কেমন হতে যাচ্ছে ভবিষ্যতের পেশা

প্রকাশিত

এওয়ান নিউজ: তরুণদের ভবিষ্যতের ক্যারিয়ার ভাবনা নিয়ে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে আয়োজিত হল একটি ক্যারিয়ার টক। বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এই ক্যারিয়ার টকে উপস্থিত ছিলেন এমরাজিনা টেকনোলজিসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এমরাজিনা ইসলাম, সেলিসি সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট কোম্পানির বিজনেস এনালিস্ট তাশফিয়া নাবিলা ফরিদ এবং প্রেনিউর ল্যাব এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা রাখশান্দা রুখাম।

আলোচনার শুরুতে বিষয় সংশ্লিষ্ট বক্তব্য উপস্থাপন করেন দৈনিক প্রথম আলোর যুব কর্মসূচীর প্রধান এবং বিডিওএসএন এর সাধারন সম্পাদক মুনির হাসান। বর্তমানে পেশাদারিত্বের সাথে বৈশ্বিক চেতনা সংযুক্ত হওয়ায় ক্যারিয়ার ভাবনায় আসছে নানামাত্রিক পরিবর্তন। বর্তমান কর্মসংস্থানের যে প্রচলিত ধারা দেখা যায়, আগামী কয়েক বছরের মাঝে তার অর্ধেক বিলুপ্ত হয়ে যাবে। সৃষ্টি হবে নতুন কর্মক্ষেত্র যেখানে থাকবে শুধু বিগ ডেটা, মেশিন লার্নিং, ব্লক চেইন, সাইবার সিকিউরিটি, ডেটামাইনিং কিংবা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের মত টেকনিক্যাল কাজের সুযোগ। আগামী ২০৩০ সালের মাঝে প্রায় ৮০ কোটি চাকুরি র বাজার দখল করে নেবে প্রায় ১০০ কোটি নতুন চাকুরি । এসব ক্ষেত্রে নারীদের তাই প্রস্তুত হতে হবে এখন থেকেই- এমনটাই বলছিলেন মুনির হাসান।

মূলত তথ্য-প্রযুক্তির যুগে কোন ধরনের কাজগুলো চাকুরি র বাজার দখল করে নেবে সে সম্পর্কে নারী শিক্ষার্থীদের ধারণা দেয়া হয়। চতুর্থ শিল্প বিপ্লব মোকাবেলায় আগাম প্রস্তুতি হিসেবে যেসব দক্ষতাগুলো আত্মস্থ করতে হবে তারই একটি সার্বিক আলোচনা উঠে আসে এই ক্যারিয়ার টকে। আয়োজনটিতে উপস্থিত ছিলেন উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগে স্নাতক পড়ুয়া মোট ৬০ জন নারী শিক্ষার্থী।

প্রেনিউর ল্যাব এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা রাখশান্দা রুখাম বলেন, শিক্ষাজীবনে আমাদের খুব কম নারীই জানেন যে ক্যারিয়ার মাত্রই চাকুরি নয়। উদ্যোক্তা হওয়া, ফ্রিল্যান্সার, স্বাধীন-কন্সাল্টেন্ট হওয়া এরকম আরও অনেক ক্যারিয়ার পথ আছে যেগুলোতে আমাদের নারীরা সাহস করে আসতে পারেননা। তিনি বলেন, উদ্যোক্তা হলে নিজের কাজের স্বাধীনতা যেমন থাকে, তেমনি অনেক কর্মসংস্থান তৈরি করা যায়। এমরাজিনা টেকনোলজিসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এমরাজিনা ইসলাম বলেন, চাকুরি র আগেই অভিজ্ঞতা অর্জন খুব জরুরি। পড়াশুনা চলাকালীন শিক্ষার্থীদের ইন্টার্নশিপের পরামর্শ দেন তিনি। সেলিসি সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট কোম্পানির বিজনেস এনালিস্ট তাশফিয়া নাবিলা ফরিদ শীক্ষার্থীদের দক্ষতা বৃদ্ধির ওপর জোর দিতে বলেন। তিনি বলেন, ‘যে কাজে আগ্রহ আছে তার খুঁটিনাটি কাজ শিখতে হবে এবং অনুশীলন করতে হবে নিয়মিত। খুঁজে বের করতে হবে সংশ্লিষ্ট কাজের সুযোগ এবং কাজের সাথে যুক্ত সফল ব্যাক্তিত্বদের’।

উল্লেখ্য, তথ্য প্রযুক্তিতে নারীদের উদ্বুদ্ধ করতে এবং তথ্য প্রযুক্তির কর্মক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক “এনাবলিং সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোলস ফর বাংলাদেশ- এসডি৪জিবিডি” শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় এই ক্যারিয়ার টক পরিচালনা করে। প্রকল্পটির সার্বিক তদারকি করছে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন। বিডিওএসএন-এর তিন বছর মেয়াদী এই প্রকল্পের আওতায় দেশের বিভিন্ন স্থানে পর্যায়ক্রমে অনুরূপ ক্যাম্পের আয়োজন করা হবে।

error0