করোনা শেখাচ্ছে, টাকা-পয়সাই সবকিছু না: ইরফান পাঠান

প্রকাশিত

স্পোর্টস ডেস্ক: লড়াই তো কত ভাবেই হচ্ছে। কেউ টাকা দিচ্ছেন, মানুষকে সচেতন করছেন কেউ। কেউ আবার করছেন দুটোই। যে যেভাবে পারছেন দাঁড়াচ্ছেন করোনাভাইরাসের বিপক্ষে। ঘরে বসে থাকাটাও এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ লড়াই।

ইরফান পাঠান করছেন দুটোই। সাহায্যের পাশাপাশি সচেতনও করছেন মানুষকে। পরশু যেমন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তিনি লিখেছেন, ‘করোনাভাইরাস অনেকটাই বোলিং মেশিনের মতো। অফ স্টাম্পের বাইরে মাপা জায়গায় বল করে। বের হয়ে যাওয়া ডেলিভারিগুলো আমরা যতক্ষণ না স্পর্শ করছি ততক্ষণ আমরা নিরাপদ এবং নিজেদের উইকেট বাঁচাতে পারব, দেশকে এই টেস্টে জেতাতে পারব।’

বিশ্বের ১৮৫টি দেশে সংক্রমিত হয়েছে করোনাভাইরাস। মৃতের সংখ্যা প্রায় দেড় লাখ। স্থবির হয়ে পড়েছে গোটা পৃথিবীর কর্মচাঞ্চল্য। থেমে গেছে প্রায় সবকিছু। এই সময়টা মানুষের জন্য বড় শিক্ষার বলেও মনে করেন ভারতের সাবেক এ পেসার। সংবাদমাধ্যম ‘টাইমস অব ইন্ডিয়া’কে সে কথাই বলেছেন ইরফান।

ভারতের হয়ে ২৯ টেস্ট ও ১২০ ওয়ানডে খেলা ইরফান বলেন, ‘এই ভাইরাসের কাছ থেকে পাওয়া সবচেয়ে বড় শিক্ষাটা হলো টাকা-পয়সাই সবকিছু না। জীবন-যাপন ভালো করতে আমরা সব সময় টাকার পেছনে ছুটেছি। কিন্তু মানুষ এখন সবকিছু ছেড়ে শুধু বাঁচতে চায়। ন্যূনতম প্রয়োজন মিটিয়েও তা সম্ভব।’

সংকটময় পরিস্থিতিতে দিন এনে দিন খাওয়া মানুষদের নিয়ে সবচেয়ে বেশি চিন্তিত ৩৫ বছর বয়সী এ সাবেক ক্রিকেটার। ভুক্তভোগীদের সাহায্যের সোজা পথটাও দেখিয়ে দেন ইরফান, ‘কারও কিছু দরকার, নিকটস্থ পুলিশকে জানান। কোনো পরিস্থিতি তৈরি করা কিংবা জনসমাগমের প্রয়োজন নেই। এই সময়টা কেটে গেলে ভাইরাস যেসব শিক্ষা দিয়ে গেল সেসবের ওপর ভিত্তি করে এগিয়ে যেতে হবে। স্বাস্থ্য ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা হবে অন্যতম প্রাধান্যের জায়গা। মানুষকে নমনীয় হতে হবে। সম্পদ অপচয় না করে সময় দিতে হবে পরিবারকে। সম্পদের পেছনে না ছুটে হতে হবে খোলা মনের মানুষ।’