চরফ্যাসনে বসত ঘরের আড়ার সাথে মাদ্রাসা ছাত্রের আত্মহত্যা

প্রকাশিত

চরফ্যাসন প্রতিনিধি: চরফ্যাসনে পরিবারের সাথে অভিমান করে হুমায়ুন ফরিদি(১৪) নামের এক হাফেজি মাদ্রাসা ছাত্রের আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে। বুধবার রাতে উপজেলার ওসমানগঞ্জ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের নিজ বসত ঘরের আড়ার সাথে কোমরের বেল্টে দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যার করেন।

নিহত মাদ্রাসা ছাত্র হুমায়ুন ফরিদ ওই এলাকার আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। পুলিশ নিহত ছাত্রের লাশ উদ্ধার করে বৃহস্পতিবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য ভোলা সদও হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করেন। পুলিশ ও স্বজনরা জানান,নিহত হুমায়ুন আমিনাবাদ হাফেজিয়া মাদ্রাসার ছাত্র। করোনার সংক্রমণ এড়াতে মাদ্রাসা বন্ধ হওয়ার পর হুমায়ুন বাড়িতে চলে আসেন।

ঘটনার রাতে বাবা, মাসহ পরিবারের সদস্যরা তাকে ঘরে পড়তে বসার জন্য চাপ দেন। এবং গাল মন্দ করেন। রাতের খাবার খেয়ে পরিবারের সদস্যরা শুয়ে পরলে ক্ষুব্ধ ছাত্র হুমায়ুন সবার অগোচরে পরিবারের সাথে অভিমান করে নিজ বসত ঘরের আড়ার সাথে কোমরের বেল্ট নিয়ে গলায় ফাঁস দেন। এসময়ে স্বজনারা তার গোঙানির শব্দ পান এবং ঘরের আড়ার সাথে ফাঁস দেয়া ঝুলন্ত দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে চরফ্যাসন হাসপাতালে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

চরফ্যাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো. শামসুল আরেফিন এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, নিহত মাদ্রাসা ছাত্রের লাশ উদ্ধার করে ময়ন্ তদন্তর জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের শরিরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। ধারনা করা হচ্ছে পরিবারের সাথে অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে।