বুধবার 24 অক্টোবর 2018 - ৮, কার্তিক, ১৪২৫

রায়কে কোনও গুরুত্ব না দিয়ে জাতীয় ঐক্যের আন্দোলন চলবে: মওদুদ আহমদ

১২ অক্টোবর, ২০১৮ ১৫:৪৪:২২

নিজস্ব প্রতিবেদক: ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে কোনও গুরুত্ব না দিয়ে জাতীয় ঐক্যের আন্দোলন চলবে বলে জানিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, ‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ের কারণে তারা (সরকার) মনে করছে আমাদের যে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া করতে যাচ্ছি, এটাকে ব্যহত হবে। আমি বলবো, এই রায়কে সম্পূর্ণভাবে অগ্রাহ্য করে, উপেক্ষা করে, এই রায়কে কোনও গুরুত্ব না দিয়ে আমাদের জাতীয় ঐক্যের আন্দোলন চলবে। খুব শিগগিরই আমরা এটার একটা রূপরেখা দিবো এবং এই আন্দোলনের একটা কাঠামো ঘোষণা করবো। এরপর জাতীয় ঐক্য সৃষ্টির মাধ্যমে এই সরকারের পতনের ব্যবস্থা করবো। এই সরকার বাধ্য হবে সংলাপে আসতে।’

শুক্রবার (১২ অক্টোবর) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে জিয়া পরিষদের উদ্যোগে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি বিএনপির সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ২১ আগস্ট সাজানো মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় বাতিল ও নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে এই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনকে খুশি করছে এমন দাবি করে মওদুদ আহমেদ বলেন, ‘বিভিন্ন পেশাজীবী মানুষদের খুশি করার জন্য নানা সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে। এমনকি যারা অবসরপ্রাপ্ত, পেনশনের টাকা নিয়ে নিয়েছে তাদেরকেও আবার নতুন করে পেনশন দিচ্ছে। এতে যদি কিছু ভোট তারা পায়! এই ভোট পাওয়ার জন্য কওমি মাদ্রাসাদের স্বীকৃতি দিয়ে দিল। এই ভোট পাওয়ার জন্য প্রত্যেক দিন তারা প্রকল্প উদ্বোধন করছে। এগুলা সব হলো নির্বাচনী প্রকল্প, দেশের মানুষকে আকৃষ্ট করার জন্য করছে। এদের ৮০ ভাগই যদি ভোট দিতে যায়, তারা যে তাদের (আ.লীগ) ভোট দিবে না এটা তারা জানে না।’ 

২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার পর আওয়ামী লীগ তৎকালীন সরকারকে কোনও সহযোগিতা করেনি এমন অভিযোগ করে বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, ‘২১ আগস্টের ঘটনায় আমরা খুব মর্মাহত হয়েছি। এ ধরনের ঘটনা আর যেন বাংলাদেশের মাটিতে না ঘটে সেটাই আমরা কামনা করি। এ ধরনের ঘটনাকে ঘৃণা করি আমরা। এই মামলায় যিনি সম্পৃক্ত ছিলেন না তাকে আজকে জড়িয়ে দিয়ে রাজনৈতিক ফায়দা নিতে চায় সরকার। প্রথম চার্জশিটে তার (তারেক রহমানের) নাম ছিল না, মুফতি হান্নানের স্বীকারোক্তি বক্তব্য দিয়েছিল সেখানে তার নাম ছিল না। এফবিআইয়ের রিপোর্টে ছিল না, ইন্টারপোলের রিপোর্টে ছিল না। তারপরে এই সরকার ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পরে আবার নতুন করে একটা বিতর্কিত ব্যক্তিকে দিয়ে নতুন করে তদন্ত শুরু করে। অকথ্য অত্যাচার করে এই মুফতি হান্নানের কাছ থেকে জোর করে তারেক রহমানের নাম উচ্চারণ করিয়েছিল। মুফতি হান্নান আদালতে বলেছে তার কাছ থেকে জোর করে তারেক রহমানের নাম উচ্চারণ করানো হয়েছে। সে তারেক রহমানকে চেনেও না। কোনদিন সাক্ষাৎ পায়নি তার।’

নেতাকর্মীদের প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার একটাই পথ আছে এখন, সেটা হলো রাজপথ। রাজপথ ছাড়া খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা সম্ভব হবে না। এখন আপনারা প্রস্তুতি নেন, সময় এসে গেছে । মাঠে নেমে এই দাবি আদায় করতে হবে।’

 নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ও কৃষকদলের সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, ‘আমাদেরকে ঘুরে দাঁড়াতে হবে, ঘুরে দাঁড়ানো ছাড়া আপনারা যে যাই বলেন না কেন- এই ফ্যাসিবাদী শক্তিকে নামানো যাবে না। বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে মুক্ত করার জন্য আসুন আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাস্তায় নামি।’

শেখ হাসিনার অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন শয়তানও বিশ্বাস করে না মন্তব্য করে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘বিএনপি নির্বাচনে যেতে চায়, এখনও যেতে চায়। দেশে যতো সংগ্রাম-আন্দোলন বিএনপি করছে সবই নির্বাচনকে ঘিরে। কিন্তু বর্তমান অবৈধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে- এটা মনে হয় আল্লাহু তায়ালা বিশ্বাস করে না, শয়তানও বিশ্বাস করে না। মানুষের কথা তো বাদই দিলাম, কেউ বিশ্বাস করে না।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন পুরোপুরি ভাবে ফ্যাসিবাদে কবলিত। ফ্যাসিবাদে গ্রাস করে ফেলেছে বাংলাদেশকে। যে জন্য একাত্তর সালে যুদ্ধ হয়েছিল তার ছিটেফোঁটাও বর্তমানে নেই। এই কথাটা বলাও এখন ভয়ঙ্কর, কারণ এখন ডিজিটাল আইন পাস করা হয়েছে। দেশে নির্বাচনী ব্যবস্থা নাই, রাজনীতিক সভা-সংগঠন ব্যক্তিগত কোনো কিছু করার সুযোগ নাই। ২০১৪ সালের বিনাভোটের নির্বাচনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের রাজনৈতিক ব্যবস্থার মৃত্যু ঘটেছে একেবারে পুরোপুরি ভাবে মৃত্যু ঘটেছে।’ 

বিএনপির এই শীর্ষ নেতা বলেন, ‘বর্তমানে পুলিশ যাকে যেখানে খুশি ধরে নিয়ে যেতে পারে, এটার জন্য কোনো কোর্ট-কাচারি ওয়ারেন্ট আলাদা কোনো কিছুর প্রয়োজন নেই, এমনই একটি রাষ্ট্র তৈরি করতে চেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তিনি ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের আগে ২৫ জানুয়ারি এ ঘোষণা দিয়েছিলেন। তখন জনগণ ওই ব্যবস্থা প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। স্বাধীনতার ৪৭ বছর পরে এসে তারই কন্যা সেই ব্যবস্থায় ফিরে যাওয়ার চেষ্টা করছেন।’ 

ছাত্রদলের সাবেক এই সভাপতি প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার মাধ্যমে যদি আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করার চেষ্টা হয়, তাহলে বর্তমানে আদালতের মাধ্যমে জিয়া পরিবারকে ধ্বংস করার চেষ্টা করা হচ্ছে। কারণ এখানেই (আলোচনাস্থল) বসে আছেন বিখ্যাত আইনজীবী ব্যারিস্টার মওদুদ তিনি মন্তব্য করেছেন আদালতে এখন কোনো ভালো কিছু আশা করা যায় না।’

দুদু অভিযোগ করে বলেন, ‘যে সুপ্রিম কোর্ট মানুষকে রক্ষা করে, সেই সুপ্রিম কোর্ট বেগম খালেদা জিয়াকে আটকে দিয়েছে। এটা আমার কাছে খুব ভয়াবহ মনে হচ্ছে। নিম্ম আদালতে তারেক রহমানকে যাবজ্জীবন দেয়া হয়েছে, যার সাথে তাঁর কোনো সম্পর্ক নাই। তারপরও তাকে যাবজ্জীবন দেয়া হয়েছে।’

প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘বর্তমান প্রধান নির্বাচন কমিশনার ছাত্রলীগের ক্যাডার ছিলেন। তিনি নির্বাচন কমিশনে থাকা অবস্থায় দেশে ভালো নির্বাচন হবে এটা কেউ বিশ্বাস করবে না।’

পুলিশের আইজির সাম্প্রতিক সময়ে দেয়া বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘বর্তমান পুলিশের আইজি যিনি আছেন তিনি আওয়ামী লীগে যোগদান করলে আমার মনে হয় ভাল হবে। কারণ নাসিম সাহেব যেভাবে কথা বলেন, হাসান মাহমুদ যেভাবে কথা বলেন, একইভাবে তিনিও কথা বলছেন। আইজি বলছেন- কোনো বিশৃঙ্খলা করা যাবে না। যেখানে আমাদের কোনো কর্মসূচি নেই, সেখানে বিশৃঙ্খলা হবে কীভাবে?’

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও জিয়া পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান কবির মুরাদের সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির  চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা প্রফেসর আব্দুল কুদ্দুস, যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এস এম হাসান তালুকদার, জিনাফের সভাপতি লায়ন মিয়া মো. আনোয়ার প্রমুখ।



এ সম্পর্কিত খবর

শিক্ষা ও দক্ষতা উন্নয়নে আরো বিনিয়োগ করতে হবে: রাষ্ট্রপতি

শিক্ষা ও দক্ষতা উন্নয়নে আরো বিনিয়োগ করতে হবে: রাষ্ট্রপতি

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: রাষ্ট্রপতি এম আবদুল হামিদ ভবিষ্যৎ চাহিদা মেটাতে মানবসম্পদ, শিক্ষা এবং দক্ষতা উন্নয়নে

৩৫টি ড্রেজার কিনতে ৪,৪৮৯ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন

৩৫টি ড্রেজার কিনতে ৪,৪৮৯ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন

এওয়ান নিউজ: জাতীয় অর্থনৈতিক নির্বাহী কমিটি (একনেক) দেশের ১০০টি প্রধান নদীতে নৌযান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে

ফুলবাড়ীতে ৭ বছরে শিশুকে ধর্ষনের চেষ্টার ঘটনায় থানায় মামলা 

ফুলবাড়ীতে ৭ বছরে শিশুকে ধর্ষনের চেষ্টার ঘটনায় থানায় মামলা 

অনিরুদ্ধ রেজা,কুড়িগ্রাম: পটেটো চিপস খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় ৭ বছর বয়সী এক শিশুকে


ফুলবাড়ীর আদর্শ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ে মাল্টিমিডিয়ায় প্রথম স্থান অর্জন

ফুলবাড়ীর আদর্শ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ে মাল্টিমিডিয়ায় প্রথম স্থান অর্জন

অনিরুদ্ধরেজা,কুড়িগ্রাম: মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের মাঝে লেখাপড়া শিখিয়ে চমক সৃষ্টি করছে ফুলবাড়ী উপজেলার আদর্শ বহুমূখী উচ্চ

রৌমারীতে কৃষকদের মাঝে বীজ ও সার বিতরণ

রৌমারীতে কৃষকদের মাঝে বীজ ও সার বিতরণ

অনিরুদ্ধ রেজা,কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলায় ক্ষতিগ্রস্ত, প্রান্ততিক ও ক্ষুদ্র কৃষকদের মাঝে উন্নত জাতের বীজ ও

কুড়িগ্রামে সাংবাদিকদের সাথে রংপুর রেঞ্জ এর ডিআইজি’র মতবিনিময় সভা 

কুড়িগ্রামে সাংবাদিকদের সাথে রংপুর রেঞ্জ এর ডিআইজি’র মতবিনিময় সভা 

অনিরুদ্ধ রেজা,কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন রংপুর রেঞ্জ এর ডিআইজি


পঞ্চগড়ে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণে তিন দিনের প্রশিক্ষণ কর্মশালা

পঞ্চগড়ে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণে তিন দিনের প্রশিক্ষণ কর্মশালা

ডিজার হোসেন বাদশা, পঞ্চগড় প্রতিনিধি: পঞ্চগড়ে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণে তিন দিনব্যাপি প্রশিক্ষণ কর্মশালা শুরু হয়েছে।

অবিলম্বে চট্টগ্রাম অঞ্চলে গ্যাস সংযোগ চালু করুন: কেজিডিসিএল

অবিলম্বে চট্টগ্রাম অঞ্চলে গ্যাস সংযোগ চালু করুন: কেজিডিসিএল

জে.জাহেদ, চট্টগ্রাম ব্যুরো:  কেজিডিসিএল এর আওতায় চট্টগ্রাম অঞ্চলে প্রায় ২৫ হাজার আবাসিক গ্রাহকের নিকট হতে,

দেবীগঞ্জে চুরির অভিযোগে গণপিটুনিতে যুবকের মৃত্যু

দেবীগঞ্জে চুরির অভিযোগে গণপিটুনিতে যুবকের মৃত্যু

ডিজার হোসেন বাদশা, পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে গরু চুরির অভিযোগে মঞ্জুরুল ইসলাম (২৮) নামে এক



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ












ভোলায় ইয়াবাসহ যুবক গ্রেফতার

ভোলায় ইয়াবাসহ যুবক গ্রেফতার

২৩ অক্টোবর, ২০১৮ ১৯:৫৪