ট্যোবাগোতে বাংলাদেশী যুবক জামিল খুন

প্রকাশিত

এওয়ান নিউজ ডেস্ক: ত্রিনিদাদ ও ট্যোবাগোতে নতুন বছরে হত্যাকান্ডে নিহতদের নামের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে এক বাংলাদেশী যুবকের নাম। মঙ্গলবার ২৭ বছর বয়সী বাংলাদেশী জামিল আহমেদের গলিত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে তার এপার্টমেন্ট থেকে। ত্রিনিদাদ অ্যান্ড ট্যোবাগো গার্ডিয়ান এ খবর দিয়ে জানাচ্ছে, জামিল আহমেদ থাকতেন সিপারিয়ার এপার্টমেন্টে। সিপারিয়া পুলিশ স্টেশন থেকে কয়েক শত মিটার দূরে সান ফার্নান্দো ট্যাক্সি স্ট্যান্ডে মাংস ও সবজি মিশ্রিত রুটির রোল, যা গাইরোস নামে পরিচিত, তা বিক্রি করতেন জামিল আহমেদ। তার বাসা থেকে বাড়ির মালিক পানি গড়িয়ে পড়তে দেখেন। তিনি জামিলকে ডাকতে থাকেন। কিন্ত কোনো সাড়া পান না। তিনি বুঝতে পারেন কিছু একটা সমস্যা হয়েছে।

ফলে তিনি পুলিশের সহায়তা নেন। স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে এগারটায় পুলিশ গিয়ে জামিলের দরজা খোলে। সেখানে মেঝেতে তার গলিত মৃতদেহ দেখতে পায় তারা। তার চারপাশে রক্ত ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল।

পুলিশ উদ্ধার করে মৃতদেহ। রিজিয়ন থ্রির হোমিসাইড ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন্সের তদন্তকারীরা এরই মধ্যে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বাড়ির মালিক ও প্রতিবেশীদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। ওদিকে তদন্তকারীরা জামিলের কাঁধে ও মুখে চুরিকাঘাতের চিহ্ন দেখতে পেয়েছে। প্রতিবেশীরা পুলিশকে বলেছেন, জামিলকে তারা সর্বশেষ দেখেছেন রোববার স্থানীয় সময় রাত ১২টা ৪০ মিনিটে। ওই এলাকার নজরদারি ফুটেজের অনুরোধ জানিয়েছে পুলিশ। তদন্তকারীরা মনে করছেন, ডাকাতি করার উদ্দেশে তাকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে। নতুন বছরে তাকে নিয়ে ত্রিনিদাদে হত্যাকাণ্ডের শিকারে পরিণত হলেন ৮ জন। এর মধ্য দিয়ে ২০১৯ সালের রক্তপাত অব্যাহত রয়েছে।