কানাডার প্রধানমন্ত্রী ট্রুডোকে ‘দুমুখো’ বললেন ট্রাম্প

প্রকাশিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: নেটো জোটের সদস্যদের উত্তপ্ত বিতর্ক আর বিরোধের মধ্যে অনুষ্ঠিত এবারের সম্মেলনে নতুন মাত্রা যোগ করেছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পকে নিয়ে কানাডাসহ কয়েকটি দেশের নেতাদের হাসাহাসির ভিডিও।

ওই ভিডিওর প্রতিক্রিয়ায় কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোকে ‘দুমুখো’ বলে কটাক্ষ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। এছাড়াও তিনি একটি সংবাদ সম্মেলন বাতিল করেন এবং সময় সংক্ষিপ্ত করে সম্মেলন ছেড়ে চলে যান।

কানাডার সম্প্রচারমাধ্যম সিবিসি টুইটারে ভিডিওটি প্রকাশ করে। এতে দেখা গেছে, কানাডার প্রধানমন্ত্রী ট্রুডো, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ, ডাচ প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুত্তেসহ আরো কয়েকজন সম্মেলনের বৈঠক শুরুর আগে ট্রাম্পের তাৎক্ষণিকভাবে করা একটি প্রেস কনফারেন্স নিয়ে কথা বলছেন।

শুরুতেই জনসন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁকে জিজ্ঞেস করেন, তিনি এত দেরী করলেন কেন? কানাডার প্রধানমন্ত্রী ট্রুডো তখন তাদের এ কথার মধ্যে ফোড়ন কেটে বলেন, “তার দেরি হয়েছে কারণ তাকে তো ৪০ মিনিট সংবাদ সম্মেলনের পেছনেই ব্যয় করতে হয়েছে।” ট্রাম্পকে উপহাস করে ট্রুডো আরো কিছু কথা বলেন। তাদের কথা যে রেকর্ড হচ্ছে তা তারা কেউই বুঝতে পারেননি।

এরই প্রতিক্রিয়ায় ট্রাম্প পরে ট্রুডোকে ‘একজন দুমুখো মানুষ’ বলে মন্তব্য করেন। বুধবার জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা মের্কেলের পাশে বসে এক মন্তব্যে ট্রাম্প ট্রুডোকে চমৎকার মানুষ বলে উল্লেখ করলেও কানাডা যে নেটো জোটের প্রতিরক্ষায় ২ শতাংশও দিচ্ছেন না সেটিও ঢেরা পিটিয়ে বলেছেন ট্রাম্প।

তিনি বলেন, তাদের অর্থ আছে। তাদের উচিত ২ শতাংশ খরচ দেওয়া। ট্রুডো যা দিচ্ছেন তার চেয়ে বেশি দেওয়া উচিত এবং এটি ট্রুডো নিজেও বোঝেন বলেও ট্রাম্প উল্লেখ করেন।

লন্ডনে এবার নেটো জোটের ৭০ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দুইদিনের এ সম্মেলন একের সঙ্গে অপরের এমন ঠোকঠুকির মধ্য দিয়েই এগিয়েছে। তারপরও একতা এবং সংহতি বজায় রাখার চেষ্টাস্বরূপ নেতারা সম্মেলনের একটি যৌথ বিবৃতি ইস্যু করেছেন। এ বিবৃতিতে নিরাপত্তা বজায় রাখা এবং সবাই একযোগে ভবিষ্যতের দিকে নজর দেওয়ার কথা বলেছেন।

চীন এবং রাশিয়ার হুমকির বিষয়টি স্বীকার করে নিয়ে নেতারা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জোরাল ব্যবস্থা নেওয়ার অঙ্গীকার করেছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।