বিভাগ - সারাদেশ

আদিতমারীতে স্বামীর বিরুদ্ধে শাসরুদ্ধে স্ত্রীকে হত্যা অভিযোগ

প্রকাশিত

মোস্তাফিজুর রহমান লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধিঃলালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় কমলাবাড়ী ইউনিয়নের চন্দনপাট মাঝিটারী এলাকায় দুই সন্তানের জননী জেসমিন আক্তার (২৫) নামের এক গৃহ বধুকে যৌতুকের জন্য তার স্বামী শাসরুদ্ধ করে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে।বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট করার জন্য মরদেহ মর্গে প্রেরন করে। এ ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে নিজ ঘরে তার স্ত্রীর লাশ ঝুলিয়ে রেখে লম্পট স্বামী এলাকা থেকে ছিটকে পড়ে।

এ ঘটনায় গৃহবধুর মামা জসিম উদ্দিন বাদী হয়ে রাতে থানায় লম্পট স্বামী স্বামী আশরাফুল ইসলাম ওরফে হাসু (৩২) নামের থানায় যৌতুক ও হত্যা মামলা দায়ের করে।পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার কমলাবাড়ী ইউনিয়নের শংকরটারী এলাকার মৃত জালাল উদ্দিনের মেয়ে জেসমিন আক্তার সহিত কমলাবাড়ী ইউনিয়নের চন্দনপাট বুড়ীরদিঘী মাঝিটারী এলাকার ফিরোজ মিয়া ওরপে পিরুর ছেলে আশরাফুল হাসুর সহিত ৭-৮ বছর পুর্বে মোটা অংকের যৌতুক দিয়ে বিবাহ হয়।বিয়ের পর থেকে হাসু হোটেলে ও তার স্ত্রী জেসমিন অন্যর বাড়ীতে ঝিয়ের কাজ করত এমনি কি সংসার ভালই চলছিল। বেশকিছু দিন থেকে জেসমিন রোজগারে টাকা এনে দিলেও তার কাছে আরও যৌতুকের দাবী করে প্রায় সময় তার স্বামী ও শশুর বাড়ীর লোকজন তাকে অমানুষিক নির্যাতনসহ মারধর করত। কয়েক দিন ধরে শ্বামী ও স্ত্রী মধ্যে ঝগড়া হয়। তার বাবা না থাকায় মা অন্যত্রে বিবাহ হওয়ার কারনে কেউ না থাকায় কোন বিচার বা শালিস হত না।এদিকে বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) দুপুরে লম্পট স্বামী হোটেল থেকে কাজ শেষে তার স্ত্রীর ভাত হতে দেড়ি হওয়ায় তাকে প্রচন্ডভাবে ডাং মাইরে হত্যা করে স্ত্রীর লাশ নিজ ঘরের বাঁশের ধন্যার ওড়নার সাথে পেঁচিয়ে রাখে। পরে নিজেকে ঢাকতে চিৎকার করে এবং এলাকার লোকজন ছুটে আসে বলতে থাকে তার স্ত্রী নিজে গলায় রশি পেঁচিয়ে আত্নহত্যা করেছে। বেচেঁ আছে বলে তার স্ত্রী লাশ তড়িগড়ি করে নিচে নামিয়ে পল্লী চিকিৎসককে খবর দেয়। পরে পল্লী চিকিৎসক এসে মৃত ঘোষনা করে।মামলার বাদী গৃহবধুর মামা জসিম উদ্দিন জানান, বাপ-মা হারা এতিম মেয়েটি আমরা কোন রকমভাবে অন্যর সাহায্য সহযোগিতা যৌতুক দিয়ে বিবাহ দিয়েছি। তার শশুর,শাশুড়ী ও স্বামী আরও যৌতুকের জন্য প্রায় সময় নির্যাতন করত এবং তার স্বামী একমাত্র যৌতুকের জন্য আমার ভাগ্নীকে হত্যা করেছ।আদিতমারী থানার ওসি সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে থানায় তার স্বামীর নামে যৌতুক ও হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে মৃত্যূর প্রকৃত কারণ পরিবার জানাতে পারেনি।