জাতীয় পার্টি কারও জমিদারি নয়, এটি সবার পার্টি: জিএম কাদের

প্রকাশিত

এওয়ান নিউজ: জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি বলেছেন, জাতীয় পার্টি দেশ ও জনসাধারণের দায়িত্ব গ্রহণ করতে প্রস্তুত আছে। তিনি বলেন, দেশের মানুষ জাতীয় পার্টিকে আরও শক্তিশালী রাজনৈতিক প্ল্যাটফর্ম হিসেবে দেখতে চায়। এসময় জাতীয় পার্টি কারও ব্যক্তিগত দল নয়, জাতীয় পার্টি কারও জমিদারি নয়, এটি সবার পার্টি বলেও মন্তব্য করেন জিএম কাদের।

শনিবার (৭ ডিসেম্বর) দুপুরে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টির কেন্দ্রীয় সম্মেলনে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে এ কথা বলেন।

’৯০ সাল পর্যন্ত জাতীয় পার্টি দেশের প্রধান রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে ছিল। কিন্তু ’৯১ সালের পর থেকে জুলুম-নির্যাতন আর হামলা-মামলা দিয়ে জাতীয় পার্টিকে দুর্বল করার চেষ্টা চললেও তদানীন্তন সরকার তা পারেনি। তবে জাতীয় পার্টি দুর্বল হয়েছে অভ্যন্তরীণ ষড়যন্ত্রে। এসব ষড়যন্ত্র থেকে দলকে রক্ষা করতে পার্টির নেতাকর্মীদের সজাগ থাকতেও নির্দেশ দেন গোলাম মোহাম্মদ কাদের।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পরেই জাতীয় পার্টি তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি। বিএনপি নেতৃত্ব সংকটে বিলীন হওয়ার আশঙ্কা আছে। সেক্ষেত্রে জাতীয় পার্টিই একমাত্র বিকল্প শক্তি হিসেবে সাধারণ মানুষের সামনে রয়েছে। দেশের মানুষ অনেক আশা নিয়ে জাতীয় পার্টির দিকে তাকিয়ে আছে।

জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টির আহ্বায়ক লিয়াকত হোসেন খোকা এমপির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় গোলাম মোহাম্মদ কাদের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, সব সময় মনে রাখবেন জাতীয় পার্টি আপনার পার্টি। জাতীয় পার্টি কারও ব্যক্তিগত দল নয়, জাতীয় পার্টি কারও জমিদারি নয়। দলকে আরও সুশৃঙ্খল এবং শক্তিশালী করতে নেতাকর্মীদের দায়িত্বশীল হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা জনগণের কথা শুনে, জনগণের জন্য কাজ করে যাচ্ছি।

বক্তৃতার শুরুতে স্বাধীনতা সংগ্রামের অবিসংবাদিত নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এবং উন্নয়নের রূপকার পল্লিবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান। মহান মুক্তিযুদ্ধে বীর শহীদ ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন তিনি।

সম্মেলনে প্রধান বক্তার বক্তৃতায় জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি বলেন, যে মানুষটি ৯ বছর সফলতার সঙ্গে দেশ ও মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করেছেন, সেই পল্লিবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ কখনও স্বৈরাচার হতে পারেন না। দীর্ঘ সাত বছর জেলে থেকে দুটি জাতীয় নির্বাচনে ৫টি করে আসনে বিজয়ী হয়ে পল্লিবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ তার জনপ্রিয়তার প্রমাণ দিয়েছেন। দেশের মানুষের জন্য আজীবন কাজ করেছেন পল্লিবন্ধু, বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবেই তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন।

মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, আমরা সন্ত্রাস লালন করিনি, ক্যাসিনো ব্যবসা করিনি, আমরা হুন্ডা-গুন্ডা লালন-পালন করিনি। তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনের আগে জাতীয় পার্টিকে আরও শক্তিশালী করতে পারলে জাতীয় পার্টিই রাষ্ট্রক্ষমতা গ্রহণ করতে পারবে।

জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টি কেন্দ্রীয় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব মো. বেলাল হোসেনের উপস্থাপনায় সম্মেলনে আরও বক্তব্য রাখেন−জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, গোলাম কিবরিয়া টিপু, এসএম ফয়সল চিশতী, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভুইয়া, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ।

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন−জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য হাজী সাইফুদ্দিন আহম্মেদ মিলন, আলমগীর সিকদার লোটন, আলহাজ আব্দুস সাত্তার মিয়া, নাজমা আক্তার এমপি, সংসদ সদস্য ডা. রুস্তম আলী ফরাজী, পীর ফজলুর রহমান মেজবাহ, আহসান আদেলুর রহমান আদেল, উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা, ড. নূরুল আজহার শামীম, ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইকবাল হোসেন রাজু, জহিরুল ইসলাম জহির প্রমুখ।

সম্মেলনে জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টির নতুন কমিটির সভাপতি হিসেবে লিয়াকত হোসেন খোকা এমপি এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মো. বেলাল হোসেনের নাম ঘোষণা করেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি।

error0