বিভাগ - জাতীয়

আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত কমিটির বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা

প্রকাশিত

এওয়ান নিউজ: গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুর ১টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পিতার সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান। পরে ফাতহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাত করে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এ সময় সশস্ত্র বাহিনী কর্তৃক অনার গার্ড প্রদান করা হয়। পরে প্রধানমন্ত্রী নবগঠিত কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ, ফাতেহাপাঠ ও বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন।

নবগঠিত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা মধ্যে সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, মাহবুব উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, শাজাহান খান, মতিয়া চৌধুরী, কাজী জাফর উল্লাহ, সাহারা খাতুনসহ নবগঠিত কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ, জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

আওয়ামী লীগের ২১তম কাউন্সিলে পুনরায় সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর শেখ হাসিনার এটাই প্রথম টুঙ্গিপাড়া সফর।

টুঙ্গিপাড়ায় পৌঁছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কবরের পাশে বসে কোরআন তেলাওয়াত করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি টুঙ্গিপাড়া প্রতিবারই আসার পর ও ঢাকায় ফেরার আগে বঙ্গবন্ধুর সমাধি সৌধের পাশে বসে কোরআন তেলাওয়াত করে দোয়া করেন।

২১তম জাতীয় সম্মেলনের পর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ ও উপদেষ্টা পরিষদের প্রথম যৌথসভা হওয়ার কথা ছিলো গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায়। বৈরী আবহাওয়ার কারণে সেই সভা আর হয়নি। নতুন মেয়াদে সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর, একটু দেরিতে হলেও গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় এলেন প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রথমে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন শেখ হাসিনা।

এরপর ২১তম জাতীয় সম্মেলনে গঠিত দলের নতুন কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে, আওয়ামী লীগ সভাপতি হিসেবে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানান শেখ হাসিনা। পরে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। সেসময় দেশ ও জাতির কল্যাণ ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়। পরে কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ ও উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যদের নিয়ে একটি সংক্ষিপ্ত যৌথ সভা করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।

আনুষ্ঠানিকতা শেষে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের কথা বলেন গণমাধ্যমের সঙ্গে। তিনি বলেন, বিএনপি বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি ব্যর্থ রাজনৈতিক দল। যে কোনো নির্বাচন শুরুর আগেই তারা নির্বাচনে হেরে যায়। কথামালার চাতুরি ছাড়া তাদের আর কোনো অর্জন নেই।

এর আগে শুক্রবার সকালে সাড়ে ১০টার পর শেখ হাসিনাকে বহনকারী হেলিকপ্টার টুঙ্গিপাড়ায় অবতরণ করে। এর আগে সকাল ৭টার দিকে কেন্দ্রীয় কমিটির বাকি সদস্যরা ঢাকায় জাতীয় সংসদ ভবন চত্বরের মিডিয়া সেন্টারের সামনে থেকে ছয়টি বাসে করে যাত্রা করেন টুঙ্গিপাড়ার পথে।

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতিসহ দলটির কেন্দ্রীয় নেতাদের নবনির্বাচিত নেতাদের আগমন উপলক্ষে টুঙ্গিপাড়ার পথে পথে স্থাপন করা হয়েছে ‘জাতির পিতা তোরণ’ ও ‘বঙ্গবন্ধু তোরণ’। টুঙ্গিপাড়া জুড়ে নেওয়া হয়েছে তিন স্তরের নিরাপত্তা।

গোপালগঞ্জের পুলিশ সুপার মুহাম্মদ সাইদুর রহমান জানান, প্রধানমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের আগমন উপলক্ষে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। টুঙ্গিপাড়াসহ জেলার সর্বত্র তিন স্তরের নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে।

এর আগে, বৃহস্পতিবার রাতে অগ্রবর্তী দল হিসেবে টুঙ্গিপাড়ায় পৌঁছেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল।