A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: getimagesize(): http:// wrapper is disabled in the server configuration by allow_url_fopen=0

Filename: views/template.php

Line Number: 37

Backtrace:

File: /home/a1news24/public_html/application/views/template.php
Line: 37
Function: getimagesize

File: /home/a1news24/public_html/application/controllers/Article.php
Line: 97
Function: view

File: /home/a1news24/public_html/index.php
Line: 292
Function: require_once

A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: getimagesize(http://a1news24.com/uploads/news/8452/ab-5v.jpg): failed to open stream: no suitable wrapper could be found

Filename: views/template.php

Line Number: 37

Backtrace:

File: /home/a1news24/public_html/application/views/template.php
Line: 37
Function: getimagesize

File: /home/a1news24/public_html/application/controllers/Article.php
Line: 97
Function: view

File: /home/a1news24/public_html/index.php
Line: 292
Function: require_once

রবিবার 16 জুন 2019 - ২, আষাঢ়, ১৪২৬

ব্যক্তিগত আইয়ুব বাচ্চু

২৪ অক্টোবর, ২০১৮ ১৩:৫৯:৪৩

রায়হান উল্লাহ : আইয়ুব বাচ্চু। বাংলাদেশের সংগীত ইতিহাসে একটি তারকা। এমন তারকা অনেকেই আছেন। তবে তিনি জ্বলজ্বলে। তিনি একটি ধারার শুরুর মানুষ। পেশাদার সংগীতজ্ঞ। বাকিটা ইতিহাস। আজ তিনি নেই। ১৮ অক্টোবর সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে গিয়েছেন তিনি। রেখে গেছেন অগুনতি কথা, কবিতার পঙক্তি, সুরের মূর্ছনা, গিটারের কান্না। 
তার সঙ্গে কখনো পরিচয় ছিল না। কিন্তু তার সৃষ্টির সঙ্গে অবিরত প্রেম ছিল আমার। এ এক অদৃশ্য প্রেম। যেন প্রিয় কবিতার ছোট্ট উপমা বাচ্চু। তিনি এবি, বাংলাদেশের। 

শুরুতে যাওয়া যাক। কীভাবে বাচ্চু এলেন আমার সংগীত আয়োজনে। সময়টা ১৯৮৮ সাল হতে পারে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলের নোয়াগাঁও-এ নিজ বাড়িতে থাকি। পড়ি স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। শিক্ষক বাবা সব খবর রাখতে চান। কিন্তু গ্রামে পত্রিকা আসে না। তাতে কী? তার শিক্ষকতার স্থল সরাইল অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে পত্রিকা রাখা হয়। তিনি পড়েন। এভাবে তার পোষায় না। বাড়িতে আছে চার ব্যাটারির ফোর ব্যান্ড রেডিও। যা দিয়ে পৃথিবীর সব রেডিও স্টেশন ধরা যায়। এতে আমাদের লাভ। আমরা ওই সময়টা থেকে রেডিওর সব অনুষ্ঠান শুনে আসছি। শুনে আসছি দেশাত্ববোধক সব গান। এভাবেই চিনেছি সব লিজেন্ডকে। এমনি করতে করতে হাইস্কুলের বারান্দায় এসেছি। তখন ফিতের টেপ রেকর্ডারের যুগ। এক সময় কানে বাজল আমি কষ্ট পেতে ভালোবাসি...। চলছে এভাবেই। ১৯৯১ সালে এলআরবির ডাবল অ্যালবাম বেরুল সারগাম থেকে। তখন সারগামের একটি শোরুম ছিল রাজধানীর ফার্মগেটে। 

এখানে বলে রাখা ভালো আমার গানের সমৃদ্ধি এসেছে একাধিক মানুষের হাত ধরে। তার মাঝে দুজন হলেন বড় ভাই মোহাম্মদ নূরুল্লাহ ও কাজিন মোহাম্মদ শহীদ উল্লাহ। তো নূরুল্লাহ ভাই হয়ে উঠলেন এলআরবির সংগ্রাহক। তিনিই আনলেন ওই ক্যাসেট দুটি। পেলাম মাধবী, বাংলাদেশ, হকার, পেনসনের মতো মৌলিক গান। হয়ে উঠলাম আইয়ুব বাচ্চু ও তার দলের প্রিয়। এরপর সময় কাটছে। গানের সবদিকের খোঁজ রেখেই এলআরবি ও আইয়ুব বাচ্চু জানা হচ্ছে। তার রিলিজ সব অ্যালবাম ঘরে আসছে। সময়টা ১৯৯৭ সাল। সনির র‌্যাংস ডেতে ছাড়ে চলে আসে ডাবল স্পিকারের একটি টেপ রেকর্ডার। এরপর সব শুনছি। তা যেমন হতে পারে মৌসুমী ভৌমিক, হতে পারে বব ডিলান, হতে পারে মহীনের ঘোড়াগুলি। আজও আছে সেসব অডিও। প্রায় ৫০০ ক্যাসেট এখনো ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাড়ির বাথরুমের ফলস ছাদে পড়ে আছে। 
এমনি করেই সেই তুমি, রুপালি গিটার, ঘুমভাঙা শহরে, নীরবে, নীল বেদনা, পালাতে চাই হয়ে বারোমাস ভালোবাসিতে। এভাবেই চলছে। শেষ সময়ে তার সৃষ্টির খবর রাখা হয়নি। কিছুটা ম্লান হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। তার কনসার্ট পেয়েছি ধানমন্ডি ও ঢাবিতে। দেখেছি গিটারের কাড়িকুড়ি। এভাবেই একজন আইয়ুব বাচ্চুর ভক্ত আমি। তিনি সংগীতকে পেশা মেনেছেন। এ অসম্ভব অনেকের জন্য।


এমনি বেলায় তিনি নেই। তার আত্মার দেহান্তর হয়েছে। ঠিক এ সময়টায় তিনি শুয়ে আছেন কবরের চিরায়ত অন্ধকারে। তার দেহ মাটির বোঝাপড়ায় ক্রমশ এগোচ্ছে। তিনি বাজছেন তুমুল আমাদের হৃদয়ে, কানে। আমরা এমনই। এখন ভাবি তিনি কী করে বললেনÑহাসতে দেখ, কেউ সুখী নয়, আমি তো প্রেমে পড়িনি, এক অন্তহীন নক্ষত্রের মতো জেগে আছি আমি, আমি তো কাঁদিনি কখনো, টাকা কড়ি ধন-সম্পত্তি এমন সব গূঢ় কথা? 
তিনি বলেছেন তার সময়কে। তিনি বাংলাদেশকে দেখিয়েছেন অন্য এক রেভ্যুলেশন। তিনি তুলে এনেছেন অনেক তারকাকে। আজ শিহরিত হই যখন তিনি বলেন রাজধানীর মালিবাগে একদিন লেখা হয় ‘সেই তুমি কেন অচেনা হলে’। ভাবি ওখানটায় থাকি, ভাষার অনেক কাড়িকুড়ি করার চেষ্টা করি; যদি লেখা হতো এমন মহান কিছু পঙক্তি। এভাবেই আসলে শিল্পের ঘর হয়, শিল্পীর জীবনযাপন হয়। তিনি একটি স্মৃতিচারণে বলেছেন প্রায়শই টাকা না থাকলে তিনি দুপুরে তেজগাঁওয়ে চ্যানেল আইয়ের অফিসে চলে যেতেন। ওখানে ফ্রি দুপুরের খাবার খেতেন। শিল্প কিংবা শিল্পী এমনই। তাদের বেঁচে থাকতে হয়। শিল্প বাঁচিয়ে রাখতে হয়। 
একজন আইয়ুব বাচ্চু সহজেই সৃষ্টি হয় না। আজ ক্রমশ তার শূন্যতা বুঝবে দেশ। তবুও তাদের অনেক কষ্ট নিয়ে চলতে হয়। শেষ ভরসার সময়ে গিটার নিলামে তুলতে হয়। আর আমরা আন্তর্জাতিক টার্মিনালে এগিয়ে যাই। ভুলে যাই সৃষ্টির সুখ, হৃদয়ের খাদ্য। সময় আমাদের বড় বেশি আক্রোশে হাসায়। আমাদের কিছু মনে রাখতে হয় না। শুধু পদচ্ছাপ থেকে যায়। যেমনটা রেখেছেন আইয়ুব বাচ্চু। তিনি উড়াল দিয়েছেন আকাশে, আর বর্তমান সময় হয়ে উঠেছে কান্নার। এখানেই সফল এবি। 

প্রায়শই কথা আসে, শিল্পে সংখ্যা নয় মান বড়। এমনই বেলায় আইয়ুব বাচ্চু অনেক দিকেই উঁচু মর্যাদার। তিনি একজন কবি। আমি তাকে কবিই বলব। চট্টগ্রামের সবুজ তাকে কবি করেই তুলেছে। তিনি লিখেছেন অসংখ্য হৃদয়ে গেঁথে যাওয়া পঙক্তি। আরেকটু এগিয়ে তিনি একজন উঁচু মাপের সুরকার। এর প্রমাণ তার করা অসংখ্য সুর। এমনও দেখা গেছে তার সুরের গান গেয়ে শিল্পী হয়েছেন অনেকেই। তিনি একজন গ্রেট গিটারিস্ট। বাংলাদেশের নম্বর ওয়ান। আধুনিক প্রজন্মের অনেকেই গিটারে অনেক কিছুই করবেন। বিশে^র নানা প্রান্তে বাংলার ছোঁয়া দেবেন। কিন্তু আইয়ুব বাচ্চু অগ্রবর্তী থেকে যাবেন। সবশেষে তিনি গায়ক। কণ্ঠের আজব কারিগর। একজন বোদ্ধা শ্রোতা হিসেবে বলি তার মতো ভেরিয়েশন অনেকের কণ্ঠেই পাইনি। এসব নিয়ে আইয়ুব বাচ্চু, চাটগার রবিন এক ক্ষণজন্মা সংগীতজ্ঞ। এতসব গুণের একজন আইয়ুব বাচ্চু সংগীতজ্ঞই। অনেকেই ভিন্ন দিকে নিতে পারেন এ উপমাকে। কিছুই করার নেই। একজন আইয়ুব বাচ্চু সংগীতজ্ঞ। সময়ে বুঝবেন এ কথার মাধুর্য কিংবা উপযুক্ততা। 

সময়ের বহমানতায় আইয়ুব বাচ্চুর কণ্ঠ নষ্ট হয়। তিনি ক্রমশ রূপ পান অন্যদিকে। শাণিত হয় তার গিটারের কান্না। তিনি দিয়ে যান মেধা-মনন। এভাবেই আমাদের একজন তিনি। 
২০০১ সালের কথা। বাংলাদেশ আর্মি স্টেডিয়ামে কোকা কোলার আয়োজনে একটি কনসার্টে ছিলেন কলকাতার শিল্পী অঞ্জন দত্ত। তিনি ভরা মহলে আচমকা বলে উঠলেন এখন আপনারা সবাই চুপ হয়ে যান। আমি আপনাদের একজনের একটি গান করার চেষ্টা করব। আশা করি ক্ষমা করবেন। আমি তার মতো গাইতে পারব না। তবে তার প্রতি সম্মান দেখিয়েই আমি গানটা গাওয়ার চেষ্টা করব। তারপর গাইলেন সেই তুমি। এভাবেই সবাই তার গান ও সৃষ্টির প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিলেন, আছেন। 


আইয়ুব বাচ্চু কিংবা ওই সময়কার অনেকের হয়ে বলতে হয় এখনকার অনেক তথাকথিত তারকা অন্যের শিল্প বেঁচে খান, রঙিন স্ক্রিনে ভেসে বেড়ান। হয়ে উঠেন আইডল। অথচ তারা নিজে কিছুই সৃষ্টি করেননি। বলতে পারেন না তার কোন সৃষ্টিকর্ম মানুষের হৃদয়ে দাগ কেটেছে। অথচ আইয়ুব বাচ্চুরা মাধবীর কলগার্ল হওয়া দেখিয়েছেন। পেনসন ও হকারের মতো গূঢ় গানকে জনপ্রিয়তা দিয়েছেন। আইয়ুব বাচ্চু এ সময়টায় কেন প্রয়োজনীয় ছিলেন এসব থেকেই বুঝা যায়।
একদিন ঘুম ভাঙা বাংলাদেশে তিনি থাকবেন না, এ জানতেন এবি। আসলে কোনো এক দিন কেউ থাকবে না। পড়ে থাকবে যাপিত জীবন, চন্দ্রালোক, মেঠোপথে রাখালের বাঁশি। তবুও রাত জাগবে, চাঁদ জাগবে, ঘুম পাড়ানির গান হবে। এ গানে থেকে যাওয়ার যোগ্যতা এবির হয়েছে। তাই তিনি শ্রেষ্ঠ। 
ভালো থাকুন আপনি, মাটির পরশে, দেহের দামে, স্রষ্টার নিগূঢ়ে। জয়তু কারিগর। আপনার আত্মা শান্তি পাক। 
সবশেষে বলতে হয় আপনি কি জানেন সেই আপনি এখন কত অচেনা? সেই আমরা কতটা বদলে গেছি? 
ভালেবাসা এবি। ভালোবেসেই এবি। 


রায়হান উল্লাহ : কবি ও সাংবাদিক।
 



এ সম্পর্কিত খবর

কারামুক্তির ১১ বছর পূর্তিতে শেখ হাসিনাকে সংগঠনের নেতৃবৃন্দের শুভেচ্ছা

কারামুক্তির ১১ বছর পূর্তিতে শেখ হাসিনাকে সংগঠনের নেতৃবৃন্দের শুভেচ্ছা

এওয়ান নিউজ: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তির ১১তম বর্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং এর সহযোগী সংগঠনের

মাতৃত্বকালীন ছুটি শেষে কেন উদ্বেগে থাকেন মায়েরা

মাতৃত্বকালীন ছুটি শেষে কেন উদ্বেগে থাকেন মায়েরা

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশে একজন মা যখন মাতৃত্বকালীন ছুটিতে থাকেন, তখন তার দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে

নারায়ণগঞ্জে কয়েলের আগুনে একই পরিবারের চারজন দগ্ধ  

নারায়ণগঞ্জে কয়েলের আগুনে একই পরিবারের চারজন দগ্ধ    

নারায়ণগঞ্জ প্রতিবেদক: নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় মশার কয়েল থেকে আগুনে একই পরিবারের চারজন দগ্ধ হয়েছেন।সোমবার ভোর সাড়ে


ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বড় ব্যবধানেই হারলো মাশরাফিবাহিনী

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বড় ব্যবধানেই হারলো মাশরাফিবাহিনী

ক্রীড়া ডেস্ক: বিদেশের মাটিতে পয়া মাঠ হিসেবে খ্যাত কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেন্সে অবশেষে হারের মুখ দেখলো

ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস আজ

ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস আজ

এওয়ান নিউজ: ঐতিহাসিক ছয়-দফা দিবস আজ। ১৯৬৬ সালের ৭ জুন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর

মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার অক্ষুন্ন রাখতে সরকার বদ্ধপরিকর: প্রধানমন্ত্রী

মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার অক্ষুন্ন রাখতে সরকার বদ্ধপরিকর: প্রধানমন্ত্রী

এওয়ান নিউজ: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ঐতিহাসিক ৭ই জুনসহ সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলন ও সংগ্রামের চেতনায়


নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে লড়াই করে হেরে গেল বাংলাদেশ  

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে লড়াই করে হেরে গেল বাংলাদেশ  

স্পোর্টস ডেস্ক: শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে হেরে গেল বাংলাদেশ। স্বল্প পুঁজি নিয়েও দুর্দান্ত লড়াই করেছেন সাইফউদ্দিন-মোসাদ্দেক-সাকিব-মিরাজরা। ইনিংসের

অসহায় পথশিশুদের মাঝে ছাত্রলীগ নেতা সারোয়ার হোসাইন চৌধুরীর নগদ অর্থ বিতরণ

অসহায় পথশিশুদের মাঝে ছাত্রলীগ নেতা সারোয়ার হোসাইন চৌধুরীর নগদ অর্থ বিতরণ

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে সিলেট নগরীতে অহসহায় পথ শিশুদের মধ্যে দক্ষিন সুরমা উপজেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র

ফিনল্যান্ডে আবার এলো খুশির ঈদ

ফিনল্যান্ডে আবার এলো খুশির ঈদ

জামান সরকার, হেলসিংকি থেকেঃ ঈদ মানেই আনন্দ আর ফুর্তি। শুধু আনন্দ নয় মহাউৎসবও। এক মাস রোজা



আরো সংবাদ


আমরা কোথায় আছি

আমরা কোথায় আছি

২০ মে, ২০১৯ ১২:৫১



পাকিস্তানি ভূত

পাকিস্তানি ভূত

০১ মে, ২০১৯ ১২:২১


প্রিয় নুসরাত

প্রিয় নুসরাত

২৭ এপ্রিল, ২০১৯ ১১:৫০

ব্যর্থ বিএনপির মিডিয়া উইং

ব্যর্থ বিএনপির মিডিয়া উইং

২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:১১

“সবই আছে, নেই শুধু নুসরাত”

“সবই আছে, নেই শুধু নুসরাত”

২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ১৪:২৩

আর কতো লাশ চায় রাজউক

আর কতো লাশ চায় রাজউক

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:৪৭

এ সংক্রামক ব্যাধিকে রুখতেই হবে

এ সংক্রামক ব্যাধিকে রুখতেই হবে

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১২:২০



ব্রেকিং নিউজ