কলাপাড়ায় ঘুর্নিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্থদের ঘর নির্মানে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী

প্রকাশিত

রাসেল কবির মুরাদ , কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি ঃ কলাপাড়ায় ঘুর্ণিঝড় আম্ফানের তান্ডবে গৃহহারা অসহায় মানুষের পূণর্বাসনে এগিয়ে এসেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সদস্যরা। টিয়াখালী ইউনিয়নের রজপাড়ায় এলাকায় বরিশাল বিবাগের শেখহাসিনা সেনানিবাসের ৪২ ফিল্ডের মেজর আতাউরের নেতৃতে তিনটি ঘর নির্মান করে দেয়া হয়। ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তান্ডবে এসব ঘর সম্পূর্ণরূপে বিধ্বস্ত হয়। তাদের পরিবার-পরিজন নিয়ে যখন খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছিল ঠিক সেই মুহুর্তে বাংলঅদেশ সেনাবাহিনীর গর্বিত সদস্যরা ঘরগুলো নির্মাণ করে ক্ষতিগ্রস্থ মোহাম্মদ জাহিদ, আলম সিকদার ও নাজমা বেগমকে হস্তান্তর করেছেন।

ক্ষতিগ্রস্থ্য কলাপাড়ার মদিনা তুল উলুম নুরানী মহিলা মাদ্রাসার শিক্ষক আল আমিন বলেন, ঘূর্ণিঝড় আম্পানে তার ঘরটি সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত করে দেয়। মা-বাবা ও দুই কন্যা সন্তান নিয়ে তিনি বিপাকে পড়েন। ঠিক সেই সময়ে সেনাবাহিনী সদস্যরা কঠোর পরিশ্রম করে তার জন্য ঘর নির্মাণ করে দেয়ায় তিনি খুশি এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন সেনা বাহিনীর প্রতি।

এ ব্যাপারে শেখ হাসিনা সেনা নিবাসের সপ্তম পদাতিক ডিভিশনের সাত অর্টিলারি ব্রিগেডের ৪২ ফিল্ডের ক্যাপ্টেন ওয়াসিফ জানান, ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে কলাপাড়ায় ক্ষতিগ্রস্থ্য গৃহহারাদের তালিকা করে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে তাদের নতুন ঘর নির্মান করে দেয়া হবে। এর আগে তারা আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্থ্য দুই শতাধিক পরিবারের মাঝে ত্রান সহায়তা প্রদান করেছেন।

উল্লেখ্য, ঘূর্ণিঝড় আম্পানে কলাপাড়ার ৭২৪ টি ঘর সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়। আংশিক ক্ষতিগ্রস্থ্য হয় পাঁচ হাজার ৪৫৫ টি ঘর । যার তালিকা উপজেলা প্রশাসন জেলা প্রশাসনের কাছে প্রেরণ করেছে।