রবিবার 21 অক্টোবর 2018 - ৫, কার্তিক, ১৪২৫

নির্বাচনের বাইরে রাখতেই ‘গায়েবি মামলা’

৯০ হাজার মামলায় বিএনপির ২৫ লাখ নেতা-কর্মী আসামী: মির্জা আলমগীর

০৬ অক্টোবর, ২০১৮ ১৫:০৩:৪৫

নিজস্ব প্রতিবেদক: নির্বাচন থেকে বাইরে রাখতেই দলের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে ৯০ হাজারের অধিক মামলা দেয়ার পরিসংখ্যান তুলে ধরেছে বিএনপি। আজ শনিবার সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এই পরিসংখ্যান তুলে ধরেন।

এই সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমানউল্লাহ আমান, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, আইন বিষয়ক সম্পাদক কায়সার কামাল উপস্থিত ছিলেন।
 
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত গায়েবী মামলার সংখ্যা ৪ হাজার ১৪৯। এর মধ্যে এজহারের জ্ঞাত আসামীর সংখ্যা ৮৬ হাজার ৬৯২ এবং অজ্ঞাত আসামী হচ্ছে ২ লাখ ৭৬ হাজারর ২৭৭ জন। ২০০৯ সাল থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মিথ্যা মামলার সংখ্যা ৯০ হাজার ৩৪০টি এবং আসামী সংখ্যা ২৫ লাখ ৭০ হাজার ৫৪৭ জন। এটা থেকে একটা জিনিসই প্রমাণিত হয় সরকার সম্ভাব্য সব রকমের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে যেন বিএনপি নির্বাচনে যেতে না পারে, যেন বিএনপি নির্বাচনে অংশ গ্রহন করতে না পারে। দেশনেত্রীকে মিথ্যা মামলা দিয়ে তাকে কারাগারে আটক করে রাখা, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে মিথ্যা মামলায় নির্বাসিত করে রাখা এবং আমাদের সিনিয়র নেতাদের মামলাগুলো দ্রুত শেষ করার চেষ্টা করা হচ্ছে যাতে তাদেরকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখার একটা প্রক্রিয়া তারা(সরকার) বের করতে পারে।

এরকম পরিস্থিতি নির্বাচনের জন্য অনুকুল নয় মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দেশের জনগন একটা নির্বাচন চায়। কেনো চায়? তারা এই অবস্থার পরিবর্তন চায়। সেই সেই নির্বাচনে যেন বিরোধী দল অংশগ্রহণ করতে না পারে তার জন্য সবরকম অবস্থা তারা তৈরি করে রাখছে। আমরা দৃঢ়তার সাথে বলতে চাই, আমরা একটা সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি করতে হবে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা সমস্ত মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। আমরা যে ৭ দফা দিয়েছি তা মেনে নিয়ে একটা পরিবেশ তৈরি করতে হবে।

একটা রাজনৈতিক দলের ২৫ লাখ ৭০ হাজার নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা! মাত্র ৯ বছরে ৯০ হাজারেরও বেশি মামলা দায়ের করা হয় বিএনপি ও তার অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীদের নামে। মামলা থেকে বাদ যাননি স্বয়ং দলের চেয়ারপারসনসহ বর্ষীয়ান নেতারাও। এমনকি মিথ্যা মামলার অপবাদ নিয়ে মারা গেছেন অনেক সিনিয়র নেতারা। মামলায় হাজিরা দিতে গিয়ে মারা যান দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য হান্নান শাহ। কারাগারে মারা যান ছাত্রদলের নিবেদিত বেশ কয়েকজন নেতা।

গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে গায়েবী মামলার পরিসংখ্যান তুলে ধরে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ১ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত গায়েবী মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৪ হাজার ৬৮৪ জন। রিমান্ডে গেছে ২৪৭ জন। আমাদের দক্ষিনের সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল এখনো রিমান্ডে আছেন। একটার পর একটা রিমান্ড তার চলছে। ২০০৯ সাল থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আসামীর সংখ্যা অবিশ্বাস্য। কেউ বিশ্বাস করবে না। ২৫ লাখ ৭০ হাজার ৫৪৭ জন, জেল হাজতে আসামী সংখ্যা ৭৫ হাজার ৯২৫ জন, মোট হত্যার সংখ্যার ১ হাজার ৫১২ জন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দ্বারা বিএনপির নেতা-কর্মী নিহত হওয়ার সংখ্যা ৭৮২ জন। মোট গুমের সংখ্যা ১ হাজার ২০৪ জন। এর মধ্যে পরবর্তিকালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হেফাজত থেকে গ্রেপ্তার দেখানো হয় ৭৮১ জন এবং গুম হয়ে আছে এখন ৪২৩ জন। ২০০৯ সাল থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে গুরুতর জখম ও আহত হয়েছে ১০ হাজার ১২৬ জন। এসব সব আমাদের কাছে রেকর্ডেড। এর বাইরেও আছে যা রেকর্ডেড হয়নি।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, বিদেশে দেশে তারা সবাই বক্তৃতা করার সময়ে বলছেন যে, দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন হবে। সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে এবং লেভেল প্ল্যায়িং ফিল্ড থাকবে সবাই নির্বাচন করতে পারবে। এই পরিসংখ্যানে একটা জিনিসই প্রমাণিত হয় সরকার সব প্রচেষ্টা চালাচ্ছে যেন বিএনপি নির্বাচনে যেতে না পারে। আমরা মনে করি এটা শুধু বিএনপির জন্য নয়, বিরোধী দলগুলোর জন্য নয় এটা সমগ্র জাতির জন্য এটা গুরুত্বপূর্ণ, বিপদজনক। কোন দিকে নিয়ে যাচ্ছে দেশকে। আবার আগের নাটক শুরু হয়ে গেছে। মীরসরাইতে জঙ্গি আস্তানা। এই আলামত কিসের কোন দিকে নিয়ে যাচ্ছে দেশকে। কোন দিকে কোন উদ্দেশ্যে জাতিকে নিয়ে যেতে চায় এটা আমাদের কাছে বড় আশঙ্কা ও উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, নির্বাচন থেকে বিএনপিকে দূরে রাখার জন্য এইভাবে গায়েবী মামলা দিচ্ছে। উদ্দেশ্যে আবারো ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির মতো একটা একতরফা নির্বাচন করা। পৃথিবীর কোথাও এমন নজির নেই যে, এইভাবে নির্বাচনের আগে সরকার নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করে। যেটা বাংলাদেশকে সরকার পরিকল্পিতভাবে এসব কর্মকান্ড করছে। গত ১০ বছরে নিজের অপকর্মের কারণেই তারা আতঙ্কিত হয়ে এসব কাজ করছে।

স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেন, এভাবে কোনো ভিত্তি ছাড়া মামলায় দায়ের করে সরকার দেশে ন্যায় সুবিচার ও সুবিচার বলতে যা বুঝায় তা একেবারেই নিঃশেষ করে দিয়েছে। এর মাধ্যমে দেশের আপামর জনগনকে আপনারা হেয় প্রতিপন্ন করছেন। আপনাদের যে দেশের মানুষের প্রতি কোনো আস্থা নাই যেটাই প্রমাণ করছেন এসব কর্মের মাধ্যমে। সরকারের উদ্দেশ্য হলো নির্বাচনের আগে ওয়ার্ড লেভেল পর্যন্ত যারা আমাদের নির্বাচন করবে তাদের সকলকে কারাগারে বন্দি করে রাখা। তারা চাচ্ছেন ফাঁকা মাঠে গোল দেয়ার।



এ সম্পর্কিত খবর

নীতিহীন মানুষদের জনগণ কখনোই ক্ষমা করবে না: নাসিম   

নীতিহীন মানুষদের জনগণ কখনোই ক্ষমা করবে না: নাসিম   

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: ড.কামাল হোসেন একজন নীতিহীন মানুষ উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ১৪ দলের

আ’লীগ সরকারের সময় দেশে শিক্ষার মান উন্নয়ন হয়: শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী  

আ’লীগ সরকারের সময় দেশে শিক্ষার মান উন্নয়ন হয়: শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী  

ভোলা প্রতিনিধি: শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী এমপি বলেছেন, আ’লীগ সরকার শিক্ষার মান বাড়িয়েছে। এ

ভোট না পেলে আফসোস নেই, দেশটা যেন ভালো থাকে: প্রধানমন্ত্রী

ভোট না পেলে আফসোস নেই, দেশটা যেন ভালো থাকে: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী জাতীয় নির্বাচনে জনগণ ভোট না দিলে কোনো আফসোস করবেন না প্রধানমন্ত্রী শেখ


আমাদের পরম বন্ধু ফাদার রিগন 

আমাদের পরম বন্ধু ফাদার রিগন 

এ দেশের মানুষের কল্যাণে জীবন উৎসর্গ করা এই ধর্মযাজককে বাগেরহাটের মোংলা উপজেলার শেলাবুনিয়া চার্চের পাশেই

তারেকের হাতে রক্তের দাগ এবং খালেদা জিয়ার গায়ে পোড়া মানুষের গন্ধ: ইনু

তারেকের হাতে রক্তের দাগ এবং খালেদা জিয়ার গায়ে পোড়া মানুষের গন্ধ: ইনু

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ২১ আগস্টে গ্রেনেড হামলার রক্তের

জাহাঙ্গীর কমিশনার ছিলেন কর্মীবান্ধব নেতা: এটিএম কামাল

জাহাঙ্গীর কমিশনার ছিলেন কর্মীবান্ধব নেতা: এটিএম কামাল

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: মরহুম জাহাঙ্গীর কমিশনার ছিলেন একজন কর্মীবান্ধব নেতা। আজীবন সংগঠনের জন্য কঠিন পরিশ্রম করেছেন,


সাতক্ষীরার কলারোয়ায় বিজ্ঞ আদালতের আদেশ অমান্য করে বাড়ি ভাংচুর

সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে বসতবাড়ীর মধ্যদিয়ে রাস্তা তৈরি!

সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে বসতবাড়ীর মধ্যদিয়ে রাস্তা তৈরি!

সাতক্ষীরা  প্রতিনিধি : সাতক্ষীরার কলারোয়ায় বিজ্ঞ আদালতের রায় অমান্য করে জোরপূর্বক মনিরুল হক (৩৭) নামে

কৃষকের মুখে হাসির ঝিলিক

কৃষকের মুখে হাসির ঝিলিক

কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি ঃ  কাউনিয়ায় স্বল্প মেয়াদী (মঙ্গা তাড়ানো) বিআর-৩৩ ও বিনা-৭ সহ বিভিন্ন জাতের

প্রতিটি পলিটেকনিকে কারিগরি সেবা কেন্দ্র: শিক্ষাসচিব

প্রতিটি পলিটেকনিকে কারিগরি সেবা কেন্দ্র: শিক্ষাসচিব

এওয়ান নিউজ: শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর বলেছেন,  ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে কারিগরি



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ









আমাদের পরম বন্ধু ফাদার রিগন 

আমাদের পরম বন্ধু ফাদার রিগন 

২০ অক্টোবর, ২০১৮ ১৮:৫৯