বিভাগ - সারাদেশ

ডিএসসিসি ২৬ নম্বর ওয়ার্ড পরিক্রমা-পরিকল্পিত ভাবে উন্নয়ন করতে চান: মানিক

প্রকাশিত

মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার, বিশেষ প্রতিবেদক: ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচনী প্রচার আজ রাত ১২ টা থেকে শেষ হচ্ছে । এসময়ের পর প্রার্থীরা আর প্রচারণা চালাতে পারবেন না । স্থানীয় সরকার ( সিটি করপোরেশন ) নির্বাচন বিধিমালা ২০১০ এর ৭৪ বিধি অনুসারে ভোট গ্রহণ শুরুর ৩২ ঘন্টা আগে এবং ভোট গ্রহণের দিন রাত ১২ টা থেকে পরবর্তী ৪৮ ঘন্টা নির্বাচনী এলাকায় কোনো ব্যক্তি জনসভা আহবান অনুষ্ঠান বা তাতে যোগদান এবং কোনো মিছিল বা শোভাযাত্রা করতে বা তাতে যোগদান করতে পারবেন না । অর্থাৎ ১ ফেব্রুয়ারি রাত ১২ টা পর্যন্ত কেউ জনসভা মিছিল অনুষ্ঠান, শোভাযাত্রা, করতে পারবেন না। ১ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮ টায় ভোট গ্রহণ শুরু হবে ।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন ( ডিএসসিসি ) ২৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ হাসিবুর রহমান মানিক বলেন বিগত পাঁচ বছর যে সমস্ত উন্নয়ন ও সেবা কার্যক্রম করেছি তা দৃশ্য মান আমার ২৬ নম্বর ওয়ার্ড। এবার দ্বিতীয় বারের মতো কাউন্সিলর নির্বাচিত হলে সবকিছু পরিকল্পনা মোতাবেক উন্নয়নের ধারাবাহিকতার মাধ্যমে বাসযোগ্য সুস্থ ও সুন্দর মডেল আদর্শ সর্বসেরা একটি ওয়ার্ড গড়ে তুলতে চান। মানিক বিগত ২০১৫ সালে সিটি করপোরেশন নির্বাচনে এই ওয়ার্ডে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেন। এবার কাউন্সিলর পদে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার দলীয় সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পেয়েছেন মানিক। বৃহস্পতিবার দুপুরে ওয়ান নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম প্রতিবেদকের সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে এসব কথা জানান তিনি। মানিক বলেন সব ধরনের নাগরিক সেবা নিশ্চিত করবেন উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন পরিকল্পিত এলাকা গড়তে বর্জ্য, ব্যবস্থাপনা, আধুনিকীকরন, সড়ক অবকাঠামো উন্নয়ন, জলাবদ্ধতা দূরীকরণসহ সামাজিক নিরাপত্তা বিধানে একটি সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা রুপ চক তৈরি করছেন । এই পরিকল্পনার আলোকে ( ডিএসসিসির ) ২৬ নম্বর ওয়ার্ডকে একটি মডেল ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তুলবেন।

মানিক বলেন এলাকাবাসির স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার জন্য সব রকমের ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। মশা নিধক কার্যক্রমের পাশাপাশি মশার বংশ বিস্তার রোধে কার্যকর পদক্ষেপ নেব। এলাকার মানুষের হাঁটা চলার জন্য বিভিন্ন সড়কে ফুটপাত এবং জলাশয়ের তীরে ওয়াকওয়ে নির্মাণ করব। সুস্থ ও সুন্দর জীবন যাপনের জন্য যেমন পরিবেশ দরকার ঠিক তেমন একটি পরিবেশ গড়ে তুলব। জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মাধ্যমে দেশের উন্নয়নের সঙ্গে তাল মিলিয়ে তিনি মানিক তার এলাকা ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের মানুষের জীবন যাত্রার মানোন্নয়ন করা হবে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন কাউন্সিলর পদটি ছোট্ট হলেও মানুষের জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত সেবা দেওয়ার সুযোগ রয়েছে । তাই ভালোমানের পরিকল্পনা দরকার। আমি সেটি করেছি, যা আমার এলাকার সর্বস্তরের জনগণকে জানিয়ে দিয়েছি ।

মানিক আরও বলেন আগামী ১ ফেব্রুয়ারি আমার রেডিও প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে কাউন্সিলর নির্বাচিত করলে সব প্রতিশ্রুতি অক্ষরে অক্ষরে পূর্ণ করব ইনশাআল্লাহ । এদিকে মানিক নিজের জন্য জনগণের কাছে ভোট চাওয়ার পাশাপাশি ( ডিএসসিসি) আওয়ামী লীগ দলীয় ও শেখ হাসিনার প্রার্থী শেখ ফজলে নুর তাপসের নৌকা প্রতীকের জন্য তার ওয়ার্ডের সর্বস্তরের জনগণ ও ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে নৌকা প্রতীকের ভোট চেয়ে চষে বেড়াচ্ছেন । মানিক বলেন দলীয় মেয়র প্রার্থী শেখ ফজলে নুর তাপস তিনি ক্লিনইমেজের অধিকারী একজন যোগ্যতা সম্পুর্ন জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমরা ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের জনগণ তাঁহাকে পেয়েছি । তাপস নির্বাচিত হলে আমাদের ( ডিএসসিসি ) বর্তমানের চেয়ে আরও অনেক বেশি উন্নয়ন মুলক কাজকর্ম গতিশীল হবে এবং তাপসের মাধ্যমে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন ডিএসসিসি অত্যাধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর সর্বসেরা একটি আধুনিকতার মানের সিটি করপোরেশন হিসেবে মর্যাদার দূর প্রান্তে এগিয়ে যাবে। সেই লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে শেখ ফজলে নুর তাপসকে বিজয়ী করার জন্য আমার ওয়ার্ডবাসি সহ ( ডিএসসিসির ) সর্বস্তরের জনগণকে আহবান জানাই ।

এদিকে স্থানীয় ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় এলাকায় আলহাজ্ব মোহাম্মদ হাসিবুর রহমান মানিকের ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে । এই ওয়ার্ডে দলে তার মতো আর দ্বিতীয় কোনো শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নেই । অথচ এ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে প্রতিপক্ষ বিএনপি ও স্বতন্ত্রসহ একাধিক প্রার্থী অংশ নিয়েছেন। একারণে নির্বাচনে তার বিপুল ভোটের ব্যবধানে হাসিবুর রহমান মানিক জয়ী হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে ।

২৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি তিনি বলেন এলাকার যে কোনো মানুষের বিপদে আপদে হাসিবুর রহমান মানিক সব সময় এগিয়ে এসেছেন । অপরিচিত বাসিন্দারা ও যে কোনো প্রয়োজনে তাকে পাশে পেয়েছেন । একারণে নিঃস্বার্থভাবে তারা তার পক্ষে প্রচার – প্রচারণা কাজ করে যাচ্ছেন । তিনি কাউন্সিলর নির্বাচিত হলে যে- কোনো সাধারণ মানুষ তার কাছে যে-কোনো প্রয়োজনে সহযোগিতা পাবেন বলে আশাবাদী এলাকাবাসী ।

মানিক বলেন এবার নির্বাচনে আমি গতবারের চেয়ে বেশি ব্যবধানে ভোট পেয়ে জয়লাভ করবো। কারণ আমি যেসমস্ত উন্নয়ন মুলক কাজকর্ম করেছি এর আগে কোনো কাউন্সিলর জনগণকে সেই কাক্ষিত সেবা ও উন্নয়নের ধারাবাহিকতা কার্যক্রম করা তাদের পক্ষে সম্ভব হয় নাই। জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার মূর্ত রেডীও প্রতীক এখন জয়ের দারপ্রান্তে চলে এসেছে । এখন শুধুমাত্র ১ ফেব্রুয়ারি ভোট দিয়ে আমাকে কাউন্সিল হিসেবে বিজয়ী করে তাদের সেই কাক্ষিত ফলাফল গ্রহণ করার জন্য অধির আগ্রহের মধ্যে আমার এলাকার জনগণ সুদূর অপেক্ষায় রয়েছেন।