বিভাগ - সারাদেশ

আসবাবপত্রসহ ৪৮ লাখ টাকা নিয়ে পালিয়ে যাওয়ায় স্ত্রীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ স্বামীর

প্রকাশিত

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি কান্দাপাড়া এলাকার মুনসুর আলির স্ত্রী খাতিজা আক্তার শিমু পরকীয়ার টানে বাড়ি ও জমি বিক্রির ৪৬ লাখ টাকা ও অন্তত ২ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে পালিয়েছে বলে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। স্বামী মুনসুরকে মিথ্যা কথা বলে চট্টগ্রাম পাঠিয়ে গত ২৭ নভেম্বর রাতে ফতুল্লার পঞ্জবটি গুলশান রোড এলাকার বাসা থেকে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় শনিবার ফতুল্লা থানায় স্ত্রী ও তার ভাইয়ের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করা হয়।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর থানার বিনন্দপুর এলাকার মুজাফ্ফর পাটোয়ারীর মেয়ে খাদিজা আক্তার শিমুকে আগের সংসারের একটি ছেলে সন্তানসহ পারিপারিক সম্মতিতে ২০০৯ সালে বিয়ে করেন মৃত আব্দুল করিমের ছেলে মুনসুর আলি। এটা মুনসুরেরও দ্বিতীয় বিয়ে। তাদের সংসারে একটি মেয়ে সন্তানের জন্ম হয়। এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে সুখেই চলছিল তাদের সংসার। কিন্তু গত ১ বছর আগে শিমু অন্য একজনের সাথে পরকীয়াতে জড়িয়ে পড়ে। এর পর থেকেই সৃষ্টি হয় অশান্তি। ব্যাংক একাউন্ট না থাকায় মুনসুর জমি ও বাড়ি বিক্রির ১ কোটি ১ লাখ টাকা ঘরেই রেখে ছিলেন। স্বামী মুনসুরকে না জানিয়ে স্ত্রী শিমু তার ভাইকে বিদেশ পাঠানো ও পরকীয়া প্রেমিককে ওই টাকা থেকে ৫৫ লাখ টাকা দিয়ে দেয়। সংসার ঠিকিয়ে রাখতে মুনসুর তা মেনে নেয়। গত ২৭ নভেম্বর লিটন নামে শিমুর এক আত্নীয় বিদেশ থেকে টাকা পাঠিয়েছে এমন মিথ্যা কথা বলে মুনসুরকে চট্টগ্রাম পাঠায় টাকা আনার জন্য। স্ত্রীর প্রতি বিশ্বাস রেখে মুনসুর চট্টগ্রাম গিয়ে লিটন নামে কোন লোকের খোঁজ না পেয়ে বাসায় ফিরে এসে দেখে দুই সন্তানসহ ঘরে থাকা ৪৬ লাখ টাকা ও সকল আসবাবপত্র নিয়ে স্ত্রী শিমু পালিয়েছে। স্ত্রীর আপন ভাই মো: মোস্তফা ও অঞ্জাত ৪/৫ জনকে নিয়ে বাসার মালামাল ট্রাকে করে নিয়ে গেছে বলে প্রতিবেশীদের মাধ্যমে জানতে পারে মুনসুর। পরে স্ত্রীর ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারে ফোন করলে অকথ্য ভাষায় গালাগালি ও বিভিন্ন হুমকি ধমকি দেয়। তবে স্ত্রীর অবস্থান জানতে পারছেনা মুনসুর। তাই তিনি আইনের আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানান।অভিযোগের তদন্ত প্রাপ্ত এসআই ফজলুল হক জানান, তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।