বিভাগ - সারাদেশ

কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ সম্মেলন ঘিরে সেজেছে চান্দিনা

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : আগামীকাল সোমবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। কুমিল্লা উত্তর জেলার রাজনৈতিক সদর দপ্তর চান্দিনা উপজেলার চান্দিনা মহিলা কলেজ মাঠে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ১৯ বছর পর উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সর্বশেষ সম্মেলন হয়েছিল গত ২০১৬ সালে। ১৯৯২ সালে কুমিল্লা জেলাকে সাংগঠনিকভাবে দুই ভাগে ভাগ করে কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠা করা হয়। ১৯৯৭ সালে চান্দিনার বর্তমান এমপি অধ্যাপক আলী আশরাফকে সভাপতি ও মুরাদনগরের জাহাঙ্গীর আলম সরকারকে সাধারণ সম্পাদক করে কুমিল্লা উত্তর জেলা আ.লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

এবার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন ৪ জন। এরা হলেন, সভাপতি প্রার্থী বর্তমান কমিটিসহ তিনবারের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলম সরকার ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক ম. রুহুল আমিন। এ দুজন সভাপতি প্রার্থী একই উপজেলার। অপরদিকে, সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে যারা আলোচনায় রয়েছেন তাদের দুজনও একই উপজেলার অধিবাসি। তারা হলেন, বর্তমান কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. রোশন আলী মাস্টার এবং বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ এম হুমায়ুন মাহমুদ। তারা দুজনেই দেবীদ্বার উপজেলার।

বর্তমান এই সম্মেলনে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।
সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হয়ে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বুড়িচং-ব্রহ্মণপাড়া আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও সাবেক আইনমন্ত্রী আব্দুল মতিন খসরু, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল-আলম হানিফ এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর ছাড়াও ৭ টি উপজেলা নিয়ে গঠিত কুমিল্লা উত্তর জেলার ৫টি আসনের সংসদ সদস্যগণ।

জেলা আওয়ামী লীগের এ সম্মেলন শান্তিপূর্ণভাবে শেষ করতে জেলা কমিটির পাশাপাশি উপজেলা, পৌর, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটিসহ দলটির সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছেন। সম্মেলনকে ঘিরে জেলাব্যাপী চলছে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণাও। জেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়কে স্থান পেয়েছে সম্মেলনের পোষ্টার,ব্যানার ও প্লেকার্ড।

এ ছাড়া দলটির বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন সম্মেলনের সফল ও স্বার্থক কামনা করে প্রতিদিন আনন্দ ও প্রচারনা মিছিল করছে। সম্মেলনের প্রস্ততি সম্পর্কে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল আউয়াল বলেন, উৎসবমুখর পরিবেশে সম্মেলন সম্পন্ন করতে ব্যাপক প্রস্ততি চলছে।সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে সম্মেলন হবে বলে আশাবাদ প্রকাশ করেন তিনি। তিনি বলেন, নেতৃত্ব নির্বাচনে নেত্রীর সিদ্ধান্তই চুড়ান্ত বলে মেনে নেওয়া হবে। কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ম. রুহুল আমিনকে আহ্বায়ক ও অধ্যক্ষ হুমায়ুন মাহমুদকে সদস্য সচিব এবং ২৬ জনকে সদস্য করে ২৮ সদস্যের সম্মেলন প্রস্ততি কমিটি গঠন করা হয়।

দলের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতি প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম সরকার বলেন, গত ২৭ বছর যাবৎ দলের জন্য কাজ করছি, কর্মীদের দুঃসময়ে পাশে গিয়ে দাঁড়িয়েছে, তাই আশা করি নেত্রী আমাকে হতাশ করবেন না। সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক ম. রুহুল আমিন বলেন, সময় মতো উপজেলা ও ইউনিয়ন সম্মেলন শেষ করতে না পারায় কেন্দ্রের নির্দেশে জেলার সম্মেলন আগে করা হচ্ছে, দলের জন্য যোগ্য ও ত্যাগীরা দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে আসবে বলে আশা করি।

সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী রোশন আলী মাষ্টার জানান, দলের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব কিছুই অবগত আছেন, তাই আশা করি ভবিষ্যতে দলের জন্য কাজ করে কর্মীদের পাশে থাকতে নেত্রী সুযোগ করে দেবেন। এদিকে, সম্মেলন স্থল ঘিরে গোটা চান্দিনা এখন নতুন সাজে সজ্জিত। সম্মেলনে প্রায় ২০০ জনকে কাউন্সিলর ও প্রায় দুই হাজার জনকে ডেলিগেট চূড়ান্ত করা হয়েছে।

এ সম্মেলনকে ঘিরে নেতাদের আনাগোনায় প্রাণ ফিরে পেয়েছে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সকল নেতাকর্মী।গত কয়েক মাস যাবত সম্মেলনকে ঘিরে জাতীয় দিবসের আলোচনা সভা কিংবা অন্য কোনো কর্মসূচি গুলোতেও স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নিচ্ছেন সকল নেতাকর্মী। নতুন এই কমিটিতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে কারা আসছেন এ নিয়েও চলছে জল্পনা-কল্পনা। সম্মেলন ঘিরে নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসাহ-উদ্দীপনা বিরাজ করছে।

উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ঘিরে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। এবারের সম্মেলনে তৃণমূল তাদের পছন্দের নেতা নির্বাচিত করতে নানা প্রস্তুতি নিয়েছে। সাংগঠনিক এ জেলার দেবিদ্বার, মুরাদনগর, দাউদকান্দি, হোমনা, মেঘনা, তিতাস ও চান্দিনা উপজেলার দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকরা সমবেত হবেন।