কাউনিয়ায় বিনোদন কেন্দ্রে ধূমপায়ীদের কারনে স্বাস্থ্য ঝুঁকি বৃদ্ধি পাচ্ছে

প্রকাশিত

সারওয়ার আলম মুকুল, কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি ঃ সারাদেশেই ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রন) আইন অমান্য করেই চলেছে ধূমপায়ীরা। ধূমপায়ীদের কারণে তিস্তা রেল ও সড়ক সেতুসহ বিনোদন কেন্দ্রে পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। ফলে নির্মল পরিবেশে আনন্দ উপভোগ করতে আসা বিনোদন প্রেমিদের আগ্রহ কমে যাচ্ছে। এসব স্থানে প্রতিনিয়তই আইন অমান্য করলেও সেসব ধূমপায়ীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছেনা এমন অভিযোগ তুলে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন বিনোদন প্রেমিরা। একই সাথে ধূমপানের বিষাক্ত ধোঁয়া থেকে শিশুসহ সকলকে রক্ষা করতে তিস্তা সেতু বিনোদন কেন্দ্রে সার্বক্ষনিক আইন প্রয়োগের দাবি জানিয়েছেন বিনোদন প্রেমিরা। নয়তো, অদূর ভবিষ্যতে যত্রতত্র ধূমপানের কারণে কাউনিয়ার একমাত্র বিনোদন কেন্দ্রটি মানুষশূন্য হয়ে পড়বে বলে মন্তব্য করেছেন তারা। রংপুরে বিনোনদ প্রেমিদের বিনোদনের অন্যতম স্থানগুলো তিস্তা সেতু, ধুমনদী ও তফশীডাঙ্গা বীল। তিস্তা নদীর নৈস্বর্গিক দৃশ্য যে কাউকে আকৃষ্ট করবেই। বিকাল হলেই তিস্তা নদীর সৌন্দর্য্য অবলোকনে শিশু থেকে বৃদ্ধদের উপচেপড়া ভিড় যেন লেগেই থাকে। কিন্তু নির্মল তিস্তার ¯িœগ্ধ-কোমল বিশুদ্ধ বাতাস এখন ধূমপায়ীদের ধূমপানের ধোঁয়ায় বিষাক্ত হয়ে উঠেছে। ফলে প্রতিদিনই নির্মল বিনোদন নিতে আসা শিশুসহ হাজারো বিনোদনপ্রেমিরা ক্রমেই ধূমপায়ীদের বিষাক্ত নিকোটিনের ধোঁয়ার কবলে পড়ে চরম স্বাস্থ্য ঝুঁকির দিকে ধাবিত হচ্ছে। তিস্তা সেতু এলাকা ঘুরে দেখা গেছে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা বিনোদন প্রেমিদের পদচারণায় মুখর রয়েছে। কিন্তু এখন নির্মল পরিবেশে থাকা হাজারো মানুষের ভিড়ের মধ্যেই ধূমপানের দৃশ্য হতবাক করে। তিস্তা সেতুতে বেড়াতে আসা নিজপাড়া গ্রামের মাহাবুবুবা স্মৃতি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, তিস্তা নদীর নির্মল বিনোদনের জন্য অত্যন্ত সুন্দর একটি পরিবেশ, এখানে শিশু, বৃদ্ধ সব বয়সের মানুষের সমাগম ঘটে। কিন্তু কাউনিয়া উপজেলা একমাত্র বিনোদন কেন্দ্রে কর্মজীবিদের সাথে পাল্লা দিয়ে স্কুল কলেজগামী কিশোর কিশোরীরাও দেদারছে ধূমাপান করছে, অথচ এ ব্যাপারে প্রশাসনের সংশ্লিষ্টদের কোনো পদক্ষেপ দেখা যাচ্ছে না। বিনোদন প্রেমীরা ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রন) আইন এর যথাযথ প্রয়োগের দাবী জানিয়েছেন।