আমেরিকার সঙ্গে আর শীর্ষ বৈঠকের প্রয়োজন নেই: উত্তর কোরিয়া

প্রকাশিত

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: ওয়াশিংটন সব বিষয়ে মীমাংসার প্রস্তাব নিয়ে না এগোলে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আর কোনো বৈঠকের প্রয়োজন নেই। এ কথা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং–উনের বোন কিম ইয়ো জং।

আজ শুক্রবার এএফপির খবরে জানানো হয়, কিম জং–উন ও ট্রাম্প দুই বছর আগে সিঙ্গাপুরে প্রথম বৈঠক করেন। ওই সময় পিয়ংইয়ংয়ের পারমাণবিক অস্ত্র নিয়ে আলোচনা স্থগিত হয়ে যায়। কারণ, ২০১৯ সালে হ্যানয় সম্মেলনে উত্তর কোরিয়া জানায়, নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলে তারা পারমাণবিক কর্মসূচি বন্ধ করবে।

খবরে জানা যায়, ট্রাম্প এ সপ্তাহে বলেন, তিনি আবার কিমের সঙ্গে আলোচনা করবেন। এই বৈঠক আসন্ন নির্বাচনে তাঁর ভাবমূর্তি রক্ষায় সহায়ক হতে পারে বলে আশা ট্রাম্পের।

তবে ট্রাম্পের সে আশায় পানি ঢেলে দিয়ে কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সিকে দেওয়া বিবৃতিতে কিম ইয়ো জং বলেন, এখন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের আলোচনায় বসার কোনো প্রয়োজন নেই। এ সময় পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে আলোচনা সম্ভব নয়।

কিম ইয়ো জং বলেন, ওই বৈঠকে কেবল অন্য পক্ষের গর্বই প্রকাশ পাবে। তারা নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার মতো বড় পদক্ষেপ নিলেই বৈঠক সম্ভব। এই বিবৃতি নিজস্ব ব্যক্তিগত দৃষ্টিভঙ্গি বলে জানান কিম ইয়ো জং। তিনি বলেন, ভাই কিম জং–উন তাঁর ওপর আস্থা রাখেন এবং তিনি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

ওয়াশিংটন দক্ষিণাঞ্চলে ২৮ হাজার ৫০০ সেনা মোতায়েন করেছে। জাপান ও প্রশান্ত মহাসাগরের বিস্তৃত অঞ্চলেও ওয়াশিংটনের সামরিক সরঞ্জাম মজুত রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের হামলা থেকে রক্ষা পেতেই পারমাণবিক অস্ত্র প্রয়োজন বলে মনে করে পিয়ংইয়ং।

কিম জং উন গত বছরের ডিসেম্বর মাসে পরমাণবিক ও ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার ওপর স্থগিতাদেশ শেষ বলে জানান। উত্তর কোরিয়ার প্রতি সহিংস মনোভাব বদল না করা পর্যন্ত ওয়াশিংটনের সঙ্গে পিয়ংইয়ং আর কোনো আলোচনা করবে না বলেও তিনি জানান।