কলাপাডা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের বর্জ্যদূষণের শিকার নাচনাপাডা এলাকাবাসীর সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত

রাসেল কবির মুরাদ , কলাপাড়া(পটুযাখালী)প্রতিনিধি ঃ কলাপাডা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স একটি আধুনিক স্বযংসম্পূর্ণ ক্ষমতাসম্পন্ন হাসপাতাল হওযা সত্ত্বেও তাদের বর্জ্য ব্যবস্থাপনায নেই কোন সঠিক ব্যবস্থাপনা। মঙ্গলবার কলাপাডা সাংবাদিক ক্লাবের অস্থায়ী কার্যালয এর প্রতিকার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন নাচনাপাডা ১ নং ওযার্ডের ভুক্তভোগী ৫০ টি পরিবারের পক্ষে মো: মীর আলআমিন, মো: কাইযুম, মোঃ নাসির। সংবাদ সম্মেলনের সময উপস্থিত ছিলেন কলাপাডা সাংবাদিক ক্লাবের সভাপতি নীলরতন কুন্ডু নিলয, সাধারণ সম্পাদক দোলন ঢালী, প্রচার সম্পাদক মোঃ আবু জাফর প্রদীপ, অর্থ সম্পাদক শান্তনু হাওলদার, সদস্য আসিবুল আহসান সিফাতসহ সাংবাদিক ক্লাবের অন্যান্য সাংবাদিকবৃন্দ। সংবাদ সম্মেলনের পরপরই কলাপাডা সাংবাদিক ক্লাবের সাংবাদিকবৃন্দ ভুক্তভোগী ব্যক্তিদের নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

স্থানীয় ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, হাসপাতাল কম্পাউন্ডের অভ্যন্তরে গর্তকরে সেখানে ফেলা হচ্ছে অপারেশনাল ক্লিনিক্যাল বর্জ্য, ব্যবহৃত সিরিঞ্জ, গ্লাভস, রোগীর ব্যবহৃত আবর্জনাসহ সকল ধরনের ভযাবহ দূষণকারী আবর্জনা। বৃষ্টির পানিতে মিশে এই বর্জ্য গিয়ে পডছে পাশের একটি বড পুকুরে। হাসপাতালের পশ্চিম পাশের ওই পুকুরের পানি ব্যবহার করছেন কলাপাডা পৌরশহরের এক নং ওযার্র্ডের নাচনাপাডা এলাকায স্থানীয ৫০/৬০ টি পরিবার। মাঝে মাঝে এই বর্জ্যগুলো আগুন দিয়ে পোডার কারণে প্রচুর দুর্গন্ধ ও ধোযার সৃষ্টি হয, এর ফলে সংশ্লিষ্ট এলাকার শিশু-বৃদ্ধ সহ অন্যান্য বাসিন্দারা শ্বাসকষ্টে ভুগছেন।

এ বিষয কলাপাডা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: চিন্ময হাওলাদার বলেন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সমাধানের লক্ষ্যে হাসপাতাল কম্পাউন্ডার বাইরে একটা ডাস্টবিন করার ব্যবস্থা করা হযেেছ। স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর পটুযাখালীর সহকারী প্রকৌশলীকে এ বিষয় জানানো হযেেছ। এই কাজটি তাদের আওতাধীন।

হাসপাতাল কম্পাউন্ডের বাহিরে কেন এখনো ডাস্টবিন নির্মাণ হলো না স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর পটুযাখালী’র সহকারী প্রকৌশলী মোঃ শাওন শাহরিযার মুঠোফোনে জানতে চাইলে এ প্রতিবেদককে বলেন, কলাপাডা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কম্পাউন্ডের বাহিরে ২০দ্ধ৫ ফিট একটি ডাস্টবিন নির্মাণ করার কথা কলাপাডা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে এই কাজটি অতিদ্রুত করতে বলা হয়েছে, কিন্তু করোনা ভাইরাস লকডাউন সংক্রান্ত সমস্যায লেবার সংকটের কারণে কাজটি করা যাচ্ছে না। লেবার পাওযা গেলে অচিরেই কলাপাড়া হাসপাতালে ডাস্টবিন নির্মাণ করে দেযা হবে বলে তিনি নিশ্চিত করেন।