'মেসির সব জেতা উচিত, কিন্তু সেটা সম্ভব নয়’


স্পোর্টস ডেস্ক: ব্রাজিল বিশ্বকাপের পর কোপা আমেরিকার পর পর দুই আসর, এরপর রাশিয়া বিশ্বকাপ। আর্জেন্টিনার অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে এই চার আসরে হতাশ হতে হয়েছে। আপাতত স্বেচ্ছায় বিশ্রামে আছেন বার্সেলোনার এই আর্জেন্টাইন ফুটবলের জাদুকর। তবে, খুব শিগগিরই আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরবেন মেসি-এমনটি বিশ্বাস আর্জেন্টিনার সাবেক কোচ জর্জ সাম্পাওলির।

রাশিয়া বিশ্বকাপ চলাকালীন সাম্পাওলিকে সমালোচিত হতে হয়েছে বিভিন্ন কারণে। বিশ্বকাপ শেষ হতেই চাকরিটা হারাতে হয়। মেসির মতো বিশ্বসেরা ফুটবলার থাকতেও রাশিয়া কেন আর্জেন্টিনা সফল হতে পারলো না? এ নিয়ে সাম্পাওলি জানান, একটা বিশ্বসেরা দলকে সামলাতে হলে আপনাকে সবকিছুই দিয়ে দিতে হয়। আর বিশ্বসেরা দলটির কাছে সবারই একটা ন্যুনতম চাওয়া থাকে। বাকিদের চাওয়াটা একটু বেশিই থাকে। আমরা দলের সবাই প্রতিদিনই লড়াই চালিয়ে গেছি। কখনো জিতেছি, কখনো জিততে পারিনি। মেসির মতো বিশ্বসেরা ফুটবলারের কাছেও তাই। সে কখনো জিতেছে, কখনো হেরেছে। তবে, এটা বলবো সে কখনো ভুল করেনি।

মেসির ব্যাপারে তার সাবেক গুরু জানান, এটা অবশ্যই অবাক করার মতো বিষয় যে খেলোয়াড়টি তার সেরাটা দেওয়ার জন্য প্রাণপণ লড়াই করে তাকেই সব থেকে বেশি সমালোচিত হতে হয়েছে। মেসিকে যেভাবে আক্রমণ করা হয় সেভাবে অন্য কাউকে সমালোচিত হতে হয়নি। সে বিশ্বসেরা ফুটবলারদের তালিকায় অন্যতম। আমি মনে করি, ২০২২ কাতার বিশ্বকাপে সে আবারো জাতীয় দলকে নিয়ে লড়বে। যদিও সিদ্ধান্তটি তার একান্তই নিজের। শুধু সেই জানে তার কি করতে হবে, কি করতে হবে না। আর তার সিদ্ধান্তকে আমাদের সবার সম্মান জানানো দরকার।

কাতার বিশ্বকাপ চলাকালীন মেসি বয়স বেড়ে দাঁড়াবে ৩৫। এই বয়সে তিনি আর্জেন্টিনাকে কতটা টানতে পারবেন-এমন প্রশ্নও করা হয়েছিল সাম্পাওলিকে। তিনি জানান, অবশ্যই মেসি দলকে টানতে পারবে। তবে সেটার জন্য একটা প্রক্রিয়া থাকতে হবে। আপনি কোনো প্রক্রিয়াকে ভাঙতে পারেন না। পরের কোপা আমেরিকা কিংবা বিশ্বকাপ, কোনোটাতেই আপনি প্রক্রিয়ার বাইরে যেতে পারবেন না। বরং সেটা সংশোধন করা যায়। আগামী বিশ্বকাপ বা কোপা আমেরিকায় তাদের একতাবদ্ধ থাকতে হবে। মেসি যদি কোপা আমেরিকার শিরোপা জেতাতে নাও পারে, তারপরও দলের প্রক্রিয়া ভাঙা উচিত নয়। আর্জেন্টিনার মানুষের বড় একটা পাগলামি আছে, তারা শুধু জিততেই চায়। যদি আপনি না জেতেন, তবে আপনি পরাজিত। ব্যাপারটা কিন্তু এমন নয়। মেসি একা আর্জেন্টিনাকে কখনোই শিরোপা জেতাতে পারবে না। জাতীয় দলের হয়ে মেসির সবকিছুই জেতা উচিত, কিন্তু সেটা সব সময় সম্ভব নয়।

বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে ফ্রান্সের বিপক্ষে হেরে বিদায় নিতে হয়েছিল আর্জেন্টিনাকে। বিশ্বকাপের পর মেসিকে ছাড়াই আর্জেন্টিনা খেলেছে আরও দুটি ম্যাচ। গুয়েতামালার বিপক্ষে ৩-০ গোলে জেতার পর দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা কলম্বিয়ার বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করে। সৌদি আরবে আগামী ১২ অক্টোবর ইরাকের বিপক্ষে খেলবে মেসিহীন আর্জেন্টিনা। আর ১৬ অক্টোবর ব্রাজিলের বিপক্ষে মাঠে নামবে দলটি।


footer logo

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের  কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।