করোনার দু:সময়ে সত্তরোর্ধ্ব ব্যক্তিদের মুক্তি দিন : মোস্তফা

প্রকাশিত

করোনার ভয়াবহ থাবায় আক্রান্ত হচ্ছেন কারাবন্দিরাও মন্তব্য করে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব ও জাতীয় গণমুক্তি আন্দোলন আহ্বায়ক এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, ইতোমধ্যে সিলেট কারাগারে একজন বন্দি করোনায় মৃত্যুবরণ করেছেন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন করাবন্দিরা। বেশ কয়েকজন কারারক্ষী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। যা গভীর উদ্বেগের বিষয়।

তিনি বলেন, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যারা মারা যাচ্ছেন, তাদের বেশির ভাগই বয়স্ক। করোনাভাইরাস সংক্রমণে বয়স্করা বেশি ঝুঁকিতে আছেন। মারাত্মক ঝুঁকি বিবেচনায় বিভিন্ন দেশ কারাবন্দিদের মুক্তি দিচ্ছে। আমাদের দেশেও সাজাপ্রাপ্ত সত্তরোর্ধ্ব ব্যক্তিদের মুক্তি দেয়া উচিত। করোনার এই দু:সময়ে প্রবীণ আলেম আল্লামা দেলোয়ার হোসেন সাঈদী, দৈনিক সংগ্রাম আবুল আসাদসহ কারাবন্দি রাজবন্দিদের মুক্তির জোর দাবী জানান তিনি।

মঙ্গলবার (১৯ মে) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে তিনি এ দাবী জানান। তিনি আরো বলেন, করোনার এ ভয়াবহ দুর্যোগেও সরকারের নিপীড়ন থেমে নেই। সরকারি ত্রাণের অনিয়ম, চাল চুরি ও করোনা নিয়ে সমালোচনা করায় এ পর্যন্ত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গণমাধ্যমকর্মীসহ ৪১১ জনকে গ্রেফতার করেছে। বেশ কয়েকজন সম্পাদক ও সাংবাদিকের নামে ডিজিটার আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। যা স্বাধীন গণমাধ্যমের জন্য উদ্বেগের বিষয়।

তিনি বলেন, বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একের পর এক মামলার মাধ্যমে সাংবাদিক ও সংবাদমাধ্যমকে ভয়ের সংস্কৃতির পৃষ্ঠপোষকতা ‘মুক্ত ও স্বাধীন’ গণমাধ্যম তথা গণতন্ত্রের জন্য অশনিসঙ্কেত। দেশে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধের বিচারহীনতার প্রবণতা বাংলাদেশে গণতন্ত্রও হুমকির মুখে পড়তে পারে।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাস কয়েকশত বছরের মধ্যে একটি বহুল আলোচিত দুঃস্বপ্ন এবং আতঙ্ক। সমগ্র পৃথিবীর মানুষকে ঘরে ঢুকিয়ে দিয়েছে। সবকিছু একাকার করে দিয়েছে। কারণ আমরা অমানুষ হয়ে গেছি। আল্লাহর শাসন মানতে আমাদের অনীহা। যত্রতত্র মদ্যপান, বেহায়াপনা, সুদ, ঘুষ, মুনাফাখোরি, অবিচার, অনাচার, অত্যাচার, উলঙ্গতা, ক্ষমতার লোভ এবং অহংকার পৃথিবীকে গ্রাস করেছে।