ডোন্ট লিভ দ্য সেন্টার: মির্জা আলমগীর

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিএনপির নির্বাচনি এজেন্ট ও নেতাকর্মীদের ভোটকেন্দ্র ত্যাগ না করার নির্দেশনা দিয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) দুপুর দেড়টার দিকে দলের নয়া পল্টনের কার্যালয় ত্যাগ করার সময় তিনি বলেন, ‘ডোন্ট লিভ দ্য সেন্টার। সবাই যার-যার কেন্দ্রে ফিরে যান।’

শনিবার সকাল সোয়া ১১টার দিকে নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আসেন মির্জা ফখরুল। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং সদস্য শায়রুল কবির খান। কার্যালয়ে আসার পরই ঢাকার বিভিন্ন এলাকার নেতাকর্মীরা ফখরুলের কাছে নির্বাচন নিয়ে নানা অভিযোগ তুলে ধরেন। তিনি এসব অভিযোগ শোনার পর প্রত্যেক প্রার্থী ও নেতাকর্মীকে কেন্দ্রে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানান।

দুপুর সোয়া ১২টার দিকে কার্যালয়ে প্রবেশ করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। এসময় তার নির্বাচনি এলাকার বিভিন্ন অনিয়মের কথা আলোচনা করেন মির্জা ফখরুলের সঙ্গে। মির্জা আব্বাস জানান, খিলগাঁও এলাকাসহ তার নিজের ওয়ার্ডেও অপরিচিত লোকদের নৌকার প্রার্থীর পক্ষে কাজ করতে ডাকা হয়েছে। পরে তিনি পুলিশের সামনেই অপরিচিত লোকদের কেন্দ্র থেকে বেরিয়ে যেতে আহ্বান জানান। ফখরুলের উদ্দেশ্যে মির্জা আব্বাস আরও বলেন, ‘আমার এলাকায় একটি কেন্দ্রে বোমা হামলার মতো কিছু ঘটেছে। ইভিএমে ভোট দিতে গিয়ে ধানের শীষের মার্কা আসে না।’ জবাবে মির্জা ফখরুল জানান, সকাল থেকেই তিনি এসব অভিযোগ শুনছেন। এরপর ফের নেতাকর্মী ও প্রার্থী-এজেন্টদের নিজ কেন্দ্রে অবস্থানের কথা উল্লেখ করেন তিনি।

বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আসেন ঢাকা দক্ষিণে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেনের নির্বাচনি এজেন্ট আবদুস সালাম। মির্জা ফখরুলের কক্ষে এসে মহানগরের কয়েকজন কাউন্সিলর প্রার্থীকে দেখে রেগে গিয়ে সবাইকে কেন্দ্রে যাওয়ার নির্দেশ দেন তিনি।

এর আগে, আবদুস সালামের স্বাক্ষরে একটি অভিযোগ পাঠানো হয়েছে নির্বাচন কমিশনে। শায়রুল কবির খান জানান, ডিএসসিসির ৪৪, ৪২, ১৮ ও ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কেন্দ্র থেকে ধানের শীষের এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে বলে রিটার্নিং অফিসার আবদুল বাতেনের কাছে পাঠানো অভিযোগে জানানো হয়েছে।

দুপুর পৌনে ১টার দিকে মির্জা ফখরুল ও মির্জা আব্বাস বিএনপির কার্যালয় ত্যাগ করেন। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস তার বাড়িতে অবস্থান করবেন বলে জানান বাংলা ট্রিবিউনকে। কার্যালয় ত্যাগের আগে আবারও বিএনপির মহাসচিব ব্রিফিং কক্ষে অবস্থানরত দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, ‘এখানে থাকার দরকার নাই। সবাই যার-যার কেন্দ্রে যান। নিজে গিয়ে কেন্দ্রে বসেন। শেষবেলা পর্যন্ত কেন্দ্রে থাকতে হবে।’

এদিকে, ভোটের সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলনের ব্যাপারে দুপুর একটা পর্যন্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি বিএনপি। দলের স্থায়ী কমিটির কয়েকজন সদস্য গুলশানের কার্যালয়ে সকাল থেকে অবস্থান করলেও নেতারা ভোটের পুরো পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চান বলে জানান একজন সদস্য।

তবে ভোটের সময় শেষ হওয়ার পর নয়া পল্টনে আনুষ্ঠানিকভাবে দলের অবস্থান তুলে ধরা হতে পারে, এমন সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন স্থায়ী কমিটির একহন সদস্য।

প্রসঙ্গত, শনিবার সকাল ৮টায় ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে।