বিভাগ - সারাদেশ

ডিএসসিসি’র ৫০ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে শাহাদাৎ হোসেন রুবেল আলোচনার শীর্ষে !

প্রকাশিত

স্টাফ রিপোর্টার: আসন্ন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) নির্বাচনে ৫০ নং ওয়ার্ডের সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন, তরুন সমাজ সেবক, শিক্ষানুরাগী, জনতার নয়নের মনি, কর্মীবান্ধব, দুঃখী মানুষের আশ্রয়স্থল, জনবান্ধব, দক্ষ সংগঠক, শিক্ষিত, হাস্যউজ্জ্বল ও ক্লিন ইমেজের অধিকারী ব্যক্তিত্ব মোঃ শাহাদাৎ হোসেন রুবেল। কারণ তার পিতা মরহুম হাজী মোঃ আমির হোসেন দীর্ঘ প্রায় ২০ বছর এই ওয়ার্ডের জনপ্রতিনিধি হিসাবে দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন।

জানা যায়, মোঃ শাহাদাৎ হোসেন রুবেলের পিতা মরহুম হাজী মোঃ আমির হোসেন দীর্ঘ প্রায় ২০ বছর এই ৫০ নং ওয়ার্ডের কমিশনার (কাউন্সিলর) হিসাবে দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি ন্যায় বিচারক ও যোগ্য জনপ্রতিনিধি হিসেবে এলাকায় সুপরিচিত ও জনপ্রিয় একজন ব্যক্তি ছিলেন। ওই সময় এই এলাকায় তার কোন বিকল্প ছিল না বলে মতামত জানিয়েছেন ৫০ নং ওয়ার্ডের সর্বস্তরের জনগন। কারণ তিনি ছিলেন, জনতার কমিশনার খ্যাত।

আর তারই সুযোগ্য সস্তান হিসেবে তরুন সমাজ সেবক শাহাদাৎ হোসেন রুবেল বিভিন্ন জনসেবা মূলক কাজে সবসময় নিয়োজিত ছিলো ও আছে। তাই তিনিও সৎ, ভদ্র, ন্যায়ের প্রতিক হিসেবে ৫০নং ওয়ার্ডবাসীর কাছে একজন সুপরিচিত ব্যক্তিত্ব। একটি বিরল দৃষ্টান্ত উনি একটি প্রাইভেট ব্যাংকে চাকুরী করেন এবং তার পাশাপাশি মানুষের বিপদে আপদে সর্বদা মানুষের পাশে এসে দাঁড়ান। তিনি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে নানান ভাবে জড়িত থেকে এলাকার জন্য বিগত কালে ড্রেনেজ সমস্যা, মসক নিধন, এলাকা থেকে মাদক ও সন্ত্রাস দুরীকরন সহ বিভিন্ন ধরনের কর্মকান্ড পরিচালনা করছেন। এতে ৫০নং ওয়ার্ডের সর্বস্তরের মানুষের কাছেই তিনি একজন জনপ্রিয় ও ভালোবাসার মানুষ হিসেবে সকলের মধ্যমনি হয়ে আছেন।

এব্যাপারে শাহাদাৎ হোসেন রুবেল বলেন, আমি আমার বাবার (মরহুম হাজী মোঃ আমির হোসেন) মতো সারাজীবন মানুষের কল্যাণে কাজ করতে চাই। কারণ এই এলাকার জনগণ আমাদের পরিবারকে ভালোবাসে। তারা সর্বদা আমাদের পাশে আছে। তাই জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। কারণ তারা আমার বাবাকে বারবার বিপুল ভোটে নির্বাচিত করে মানুষের জন্য কাজ করার সুযোগ দিয়ে ছিলেন। এজন্য আমি ও আমার পবিবার তাদের কাছে ঋনী। তাই আশাকরি তাদের দোয়া ও আর্শিবাদ নিয়ে আমিও এগিয়ে যাবো। তাদের কাঙ্খিত স্বপ্ন পূরণ করবো। আর আমি দেশকে ভালোবাসি। তাই সর্বদা জনগণের পাশে থেকে তাদের জন্য ও এলাকার উন্নয়নে সাধ্যমতো কাজ করে চলছি। এই কাজের ধারা অব্যাহত রাখতে চাই। আর সুযোগ পেলে সেবার মান আরও বাড়াতে চাই। এ জন্যও সকলের সার্বিক সহযোগিতা ও পরামর্শ দাবি করছি।

এব্যাপারে এলাকার অনেক জনগণ বলেন, আসন্ন ডিএনসিসি নির্বাচনে ৫০ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে শাহাদাৎ হোসেন রুবেল। তিনিই এখন আলোচনার শীর্ষে রয়েছে। আর যদি সুষ্ঠ ভাবে নির্বাচন হয় তাহলে শাহাদাৎ হোসেন রুবেলের মত একজন অর্দশবান যোগ্য ব্যক্তি তাঁর পিতা মরহুম হাজী মোঃ আমির হোসেনের মত বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হবেন। এছাড়া এলাকার জনগনের সেবায় বিশেষ ভূমিকা পালন করবেন বলেও আশা করছেন তারা।

তারা আরও বলেন, এলাকার উন্নয়নে ও মানুষের কল্যাণে সাধ্যমত কাজ করে চলছেন, জনতার নয়নের মনি, হাস্যউজ্জ্বল, কর্মীবান্ধব, দুঃখী মানুষের আশ্রয়স্থল ও জনবান্ধব শাহাদাৎ হোসেন রুবেল। এছাড়া আরও বেশী বেশী কাজ করার চেষ্টা চালাচ্ছেন। তাই এলাকার ব্যাপক উন্নয়নের স্বার্থে তার মতো মানুষেরই প্রয়োজন। আমরা অতীতে তাঁর বাবার (মরহুম হাজী মোঃ আমির হোসেন) সাথে ছিলাম এবং বর্তমানে তার (শাহাদাৎ হোসেন রুবেল) সাথে আছি ও ভবিষ্যতে থাকবো।