ছাতকে এক সপ্তাহে ১৩জনের নমুনা সংগ্রহ

প্রকাশিত

ছাতক প্রতিনিধিঃ ছাতকে সংক্রামক ব্যাধি করোনা ভাইরাস সন্দেহে এক সপ্তাহে মোট ১৩জন রোগীর নমুনা সংগ্রহ করেছে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ। এসব নমুনা কোভিড-১৯ করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য নেজাল এবং থ্রট সোয়াব সংগ্রহ করে ঢাকার জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) ল্যাবে প্রেরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে সর্বশেষ এক জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে বলে ছাতক সদর হাসপাতালের একটি দায়িত্বশীল সুত্রে জানা গেছে। তবে নমুনা সংগ্রহকারী সন্দেহভাজন রোগীদের ঠিকানা ও পরিচয় জানাননি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। গত সোমবার দিনভর রোগীদের নিজ নিজ বাড়িতে গিয়ে ৮জনের নমুনা সংগ্রহ করেন ডাঃ তোফায়েল আহমদ সানি। এসময় ছাতক উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রাজিব চক্রবর্তী সাথে ছিলেন। এরআগে গত ২ এপ্রিল বৃহস্পতিবার উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে আরো ৪ জনের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকার জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) ল্যাবে প্রেরণ করা হয়েছিল। এদের মধ্যে একজনের নমুনা রিপোর্টের ফলাফলে করোনা ভাইরাসের জীবানু পাওয়ায় যায়নি বলে জানিয়েছেন ডাঃ রাজিব চক্রবর্তী। তিনি গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, সম্প্রতি সিলেটে বসবাসরত ছাতক উপজেলার বাসিন্দা এক ডাক্তার করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন। এরপর ওই ডাক্তারের সংস্পর্শে থাকা ৮জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। নমুনা সংগ্রহকারী এসব ব্যক্তিদের কয়েকদিন আগে থেকে প্রশাসনের নজরদারিতে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছিল। মঙ্গলবার কোভিট-১৯ এর হাইলি সাসপেক্টেড ৮জন লোকের নেজাল ও থ্রট সোয়াব সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য (আইইডিসিআর) ল্যাবে প্রেরণ করা হয়েছে। আমরা আশা করছি, আগামী দু’এক দিনের মধ্যে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে নমুনা সংগ্রহ কারা লোকজনের শরীরে করোনা ভাইরাস আছে কিনা জানা যাবে।