জীবনে বড় হতে হলে কঠোর পরিশ্রম আর অনুশীলনের বিকল্প নেই: রাষ্ট্রপতি

প্রকাশিত

গাজীপুর প্রতিনিধি: রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ বলেছেন, ‘জীবনে বড় হতে হলে কঠোর পরিশ্রম আর অনুশীলনের বিকল্প নেই। স্কাউটিংয়ের শিক্ষা ব্যক্তি, পরিবার ও সামাজিক জীবনে প্রতিফলন করা গেলে জাতীয় উন্নয়ন ত্বরাণ্বিত হবে। স্কাউটিং একজন শিক্ষার্থীকে লেখাপড়ার পাশাপাশি সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে হাতে কলমে শিক্ষা দেয়। স্কাউটিংকে দেশসেবা ও মানবিক কল্যাণে কাজে লাগাতে হবে।’

সোমবার (২০ জানুয়ারি) বিকালে গাজীপুরের কালিয়াকৈরের মৌচাকে জাতীয় স্কাউট প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে বাংলাদেশ স্কাউটস আয়োজিত নবম জাতীয় কাব ক্যাম্পুরি-২০২০ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাষ্ট্রপতি ও চিফ স্কাউট আবদুল হামিদ এসব কথা বলেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘দেশকে উন্নত সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করা এবং দেশের উন্নয়নকে এগিয়ে নিতে জনগণকে ইতিবাচক, আধুনিক ও বিজ্ঞান মনস্ক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় সামিল হতে হবে। স্কাউটিং কার্যক্রম পারে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে আধুনিক, প্রগতিশীল, সৃজনশীল হিসেবে গড়ে তুলতে এবং সমাজকে এগিয়ে নিতে।’

রাষ্ট্রপতি বলেন, “২০২১ সালে স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে বাংলাদেশের স্কাউট সদস্য ১৯ লাখ থেকে ২১ লাখে উন্নীত করার উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই। ২০২১ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হবে ৩২তম এপিআর স্কাউট জাম্বুরি। আমি জেনে আনন্দিত হয়েছি, স্কাউট সদস্য সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধির জন্য বাংলাদেশ বিশ্ব স্কাউট সংস্থার ‘টপ ফাইভ কান্ট্রি অ্যাওয়ার্ড’ এবং ‘এপিআর সাসটেনেবল গ্রোথ অ্যাওয়ার্ড’ অর্জন করেছে। এজন্য সব পর্যায়ের স্কাউট ও স্কাউট নেতৃবৃন্দকে অভিনন্দন জানাই।”

তিনি ক্যাম্পুরিতে অংশগ্রহণকারী দেশ-বিদেশের কাব স্কাউট ও স্কাউটদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি। বাংলাদেশ স্কাউটসের সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্রধান জাতীয় কমিশনার ড. মোজাম্মেল হক খাঁন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা মেহের আফরোজ চুমকি এমপি, গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ এমপি, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) এস এম তরিকুল ইসলাম, পুলিশ সুপার (এসপি) শামসুন্নাহার, কালিয়াকৈর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল সিকদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি ও চিফ স্কাউট ২০১৮ সালে স্কাউটদের সর্বোচ্চ অ্যাওয়ার্ড ‘প্রেসিডেন্ট’স স্কাউট অ্যাওয়ার্ড’ এবং রোভার স্কাউটদের সর্বোচ্চ অ্যাওয়ার্ড ‘প্রেসিডেন্ট’স রোভার স্কাউট অ্যাওয়ার্ড’ অর্জনকারীদের মধ্যে অ্যাওয়ার্ড বিতরণ করেন।

এই কাব ক্যাম্পুরিতে (৬ থেকে ১০ বছর বয়সী) অংশ নেওয়া কাব স্কাউটরা দেশের বিভিন্ন জেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়, কিন্ডার গার্টেন স্কুল, এবতেদায়ী মাদ্রাসা ও মুক্ত স্কাউট দলের কাব স্কাউট সদস্য। জেলা কন্টিনজেন্ট লিডারের নেতৃত্বে জেলাভিত্তিক কাব লিডারদের নিয়ে কাব স্কাউটরা ক্যাম্পুরি ময়দানে এসেছে। কাব ক্যাম্পুরি হচ্ছে কাব স্কাউটদের বৃহত্তম মিলনমেলা। প্রতি চার বছর অন্তর বাংলাদেশ স্কাউটস এই মিলনমেলার আয়োজন করে থাকে।

এর আগে রাষ্ট্রপ্রতি অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছলে তাকে স্কাউটের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অভ্যর্থনা জানান এবং ক্যাম্পুরি স্কার্ফ, ব্যাজ ও টুপি পড়িয়ে দেন। পরে তিনি কৃতি স্কাউটদের মাঝে প্রেসিডেন্ট’স স্কাউট ও প্রেসিডেন্ট রোভার স্কাউটস অ্যাওয়ার্ড প্রদান এবং ক্যাম্পুরি স্মারক ডাকটিকেট ও উদ্বোধনী খাম অবমুক্ত করেন। তিনি বিভিন্ন এলাকা থেকে অংশগ্রহণকারী স্কাউটদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন এবং ক্যাম্পুরির উদ্বোধন ঘোষণা করেন। আগামি ২৪ জানুয়ারি মহা তাঁবু জলসার মাধ্যমে এবারের কাব ক্যাম্পুরি শেষ হবে।

error0