বিভাগ - সারাদেশ

কাউনিয়ায় উপজেলা প্রকৌশল দপ্তর দুর্নীতির স্বর্গরাজ্যে পরিনত, কর্তৃপক্ষ নিরব দর্শক

প্রকাশিত

কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি ঃ রংপুরের কাউনিয়া উপজেলা প্রকৌশল দপ্তর (এলজিইডি) দুর্নীতির স্বর্গরাজ্যে পরিনত হলেও এ যেন দেখার কেউ নেই। অনিয়মই যেন এখানে নিয়মে পরিনত হয়েছে।

অভিযোগে জানাগেছে উপজেলা প্রকৌশলী সৈয়দ জায়েদবীন মাসুদ যোগদানের পর থেকেই বিভিন্ন কাজে অনিয়ম বৃদ্ধি পেয়ে বর্তমানে ব্যাপক আকার ধারন করছে। নিয়ম বর্হিভুত ভাবে ঠিকাদারদের কাছ থেকে উৎকোচ গ্রহন তাঁর নিত্যদিনের বিষয়ে পরিনত হয়েছে। উৎকোচ না দিলে কোন বিল স্বাভাবিক ভাবে পার হয় না। ইতোমধ্যে এডিপির টেন্ডার ইজিপি লটারীতে যে সব ঠিকাদার কাজ পেয়েছেন তাদের কাছ থেকে উপজেলা প্রকৌশলী প্রকাশ্য ৫ থেকে ১০ হাজার টাকা নিয়েছেন। কারন হিসেব তিনি দেখান এখানে ইজিপির কাজ করার লোক নাই, তাই অন্য লোক দিয়ে কাজ করাতে হয়েছে, সেই খরচ বাবদ টাকা চাওয়া এবং নেয়া হয়েছে। সর্বশেষ উপজেলার টেপামধুপুর ইউনিয়ন পরিষদের মেরামতের কাজের টেন্ডার আহবান করা হয়, যার আইডি নম্বর ৪৬৬৪৮১, কাজের মূল্য ১৫ লাখ টাকা। সেই কাজটির লটারী হয়েছে কাউনিয়ার ঠিকাদের অনুপস্থিতিতে পীরগাছায়। কখন হয়েছে কিভাবে হয়েছে তাও জানেনা কাউনিয়ার ঠিকাদাররা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন ঠিকাদার জানান কাউনিয়া উপজেলা প্রকৌশলীর অনুমতি সাপেক্ষে পীরগাছায় একজন অফিস সহকারী আরিফুল ইসলাম আরিফ এর মাধ্যেমে তারা সিস্টেম করে অন্য এলাকার ঠিকাদের সিডিউল গুলো ব্লোক করে দিয়ে তাদের মননিত কয়েকজনের সিডিউল রেখে গত বৃহস্পতিবার লটারী করেছে। কাউনিয়ার কোন ঠিকাদার জানেনা। টেপামধুপুর ইউনিয়ন পরিষদ মেরামত এর কাজের টেন্ডারে সিডিউল ড্রপ করে ২৯৩ জন ঠিকাদার। সিডিউলের মূল্য ছিল ১০০০ টাকা করে। সিডিউল ড্রপ করার জন্য টেন্ডার সিকিউরিটি বাবদ প্রতি ঠিকাদার কে ৪৫ হাজার টাকা করে পে-অডার জমা দিতে হয়েছে যা সব মিলে ১ কোটি ৩১ লাখ ৮৫ হাজার টাকা। এরকম হাজারও অনিয়ম তিনি করেই চলেছেন। বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ অনান্য দপ্তরের কাজের ইস্টিমেট করতে গেলে টাকা ছারা কোন কাজ হয়না। বর্তমান প্রকৌশলী উৎকোচ ছারা কিছুই বুঝেন না।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ উলফৎ আরা জানান লটারীর করার বিষয় উপজেলা প্রকৌশলী আমাকে কিছুই জানায়নি, আমি এ বিষয়ে কিছুই জানি না। ঠিকাদাররা লিখিত অভিযোগ দিলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। এব্যাপারে জানার জন্য গত শুক্রবার সারে ১১টার দিকে উপজেলা প্রকৌশলী সৈয়দ জায়েদবীন মাসুদ এর সাথে মুঠ ফোনে ০১৭১২২৪৭৩৩৯ নস্বরে যোগাযোগ করলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।