বিভাগ - খেলাধুলা

এসএ গেমসে প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সফলতা অর্জন করেছে বাংলাদেশ

প্রকাশিত

খেলাধুলা ডেস্ক: নেপালে সদ্য সমাপ্ত ত্রয়োদশ সাউথ এশিয় (এসএ) গেমসে প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সফলতা অর্জন করেছে বাংলাদেশের ক্রীড়াবিদরা। ১৯টি স্বর্ণ পদক নিয়ে নতুন এক ইতিহাস গড়েছে তারা। জয় করেছে এসএ গেমসের ইতিহাসে নতুন রেকর্ড। ছাড়িয়ে গেছে ২০১০ সালের এসএ গেমসের স্বর্ণ পদক জয়। ওই আসরে ১৮টি স্বর্ণ পদক জয় করেছিল বাংলাদেশ।

এবারের আসরে বাংলাদেশ দলের সবচেয়ে বড় সফলতা আরচারিতে। ওই ইভেন্টের ১০টি ডিসিপ্লিনের সবকটিতেই স্বর্ণ পদক জয় করে নিয়েছে বাংলাদেশের তীরন্দাজরা। পুরুষ দলগত ইভেন্টের ফাইনালে মো. রোমান সানা, মোহাম্মদ তামিমুল ইসলাম ও মোহাম্মদ হাকিম আহমেদ রুবেলকে নিয়ে গঠিত বাংলাদেশ ৫-৩ সেটে ব্যবধানে শ্রীলংকাকে পরাজিত করে স্বর্ণ পদক জয় করেন। রিকার্ভ মহিলা দলগত ইভেন্টের ফাইনালে মোসাম্মৎ ইতি খাতুন, মেহনাজ আক্তার মনিরা ও বিউটি রায় ৬-০ সেটের ব্যবধানে শ্রীলংকাকে হারিয়ে জিতে নেন স্বর্ণ পদক। রিকার্ভ মিশ্র দলগত ইভেন্টের ফাইনালে মো. রোমান সানা ও ইতি খাতুনের বাংলাদেশ ৬-২ সেটে ভুটানকে হারিয়ে সোনার পদক জয় করেন।

কম্পাউন্ড পুরুষ দলগত ইভেন্টের ফাইনালে মো. সোহেল রানা, অসীম কুমার দাস ও মোহাম্মদ আশিকুজ্জামানকে নিয়ে গঠিত বাংলাদেশ ২২৫-২১৪ স্কোরের ব্যবধানে ভুটানকে হারিয়ে স্বর্ণ পদক জয় করেন। কম্পাউন্ড মহিলা দলগত ইভেন্টের ফাইনালে সুস্মিতা বনিক, সুমা বিশ্বাস ও শ্যামলী রায় ২২৬-২১৫ স্কোরের ব্যবধানে শ্রীলংকাকে হারিয়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করেন। কম্পাউন্ড মিশ্র দলগত ইভেন্টের ফাইনালে মো. সোহেল রানা ও সুস্মিতা বনিক ১৪৮-১৪০ ব্যবধানে স্বাগতিক নেপালকে হারিয়ে বাংলাদেশের জন্য স্বর্ণ পদক জয় করেন।

আরচারির একক ইভেন্টেরও সবকটি স্বর্ণ জয় করে বাংলাদেশ। মহিলাদের একক কম্পাউন্ডে সোমা বিশ্বাস শ্রীলংকার অনুরাধা করুনারত্নেকে ১৪২-১৩৪ পয়েন্টে এবং পুরুষ বিভাগে সোহেল ভুটানের তানদিন দর্জিকে ১৩৭-১৩৬ পয়েন্টে হারিয়ে স্বর্ণপদক জয় করেন। মহিলাদের রিকার্ভ এককে ভুটানের সোনম ডেমাকে হারিয়ে স্বর্ণ পদক জয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের ইতিহাস গড়ার উৎসবে যোগ দেন ১৪ বছর বয়সী ইতি খাতুন। আরচারি থেকে বাংলাদেশের ১০ম ও শেষ স্বর্ণ পদকটি জয় করেন দেশ সেরা তীরন্দাজ রোমান সানা। পুরুষ রিকার্ভের একক ইভেন্টের ফাইনালে ভুটানের কিনলে টিজেরিংকে ৭-১ সেট পয়েন্টে হারিয়ে স্বর্ণ জয় করেন তিনি।

শ্রীলংকাকে ৭ উইকেটে হারিয়ে পুরুষ ক্রিকেট দল স্বর্ণ পদক জয় করলে অতীত রেকর্ড ছাড়িয়ে যায় বাংলাদেশ। এর আগে, বাংলাদেশের মহিলা ক্রিকেট দল এসএ গেমসের ইতিহাসে প্রথম স্বর্ণ পদকের দেখা পায় শ্রীলংকাকে দুই রানে হারিয়ে।

এর বাইরে ভারোত্তোলন ও ফেন্সিং থেকেও তিনটি স্বর্ণপদক জয় করে বাংলাদেশ। মাবিয়া আকতার সীমান্ত ও জিয়ারুল ইসলাম ভারোত্তালন থেকে এবং ফাতেমা মুজিব ফেন্সিং থেকে স্বর্ণ পদক জয় করেন। অবশ্য বাংলাদেশের প্রথম স্বর্ণ পদকটি জয় করেছিলেন তায়কোয়ান্দো থেকে দিপু চাকমা।

এবারের এসএ গেমস থেকে সর্বমোট ১৩৮টি পদক জয় করেছে বাংলাদেশের অ্যাথলেটরা। এর মধ্যে ১৯টি স্বর্ণ, ৩২টি রৌপ্য ও ৮৭টি ব্রোঞ্জ পদক। সব মিলিয়ে ৭ দেশের অংশগ্রহণে এই গেমসের পদক তালিকায় পঞ্চম অবস্থানে বাংলাদেশ।

এই তালিকার শীর্ষে রয়েছে ভারত। তাদের সর্বমোট পদক সংখ্যা ৩১২টি। এর মধ্যে রয়েছে ১৭৪টি স্বর্ণ, ৯৩টি রৌপ্য ও ৪৫টি ব্রোঞ্জ পদক। ৫১টি স্বর্ণ, ৬০টি রৌপ্য ও ৯৫টি ব্রোঞ্জ পদক সহ সর্বমোট ২০৬টি পদক নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় অবস্থান লাভ করেছে স্বাগতিক নেপাল। ২৫১টি পদক নিয়ে তালিকার তৃতীয় স্থান নিশ্চিত করেছে শ্রীলংকা। ওই পদকগুলোর মধ্যে রয়েছে ৪০টি স্বর্ণ , ৮৩টি রৌপ্য ও ১২৮টি ব্রোঞ্জ পদক। ১৩১টি পদক নিয়ে তালিকার চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে পাকিস্তান। তারা সংগ্রহ করেছে ৩১টি স্বর্ণ, ৪১টি রৌপ্য ও ৫৯টি ব্রোঞ্জ পদক। তালিকার তলানিতে থাকা মালদ্বীপ একটি স্বর্ণ ও ৪টি রৌপ্যসহ মোট ৫টি পদক জয় করেছে।

উল্লেখ্য ১৯৮৪ সাল থেকে শুরু হওয়া এশিয়ান গেমসের প্রতিটি আসরেই তালিকার শীর্ষস্থানটি দখল করে রেখেছে ভারত।