তামিম ইকবাল ও কেন উইলিয়ামসন এর কথোপকথন

প্রকাশিত

তামিমকে যে পরামর্শ দিলেন উইলিয়ামসন
টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি। তিনটি ভিন্ন ফরম্যাটের খেলা। ফরম্যাট যেমন ভিন্ন তেমনি ভিন্ন মানসিকতার খেলাও। তাই ক্রিকেটারদের মানসিক প্রস্তুতিটা নিতে হয় ভিন্নভাবে। যার কারণে কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন মনে করেন, প্রত্যেক ব্যাটসম্যানের উচিত নিজেদের যে ইতিবাচক দিক রয়েছে সেগুলো নিয়ে বেশি বেশি কাজ করা।

করোনা ভাইরাসের কারণে ঘরে বসে অবসর সময় কাটানো তামিম ইকবাল বেশ কয়েকদিন ধরেই দেশি-বিদেশি ক্রিকেটারদের নিয়ে লাইভ আড্ডায় মেতেছেন। বৃহস্পতিবার (২১ মে) দুপুরে সে আড্ডায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক উইলিয়ামসন। সেখানেই তরুণ ব্যাটসম্যানদের কিভাবে তিন ফরম্যাটের জন্য ভিন্নভাবে মানসিক প্রস্তুতি নিতে হবে তামিমের এই প্রশ্নে এমন পরামর্শ দিয়ছেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

উইলিয়ামসন বলেন, ‘পেশাগত ক্রিকেটারদের ভিডিও বিশ্লেষণ থাকে যার মাধ্যমে প্রস্তুতি নেওয়া যায়। কিন্তু একজন তরুণ ক্রিকেটারের সেই সুযোগ থাকে না। তাকে সব সময় নেটে অনুশীলন করতে হয়। সেখানেই সে মানসকিভাবে নিজেকে প্রস্তুত করে যে, সে কিভাবে খেলবে। যাদের গায়ে বেশি জোর থাকে তারা আক্রমণাত্মক কৌশলে খেলে। যেমন, তুমি (তামিম) খেলে থাকো। কিন্তু সবার পক্ষে তো আর এভাবে খেলা সম্ভব নয়। আমার মনে হয়, যার যে শক্তির জায়গা রয়েছে সেটা নিয়ে কাজ করা উচিৎ। পাশপাশি ম্যাচের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ার মতো ক্ষমতাটা বাড়াতে হবে কারণ প্রতিপক্ষ সব সময় পরিবর্তন হয়।’

কিউই অধিনায়ক আরও বলেন, ‘সবসময়ই ব্যাটসম্যানদের ভিন্ন ভিন্ন কন্ডিশন, পিচে খেলতে হয়। কখনও এক-দুই রান নিয়ে খেলতে হয় আবার কখনও চার-ছয় মেরে খেলতে হয়। বিশেষ করে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে এটা বেশি করতে হয়। তরুণ ক্রিকেটারদের বলবো, নিজের শক্তির জায়গাগুলো নিয়ে কাজ করো, বেশি বেশি অনুশীলন করো, যাতে করে সেটা ব্যবহার করে ম্যাচের সঙ্গে খাপ খাইয়ে কার্যকরী ইনিংস খেলতে পারো। আমার কাছে মানসিক প্রস্তুতি নিতে এটাই বেশি গুরুত্বর্পর্ণ মনে হয়।’

বিপিএলে খেলতে চান উইলিয়ামসন
টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটার হিসেবে নিউজল্যান্ডের কেন উইলিয়ামসনের চাহিদা বিশ্বজোড়া। বিভিন্ন ফ্রাঞ্চাইজিভিত্তিক ক্রিকেট লিগ বিশেষ করে আইপিএলে নিয়মিত মুখ তিনি। তবে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) খেলতে দেখা যায়নি এই কিউই ব্যাটসম্যানকে। তবে সুযোগ পেলে তিনি বিপিএলে খেলতে চান বলে জানালেন।

তামিমের সঙ্গে আড্ডার এক পর্যায়ে উইলিয়ামসন বলেন, ‘আমি বিপিএল খেলতে খুবই আগ্রহী। সময় বের করতে পারলে অবশ্যই খেলতে চাই বিপিএলে। আমি জানি এখানে দারুণ প্রতিযোগিতা হয়। এই টুর্নামেন্টে অনেক ভালো কিছু বিষয় আছে। দেখা যাক কী হয়।’

তামিমের কাছ থেকে আম্পানের খবর নিলেন উইলিয়ামসন
নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ব্যক্তি হিসেবে অসাধারণ একজন মানুষ। একদম ঠাণ্ডা মাথার মানুষ। ক্রিকেট মাঠে যত কঠিন পরিস্থিতি আসুক না কেন তাকে কখনো মাথা গরম করতে দেখা যায়নি। তামিম ইকবালের লাইভেও সেই নিপাট ভদ্রলোকের হিসেবেই দেখা গেল তাকে। বাংলাদেশের খোঁজখবরও যে টুকটাক রাখেন তিনি, সেটাও বোঝা গেল।

উইলিয়ামসন বলেন, ‘আশা করি বাংলাদেশের মানুষ করোনা থেকে নিজেদের এড়াতে পারছে। আবার শুনলাম একটি ঘূর্ণিঝড় নাকি আঘাত হেনেছে বাংলাদেশে। আশা করি তোমরা সবাই সবাই সুস্থ ও ভালো আছো।’

তামিম অবশ্য উইলিয়ামসনকে জানিয়ে দিয়েছেন আম্পানে বাংলাদেশের তেমন ক্ষতি করতে পারেনি। উইলিয়ামসনকে তামিম বলেন, ‘সাইক্লোনটি ভারতের পশ্চিমবঙ্গে যেভাবে আঘাত হেনেছে, এখানে সেভাবে আঘাত করেনি। আমরা সবাই নিরাপদে আছি, সুস্থ আছি।’

শুধু তাই নয়, এদেশের করোনা পরিস্থিতি সম্পর্কেও জানতে চান উইলিয়ামসন। তামিম জানিয়ে দেন, লকডাউন দীর্ঘায়িত হলে দেশের দিন এনে দিন খাওয়া মানুষদের অসুবিধা হবে। অন্যান্য সমস্যাগুলোও বাড়বে। এমনকি করোনার চেয়েও বেশি সমস্যা হয়ে দাঁড়াতে পারে খিদে। তাই সরকার ধীরে ধীরে সব খুলছে।

এক ফাঁকে উইলিয়ামসন নিজ দেশের করোনা পরিস্থিতির কথাও জানান।