বিভাগ - সারাদেশ

গোবিন্দগঞ্জে নগদ ৪ লক্ষ টাকাসহ মোটরসাইকেল ছিনতাই

প্রকাশিত

সিরাজুল ইসলাম রতন গাইবান্ধা থেকে:--গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জে পথরোধ করে ৪ লক্ষ টাকা ও মোটর সাইকেল ছিনতাইয়ের ঘটনায় গোবিন্দগঞ্জ-মহিমাগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।এদিকে এ ঘটনায় ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে গোবিন্দগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হলে পুলিশ ছিনতাইকৃত মটরসাইকেল উদ্ধার করলে ও উদ্ধার করতে পারেনি ছিনতাইকৃত ৪ লক্ষ টাকা।ঘটনার পর থেকে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এজাহার সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার আরজি সাহাপুর তারাগণা গ্রামে গত ২ জুলাই বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৮টার দিকে আব্দুর রাজ্জাক জনি তার ভাটার হিসাবপত্র করে প্রায় ৪ লক্ষ টাকা নিয়ে বাড়ির পথে রওনা দেয়। এসময় ইট ভাটার অদূরে তারাগণা চারমাথা সংলগ্ন আসামীদের বাড়ির সামনে পৌঁছিলে পূর্ব হতে ওঁৎপেতে থাকা সানোয়ার হোসেন, তার পিতা শুকুর আলীসহ অজ্ঞাত কয়েকজন পথরোধ করে। আচমকা তারা মারপিট করে মটরসাইকেল ভাংচুর ও প্যান্টের পকেটে রক্ষিত চার লক্ষ টাকা ছিনিয়ে নেয়। এসময় তারা মটরসাইকেলটিকেও নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ঐরাতেই ভুক্তভোগী আব্দুর রাজ্জাক জনি বাদি হয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানায় একটি এজাহার দায়ের করে। এদিকে এঘটনাকে কেন্দ্রে কওে ৩ জুলাই শুক্রবার স্থানীয় লোকজন মহিমাগঞ্জ রোড অবরোধ করে রাখে। সকাল ১০টার দিকে অবরোধ শুরু হয়ে সাড়ে দশটার সময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ প্রধান,মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রুবেল আমীন শিমুল, গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন।

এসময় আটককৃত মটরসাইকেলটি সানোয়ারের বাড়ি হতে উদ্ধার করে আব্দুর রাজ্জাক জনির নিকট হস্তান্তর করা হয়। পরিবেশ শান্ত রেখে পরবর্তীতে বৈঠকের মাধ্যমে ঘটনার সমাধান করা হবে বলে উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ প্রধান তাদেরকে আশ্বস্ত করে। এজাহার তদন্তে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসআই সজিব ঘটনাস্থলে পরিদশর্ণ করেন এবং ঘটনা তদন্তধীন রয়েছে বলে সাংবাদিকদের জানান।