বিভাগ - সারাদেশ

ঝিনাইদহে ৮৫০ গ্রাম গাঁজাসহ আদালতে কর্মরত পুলিশ সদস্য আটকের পর কারাগারে প্রেরণ

প্রকাশিত

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহে গাঁজাসহ আটক পুলিশ কনস্টেবল ইয়াসির আরাফাত মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে জেলা শহরের মৎস্য অফিস সংলগ্ন গয়েশপুর এলাকা থেকে ৮৫০ গ্রাম গাঁজাসহ আটক করা হয় তাকে। জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি আনোয়ার হোসেন জানান, ঝিনাইদহ সদর থানায় আটক কনস্টেবলসহ দুইজনকে আসামি করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ মামলার বাদী হয়েছেন জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এসআই সেলিম রেজা। মামলার তদন্তভার দেওয়া হয়েছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো. নজরুল ইসলামকে। ওই কনস্টেবলকে সাময়িব বরখাস্ত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। অপরদিকে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ঝিনাইদহ আদালতে কর্মরত পুলিশ কনস্টেবল ইয়াসির আরাফাতের বাড়ি খুলনা জেলার তেরখাদা উপজেলার অটটলিয়া গ্রামে। বাবার নাম মো. মোফিজুর রহমান। চলতি বছরের ফেব্রুযারি মাসে বদলি হয়ে আসে সে। সূত্র মতে, আদালতে কর্মরত কয়েকজন পুলিশ সদস্য মাদক পাচারসহ ব্যবসায়ি চক্রের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছে। এমন খবর পাওয়ার পরে আইন-শৃংখলা বাহিনীর গোয়েন্দারা মাঠে নামেন। গোপন খবরে সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে জেলা শহরের মৎস্য অফিস সংলগ্ন গয়েশপুর এলাকা থেকে আটক করা হয় কনস্টেবল ইয়াসির আরাফাতকে। তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় ৮৫০ গ্রাম গাঁজা। তাকে ডিবি পুলিশের দফতরে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে চুয়াডাঙ্গা জেলার দর্শনার দক্ষিণ চাঁদপুর গ্রামের কমপক্ষে ১৩টি মাদক মামলার আসামি শামিমের নাম বেরিয়ে আসে। পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান বলেন, ব্যক্তি অপরাধের দায় পুলিশ বাহিনী নেবে না। অপরাধের সঙ্গে জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। প্রমান পাওয়া মাত্রই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।