বিভাগ - বিনোদন

চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে

প্রকাশিত

বিনোদন প্রতিবেদক: নয়বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়া বরেণ্য চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান এখন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। রাজধানীর গ্রিন লাইফ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) তাঁকে এরই মধ্যে লাইফ সাপোর্ট দেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার সকালে হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক চিকিৎসক মইনুল আহসান জানিয়েছেন, দেশের প্রবীণ এই চিত্রগ্রাহকের অবস্থা এখন সংকটাপন্ন। গুরুত্বের সঙ্গে তাঁকে হাসপাতালের সর্বোচ্চ চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে।

জানা গেছে, গতকাল সোমবার রাতে বাসায় খাবার খাওয়ার সময় তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। তখন খাবার তাঁর খাদ্যনালির বাইরে চলে যায়। মুহূর্তেই তিনি জ্ঞান হারান। স্বজনেরা তাঁকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যান।

চিকিৎসক মইনুল আহসান বলেন, ‘মাহফুজুর রহমান খানের ফুসফুস ও পাকস্থলীতে প্রচুর পরিমাণে রক্ত জমা হয়েছে। আজ সকালে পাকস্থলী থেকে ২ লিটার রক্ত বের করা হয়। আইসিইউতে তাঁকে ভেন্টিলেটর মেশিনে রাখা হয়েছে। চিকিৎসকেরা চেষ্টা করে যাচ্ছেন। কিন্তু তাঁর শারীরিক অবস্থার ক্রমেই অবনতি হচ্ছে। শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ চিকিৎসায় সেভাবে সাড়া দিচ্ছে না। তাঁর বয়স আর শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে যতটা বোঝা যাচ্ছে, পরিস্থিতি মোটেই অনুকূল নয়।’

এই অবস্থায় উন্নত চিকিৎসার জন্য মাহফুজুর রহমান খানকে দেশের বাইরের কোনো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া সম্ভব? চিকিৎসক মইনুল আহসান বলেন, ‘রোগীর স্বজনেরা যদি নিয়ে যেতে চান, আমরা বাধা দেব না। অবশ্যই এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে নিতে হবে। সেখানে ভেন্টিলেটরের সুবিধা থাকতে হবে। তবে আমি বলব, তিনি এখন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে।’

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেছেন, ‘মাহফুজুর রহমান খানের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেছি। হাসপাতালের সঙ্গেও যোগাযোগ রাখছি। সব মিলিয়ে পরিস্থিতি খুব জটিল। তাঁর জন্য সবাই দোয়া করুন।’

মাহফুজুর রহমান খান নয়বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, আটবার বাচসাস পুরস্কার এবং একবার বিশেষ বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো সমালোচক পুরস্কার পেয়েছেন।

পেশাদার চিত্রগ্রাহক হিসেবে মাহফুজুর রহমান খান ১৯৭২ সালে প্রথম চলচ্চিত্রে কাজ করেন। তিনি আলমগীর কবির, আলমগীর কুমকুম, হুমায়ুন আহমেদ, শিবলি সাদিকদের মত চলচ্চিত্র পরিচালকদের সাথে কাজ করেন।

আনন্দ অশ্রু, হাজার বছর ধরে, শ্রাবণ মেঘের দিন, ঘেটুপুত্র কমলা, আগুনের পরশমনিসহ অসংখ্য জনপ্রিয় সিনেমার চিত্রগ্রাহক তিনি। বিশেষ করে হুমায়ূন আহমেদ পরিচালিত প্রায় সব চলচ্চিত্রের চিত্রগ্রাহক ছিলেন।