহমুদ

ঐক্যফ্রন্টের নেতারা রাজনৈতিকভাবে চরিত্রহীন: হাছান মাহমুদ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ড. কামাল হোসেন, আ স ম রব, মাহমুদুর রহমান মান্না ও ব্যারিস্টার মইনুল


ভোট না পেলে আফসোস নেই, দেশটা যেন ভালো থাকে: প্রধানমন্ত্রী

ভোট না পেলে আফসোস নেই, দেশটা যেন ভালো থাকে: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী জাতীয় নির্বাচনে জনগণ ভোট না দিলে কোনো আফসোস করবেন না প্রধানমন্ত্রী শেখ

কুড়িগ্রামে “এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ” শীর্ষক প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শনী

কুড়িগ্রামে “এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ” শীর্ষক প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শনী

অনিরুদ্ধ রেজা,কুড়িগ্রাম: ১৯ অক্টোবর শুক্রবার সন্ধ্যায় কুড়িগ্রামের ৭টি উপজেলায় একযোগে সকাল ১০টায় এবং বিকাল ৪টায়

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় বিজ্ঞ আদালতের আদেশ অমান্য করে বাড়ি ভাংচুর

সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে বসতবাড়ীর মধ্যদিয়ে রাস্তা তৈরি!

সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে বসতবাড়ীর মধ্যদিয়ে রাস্তা তৈরি!

সাতক্ষীরা  প্রতিনিধি : সাতক্ষীরার কলারোয়ায় বিজ্ঞ আদালতের রায় অমান্য করে জোরপূর্বক মনিরুল হক (৩৭) নামে


১০-১২ দিনের মধ্যে কে-কার সঙ্গে সংলাপ করবে: ওবায়দুল কাদের

১০-১২ দিনের মধ্যে কে-কার সঙ্গে সংলাপ করবে: ওবায়দুল কাদের

এওয়ান নিউজ: এই মুহূর্তে সংলাপের কোনও পরিবেশ ও প্রয়োজনীয়তা নেই বলে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের

কর্ণফুলীতে বিদ্যালয়ে নতুন ভবন উদ্বোধন কালে ভূমিপ্রতিমন্ত্রী জাবেদ

‘কর্ণফুলী উপজেলা পেয়েছেন, আগামী ৫ বছরে উন্নয়নে বদলে দেবো’

‘কর্ণফুলী উপজেলা পেয়েছেন, আগামী ৫ বছরে উন্নয়নে বদলে দেবো’

জে.জাহেদ, চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম ১৩ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ভূমিপ্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি

নির্বাচন কমিশনের সংকট-ই রাষ্ট্রীয় সংকট: মির্জা আলমগীর

নির্বাচন কমিশনের সংকট-ই রাষ্ট্রীয় সংকট: মির্জা আলমগীর

নিজস্ব প্রতিবেদক: নির্বাচন কমিশন নিজেরাই বিভক্ত হয়ে পড়েছে দাবি করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ









আমাদের পরম বন্ধু ফাদার রিগন 

আমাদের পরম বন্ধু ফাদার রিগন 

২০ অক্টোবর, ২০১৮ ১৮:৫৯