ট্রাম্পের মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান আরব লীগের

প্রকাশিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ফিলিস্তিন-ইসরাইল সঙ্কট নিরসনের লক্ষ্যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিতর্কিত শান্তি পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করেছে আরব লিগ। মিসরের রাজধানী কায়রোতে ডাকা সংস্থার জরুরি বৈঠকে ট্রাম্পের মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনার প্রতিবাদ জানিয়ে দীর্ঘ বক্তৃতা দিয়েছেন ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস। তথাকথিত শান্তি পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করে যুক্তরাষ্ট্র এবং ইসরাইলের সাথে ফিলিস্তিনের নিরাপত্তা সম্পর্ক বাতিলের হুমকি দিয়েছেন তিনি। আলজাজিরা, এপি।

ট্রাম্পের তথাকথিত শতাব্দীর সেরা চুক্তির নামে মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনার বিরুদ্ধে পরিষ্কার অবস্থান নেয়ার আহ্বান জানিয়ে আরব লিগের সদস্যরাষ্ট্রগুলোকে জরুরি বৈঠকে বসার আহ্বান জানিয়েছিলেন মাহমুদ আব্বাস। তার আহ্বানে সাড়া দিয়ে গতকাল শনিবার কায়রোতে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে মাহমুদ আব্বাস বলেন, এই চুক্তির পর তিনি ইসরাইল এবং যুক্তরাষ্ট্রকে বলেছেন যে, নিরাপত্তা সম্পর্কসহ তাদের সাথে কোনো ধরনের সম্পর্ক থাকবে না। ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ বলছে, ট্রাম্পের এই চুক্তির মাধ্যমে পশ্চিমতীর, পূর্ব জেরুসালেম, জর্দান উপত্যকায় দখলদারিত্ব ও অবৈধ বসতি স্থাপনে ইসরাইলকে অনুমতি দেয়া হয়। ইসরাইলি স্বার্থের সুরক্ষায় হোয়াউট হাউজ এই চুক্তি প্রকাশ করেছে।

গত মঙ্গলবার হোয়াইট হাউজে ইসরাইলের প্রেসিডেন্ট বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে পাশে নিয়ে মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা প্রকাশ করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ২০১৭ সালে জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা দেয়ার পর থেকে ট্রাম্প প্রশাসনের সাথে সব ধরনের ছিন্ন করেন মাহমুদ আব্বাস। আরব লিগের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের ওই বৈঠকে মাহমুদ আব্বাস বলেন, তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ফোন কল ও খুদে বার্তায় সাড়া দেননি।

‘কারণ আমি জানি, পরে তিনি এটাকে ব্যবহার করে বলবেন, এই চুক্তির ব্যাপারে আমাদের সাথে পরামর্শ করেছেন। আমরা এই সমাধান কখনোই মেনে নেব না। আমার ইতিহাসে এটাকে কখনোই রেকর্ড করব না যে, আমি জেরুসালেমকে বিক্রি করে দিয়েছি।’ তিনি বলেন, ইসরাইলি দখলদারিত্বের অবসান ঘটাতে ফিলিস্তিনিরা এখনো দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। পূর্ব জেরুসালেমকে রাজধানী করে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা হবে।

মাহমুদ আব্বাস বলেন, ইসরাইলের সাথে যেকোনো ধরনের আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্রকে একমাত্র মধ্যস্থতাকারী হিসেবে মেনে নেবেন না ফিলিস্তিনিরা। তিনি বলেন, আমাদের অবস্থান ব্যাখ্যা করার জন্য জাতিসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ ও অন্যান্য বৈশ্বিক এবং আঞ্চলিক সংস্থার কাছে যাবে ফিলিস্তিন।

আরব লিগের প্রেসিডেন্ট আহমেদ আবদুল ঘেইত বলেন, ইসরাইল-ফিলিস্তিন সঙ্ঘাতে এই প্রস্তাব যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘ দিনের বৈদেশিক নীতির তীব্র পরিবর্তন প্রকাশ করেছে। এর মাধ্যমে কোনো শান্তি কিংবা সমাধান আসতে পারে না। তিনি বলেন, ফিলিস্তিনিরা মার্কিন প্রস্তাবকে প্রত্যাখ্যান করেছেন। শান্তিপূর্ণ সমাধানে পেঁৗঁছার জন্য তিনি ফিলিস্তিন এবং ইসরাইল উভয়পক্ষকে আলোচনায় বসার প্রস্তাব দেন।