টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা মাদক কারবারী নিহত

প্রকাশিত

কক্সবাজার প্রতিনিধি: টেকনাফে বিজিবির সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক রোহিঙ্গা মাদক কারবারী নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় বিজিবির দুই সদস্য আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে ৪০ হাজার ইয়াবা, একটি দেশীয় তৈরি অস্ত্র, এক রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়।

আজ রবিবার ভোররাতে উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের দমদমিয়া কেয়ারী খাল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত রোহিঙ্গা হলেন- টেকনাফ পৌরসভার নাইট্যং পাড়ায় বসবাসরত (পুরাতন রোহিঙ্গা) সৈয়দ আহাম্মদের ছেলে মোঃ সৈয়দ আলম(৩৫)। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ-২বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান।

তিনি জানান, মিয়ানমার থেকে ইয়াবার একটি বড় চালান স্থলবন্দর সংলগ্ন দমদমিয়া কেয়ারী খাল এলাকা দিয়ে পাচার করা হবে- এমন তথ্যে বিজিবির বিশেষ টহল দল অভিযানে যায়। ওই সময় সন্দেহজনক ২ জন ব্যক্তিকে খালের পাড়ে ঘুরাঘুরি করতে দেখে। কিছুক্ষণ পর এক ব্যক্তি নাফনদী সাঁতরে খালের পাড়ে ওঠে। থামতে বললে বিজিবি’র উপস্থিতি লক্ষ্য করা মাত্রই তারা পালানোর চেষ্টা করে। ওই সময় টহল দল তাদের পিছু নিলে তারা গুলি করে। এতে বিজিবির দুই সদস্য আহত হন। আত্মরক্ষায় বিজিবিও পাল্টা গুলি করে। এতে উভয়পক্ষের মধ্যে ৩-৪ মিনিট গুলি বিনিময় হয়। গোলাগুলি থামার পরে টহলদল ঘটনাস্থল তল্লাশি চালিয়ে ১ কোটি ২০ লাখ টাকার মূল্যমানের ৪০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, একটি দেশীয় তৈরি অস্ত্র, এক রাউন্ড তাজা কার্তুজসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক রোহিঙ্গা ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হয়। তাকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মরদেহটি কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, আহত বিজিবির দুই সদস্যকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনি পদক্ষেপ প্রক্রিয়াধীন।