বিভাগ - সারাদেশ

কলাপাড়ায় এনএসআই’র (এক্স) পরিচালকের বাসায় সন্ত্রাসী হামলা, পুলিশি পাহারা

প্রকাশিত

রাসেল কবির মুরাদ , কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি ঃ কলাপাড়ায় এনএসআই’র সাবেক পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মো: হাবিবুর রহমান মিলনের বাসায় দূর্বৃত্তরা হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় বাসার কাছে বিস্ফোরন ঘটানোর অভিযোগ করেছেন এনএসআই’র সাবেক পরিচালকের পরিবারের সদস্যরা। ঘটনার পর কলাপাড়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আহম্মেদ আলী, ওসি মনিরুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এবং নিরাপত্তার জন্য সাদা পোষাকে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

বিগ্রেডিয়ার হাবিবুর রহমান জানান, ’আগামী ২৭ নভেম্বর কলাপাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন উপলক্ষে তিনি ও তার বড় ভাই সাবেক পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী ও কলাপাড়ার সাবেক এমপি মাহবুবুর রহমান তালুকদার স্বপরিবারে বাসায় উপস্থিত ছিলেন। রাত ৮টার দিকে ছাত্রলীগ নেতা আশিক তার দলবল নিয়ে বাসার সামনে এসে বিভিন্ন ধরনের উস্কানিমূলক শ্লোগান দেয়। এসময় শ্লোগানে বলা হয় ’কলাপাড়ার মাটি মুহিব’র ঘাঁটি’। এছাড়া হাবিব ও তার ভাই মাহবুবকে কলাপাড়া ছেড়ে যাওয়ার জন্য উস্কানিমূলকভাবে অশ্লীল ভাষায় কটুক্তি করা হয়। তিনি আরো জানান, ’ঠিক তখনই মিছিলে অংশ নেয়া কতিপয় দূর্বৃত্ত তাদের বাসার স্টীলের গেট ভাংচুরের চেষ্টা করে। এরপর বাসার সন্নিকটে একটি বিস্ফোরনের শব্দ শোনা যায়। ’কলাপাড়ায় আসার আগে আমি প্রশাসনকে অবহিত করেছি। ঘটনার পর পটুয়াখালী পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অবহিত করার পর থানার ওসি ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বাসায় এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সাদা পোষাকের পুলিশ মোতায়েন করেছে।’

অপরদিকে সাবেক পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহবুবুর রহমান জানান, ’আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ তাদের লালিত সন্ত্রাসী বাহিনী দ্বারা ত্রাসের রাজস্ব কায়েম করতে চাচ্ছে এবং আমাকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করাতে চাচ্ছে।’ তিনি আরো জানান, ’আগামী ২৭ তারিখের সম্মেলনে আমি অংশগ্রহন করবো ইনশাআল্লাহ।’

কলাপাড়া থানার ওসি মোঃ মনিরুল ইসলাম জানান, ’বাসায় হামলা হয়নি তবে সামনের গেটে ধাক্কাধাক্কি করেছে। তাছাড়া বিস্ফোরণের বিষয়টি সঠিক নয় বলে জানান তিনি। ’ঘটনার পর থেকে পরিবারটির নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য তাদের লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে।’

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কলাপাড়া থানায় এ বিষয়ে কোন লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন কলাপাড়া থানার কর্তব্যরত ডিউটি অফিসার এএসআই মো: আখতার হোসেন।