জমে উঠেছে একুশে গ্রন্থমেলা, বই অপ্রকাশিত এমন কিছু স্টল বরাদ্দ দেওয়ায় ক্ষুদ্র অনেক প্রকাশক

প্রকাশিত

মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার- একুশে গ্রন্থমেলা থেকে: আজ শুক্রবার। কর্মব্যস্ত নগরীর ব্যস্ততায় ছেদ পড়বে। ব্যস্ততাকে ছুটি দিয়ে আনন্দ-উল্লাসে মেতে উঠবে নগরজীবনের বাসিন্দারা। আর এর মধ্য দিয়ে প্রাণের গ্রন্থমেলায় কেটে যাবে গ্রহণের কাল। কয়েক দিন যে আশাতেই প্রতীক্ষার প্রহর গুনছিলেন প্রকাশকরা আজ সেই কাক্সিক্ষত শুক্রবার। মেলা জমে উঠবে ও পাঠকদের ভিড়ে মুখরিত হবে। সব শ্রেণির মানুষের উপস্থিতিতে মেলাজুড়ে সফলতার চিহ্ন ফুটে উঠবে আজকের গ্রন্থমেলায়।

গত পাঁচদিন বাণিজ্য মেলা যে গ্রন্থমেলায় প্রভাবিত করেছে, সেটি হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছেন প্রকাশকরা। তবে গতকাল বৃহস্পতিবার বাণিজ্য মেলা শেষ হওয়ায় আজ থেকে গ্রন্থমেলা তার চিরচেনারুপে ফিরে যাবে বলে মনে করছেন বেশিরভাগ প্রকাশক। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণে কথা হয় দেশের প্রখ্যাত সুপরিচিত প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান দি- ইউনিভার্সেল একাডেমির মহা পরিচালক, জ্ঞান সৃজনশীল প্রকাশনা সমিতির সাবেক তিন / চার বারের মেলা পরিচালক ও বর্তমান বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি রাজধানী শাখার সাধারণ সম্পাদক এ. এস. এম শিহাব উদ্দীন ভুঁইয়া তিনি বলেন বাণিজ্য মেলা গতকাল শেষ হওয়ায় আজ শুক্রবার থেকে বইমেলা জমে উঠবে । গত পাঁচদিন আমরা সেই অপেক্ষায় ছিলাম আজকের দিনে জন্য । মেলার পরিবেশ নিয়ে এই প্রকাশক বলেন এবারের মেলা বিগত বছরগুলোর তুলনায় অনেক গোছানো ।

অন্যদিকে নালন্দার প্রধান নির্বাহী জুয়েল রেদোয়ানের সঙ্গে মেলার মাঠে কথা বলার একপর্যায়ে তিনি বলেন মেলা শুরু হয়েছে ২ ফেব্রুয়ারি রবিবার থেকে । শুরু থেকে গত পাঁচদিন তুলনামূলক ভাবে বেচা বিক্রি অনেক কম ছিল। আজকে থেকে আমাদের আশানুরূপ সাফল্য লাভ করতে সক্ষম হবো বলে মনে করছেন জুয়েল । কথার এক প্রসঙ্গে এই প্রকাশক জুয়েল বলেন তবে যাদের বই নেই এ ধরনের অনেক অপ্রকাশককে মেলায় স্টল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে । এতে করে ঐতিহ্যবাহি একুশে গ্রন্থমেলার সৌন্দর্যহানি ঘটছে । অপরদিকে তার কথার সঙ্গে সুর মিলিয়ে কথা প্রকাশের ব্যবস্থাপক ইউনুস আলীও জানালেন যাদের নিয়মিত বই নেই এই সমস্ত অপ্রকাশকদের মেলায় স্টল বরাদ্দ দেওয়ার কারণে আমরা মর্মান্তিক ভাবে হতাশা হয়ে আছি । এই ধরনের অনিয়ম বহি ভুক্ত কাজ আমাদের সমিতির জন্য কলঙ্ক হিসেবে রূপধারণ করবে । এতে অন্যান্য প্রকাশকদের জন্যও বেদনাদায়ক হিসেবে কাজ করছে । আমি আশাবাদী আগামীতে যেন আর এধরণের নেক্কারজনক ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে ।

গতকাল অমর একুশে গ্রন্থমেলার ৫ম দিনে এমনটিই বলছিলেন বেশিরভাগ প্রকাশক। মেলার প্রথম শিশুপ্রহর আজ। যে কারণে বড়দের বইয়ের পাশাপাশি আজ শিশুচত্বরেও থাকবে প্রাণের উচ্ছ্বাস। বাবা-মায়ের হাত ধরে পছন্দের বইটি কেনার পাশাপাশি আজ সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত শিশুপ্রহরের সিসিমপুরে ইকরি বিকরির সঙ্গে দুরন্তপনায় মেতে উঠেছেন ছোট্ট সোনামণিরা। গতকাল বড়দের স্টলে খুব একটা ভিড় লক্ষ্য করা না গেলেও শিশুচত্বরে আশাব্যঞ্জক উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। চত্বরের প্রকাশনা সংস্থা ঝিঙ্গেফুলের স্বত্বাধিকারী গিয়াসউদ্দিন খান বলেন, আমাদের স্টলে মোটামুটি ভালোই বিক্রি হচ্ছে। কাল শনিবার ও (আজ) শুক্রবার প্রথম শিশুপ্রহর থেকে বিকিকিনি বাড়বে বলেই মনে করি। দ্য পপ আপ ফ্যাক্টরির স্বত্বাধিকারী রুমানা বলেন, প্রথম শুক্রবার ও প্রথম শিশুপ্রহর থেকে মেলা জমে উঠবে। এবারের মেলা নিয়ে হতাশ নন শীর্ষস্থানীয় প্রকাশনা সংস্থার ব্যবস্থাপক আমজাদ হোসেন কাজল। তিনি বলেন, লোক কম থাকলেও আমাদের বিক্রি বাড়ছে।

কথা প্রকাশের ব্যবস্থাপক ইউনুস আলী জানালেন এবারের মেলায় তাদের প্রায় শতাধিক বই প্রকাশ হচ্ছে। নতুন বই : বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগের তথ্যমতে, গতকাল মেলায় নতুন বই এসেছে ১১৮টি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য বইগুলো হলো- বাংলা একাডেমি প্রকাশিত নূহ-উল-আলম লেনিনের বঙ্গবন্ধু বিষয়ক বই ‘রাজনীতিতে হাতেখড়ি ও কলকাতায় শেখ মুজিব’, আগামী প্রকাশ করেছে আবদুল গাফ্ফার চৌধুরীর বঙ্গবন্ধু বিষয়ক বই ‘বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ ও শেখ হাসিনা’, দি ইউনিভার্সেল একাডেমি থেকে- মহা- কাব্য উপন্যাস অমৃত রসে মৃগতৃষ্ণা প্রেমে – প্রাকৃতজ শামিমরুমি টিটন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাস – ( প্রথম পর্ব ) মেজর অবঃ জেনারেল মতিন -, এনসাইক্লোপিডিয়া – এ. এস. এম. শিহাব উদ্দীন ভুঁইয়া, একি কেবলই প্রেম – সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ, কথাপ্রকাশ থেকে ড. এম আবদুল আলীমের স্মৃতিকথা ‘ভাষা সংগ্রামী এম এ ওয়াদুদ’, শোভা প্রকাশ থেকে সৈয়দ শামসুল হকের কিশোর কবিতার বই ‘শ্রেষ্ঠ কিশোর কবিতা’, একই প্রকাশনা থেকে সন্জীদা খাতুনের প্রবন্ধের বই ‘রবীন্দ্র কবিতার গহনে’, অবসর প্রকাশনা থেকে রকিব হাসানের গোয়েন্দা কাহিনী ‘দানব রবিন’ প্রভৃতি।

মূল মঞ্চ : গতকাল বিকাল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় নূহ-উল-আলম লেনিন রচিত ‘রাজনীতিতে হাতেখড়ি ও কলকাতায় শেখ মুজিব’ শীর্ষক আলোচনা। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক মোহীত উল আলম। আলোচনায় অংশ নেন আসাদ মান্নান এবং সাহেদ মন্তাজ। লেখকের বক্তব্য প্রদান করেন নূহ-উল-আলম লেনিন। সভাপতিত্ব করেন সৈয়দ হাসান ইমাম। প্রাবন্ধিক বলেন, আলোচ্য বইয়ে লেখক কীভাবে শেখ মুজিব টুঙ্গিপাড়া জন্মস্থান থেকে বাংলাদেশের জাতির পিতা হিসেবে আবির্ভূত হলেন তার একটি সংক্ষিপ্ত কিন্তু প্রণিধানযোগ্য রাজনৈতিক আলেখ্য তৈরি করেছেন। শেখ মুজিব তাঁর যৌবনদীপ্ত সময়ে পাকিস্তান-আন্দোলনের একজন একনিষ্ঠ রাজনৈতিক কর্মী ও নেতা ছিলেন। কিন্তু পাকিস্তান হবার সঙ্গে সঙ্গেই তিনি হৃদয়ঙ্গম করেন যে, নতুন দেশটি দিয়ে বাঙালির স্বপ্ন পূরণ হবে না। আলোচকরা বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক জীবনের সূত্রপাত অত্যন্ত চমৎকারভাবে বিধৃত হয়েছে নূহ-উল-আলম লেনিন রচিত এ গ্রন্থে।